গৌরনদী সংবাদ

গৌরনদীর ভূমিদস্যুরা বেপরোয়া প্রশাসনের কাছে ঘুরে সর্বস্ত্র হারাচ্ছেন ভূক্তভোগীরা

অন্যের জমি ভূয়া রেকর্ডের মাধ্যমে মালিকানা দাবি করে জবরদখল কিংবা মিথ্যে মামলা দিয়ে হয়রানী ও হামলার ঘটনার মধ্যদিয়ে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার প্রভাবশালী ভূমিদস্যুরা ক্রমেই বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন। এ ঘটনায় বছরের পর বছর আদালতে মামলা দায়ের করে ও প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরে সর্বস্ত্র হারাচ্ছেন ভূক্তভোগীরা।

সূত্রমতে, উপজেলার খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের কমলাপুর গ্রামের চিহ্নিত প্রভাবশালী ভূমিদস্যুদের রোষানলে আদালতে মামলা দায়ের করেও এখন প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন অসহায় দিনমজুরদের পরিবার। মামলা উত্তোলনের জন্য প্রভাবশালী ভূমিদস্যু ও তাদের সহযোগীরা বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতিসহ হুমকি প্রদর্শণ অব্যাহত রেখেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই গ্রামের মৃত নাজেম খানের পুত্র মানিক খান (৬০) অভিযোগ করেন, একই এলাকার মৃত আব্দুল কাদের বেপারীর পুত্র চিহ্নিত ভূমিদস্যু আব্দুল আজিজ ও সিরাজুল ইসলাম গংরা বাঘমারা মৌজার বিভিন্ন দাগ ও খতিয়ানের ৩৯ শতক জমি ক্রয়সূত্রে মালিক হন। পরবর্তীতে তাদের (মানিক গংদের) পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া ভোগদখলীয় ১ একর ৭০ শতক সম্পত্তি আজিজ ও সিরাজুল ইসলাম গংরা ভূয়া রেকর্ডের মাধ্যমে মালিকানা দাবি করেন। এ ঘটনায় তিনি (মানিক) বাদি হয়ে বরিশাল বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।

অভিযোগে আরো জানা গেছে, অতিসম্প্রতি ওই জমিতে ভূমিদস্যুরা জোরপূর্বক ভোগ দখলের জন্য ঘর নির্মান করার পায়তারা শুরু করেন। উপায়অন্তুর না পেয়ে মানিক খান আদালতের মাধ্যমে ওই সম্পত্তির ওপর ১৪৪ ধারা জারি করান। গৌরনদী থানার এএসআই সাইদুল আলম আদালতের নির্দেশে অভিযোগের তদন্ত করে রির্পোট জমা দেন। বর্তমানে প্রতিপক্ষের প্রভাবশালীরা পূর্ণরায় সম্পত্তি দখলের ষড়যন্ত্র করায় গত ২৭ অক্টোবর অসহায় মানিক খান বাদি হয়ে আদালতে আরো একটি অভিযোগ দায়ের করেন। মানিক খানের আবেদনের ভিত্তিতে আদালতের বিচারক ওই সম্পত্তির ওপর ভোগ দখলের বিষয়টি পূর্ণতদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। আদালতের পূর্ণ তদন্তের নির্দেশ পেয়ে ভূমিদস্যুদের কবল থেকে পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষায় অসহায় মানিক খান এখন প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

আরও সংবাদ...

Leave a Reply

Back to top button