গৌরনদী সংবাদ

গৌরনদীতে আদর্শ কৃষকদের প্রতীকী প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত

গোলা ভরা ধান আর পুকুর ভরা মাছের কারণেই হয়তো কবি তার কবিতায় লিখেছিলেন, ধনে ধান্যে পুষ্পে ভরা আমাদের এই বসুন্ধরা। একসময়ে কবির লেখা অমর কবিতা সাদা কাগজেই শুধু সীমাবদ্ধ ছিলো। এরমধ্যে গত কয়েক বছর থেকে সরকারী ভাবে সঠিক সময়ে কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে সার ও বীজ বিতরণ, বোরো মৌসুমে সেচকাজে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুত সরবরাহ এবং মাঠ পর্যায়ে কৃষি কর্মকর্তাদের সঠিক মনিটরিঙয়ের কারণেই বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় আমন ও বোরো মৌসুমে কৃষকেরা জমিতে বাম্পার ফলন পাচ্ছেন। যে কারনে কবির লেখা কবিতার ফের বাস্তবে রূপ মিলেছে গ্রামীণ জনপদে। গ্রামের আদর্শ কৃষাণ-কৃষাণীদের পরিশ্রমের ফসল হিসেবে এখন গোলা ভরা ধান, পুকুর ভরা মাছ ও সবজি চাষ করে স্বাবলম্বী হয়েছেন উপজেলার সাতটি ইউনিয়ন ও পৌর এলাকার কৃষকেরা।

আদর্শ চাষি হিসেবে গড়ে তুলতে মাঠ পর্যায়ের কৃষকদের আরো উদ্ভূদ্ধ করার লক্ষে কৃষি অধিদপ্তরের আইএফএমসি প্রকল্পের উদ্যোগে ও সাহায্য সংস্থা ডানিডার সহায়তায় গৌরনদীতে চারটি কৃষক মাঠ স্কুল গঠন করা হয়েছে। ওই স্কুলের শিক্ষার্থী হচ্ছেন, এলাকার কৃষক ও কৃষাণীরা। বিভিন্ন ডিজিটাল পদ্ধতি অবলম্বনের মাধ্যমে গ্রামের কৃষাণ-কৃষাণীদের হাতে কলমে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে গড়ে তোলা হচ্ছে আদর্শ চাষি হিসেবে। ডিজিটাল পদ্ধতির মাধ্যমে জমিতে ধান রোপণ, কর্তন, সবজি চাষ, পুকুরে মাছ চাষ থেকে শুরু করে সকল প্রকার প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। গত ছয় মাসব্যাপী উপজেলার বাটাজোর ইউনিয়নের দেওপাড়া কৃষক মাঠ স্কুলে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন ওই এলাকার ৪৭জন কৃষাণ-কৃষাণী। প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠান উপলক্ষে বুধবার (১৯ নবেম্বর) বিকেলে মাঠ দিবসের আয়োজন করা হয়। সমাপনী মাঠ দিবসে প্রশিক্ষণ পাওয়া কৃষাণ-কৃষাণীরা স্থানীয় দেওপাড়া ডাল মিল চত্বরে কৃষির ওপর প্রতীকী প্রদর্শনীর আয়োজন করে এলাকায় ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছেন। একজন আদর্শ চাষি কিংবা গৃহিনী হতে হলে যেসব গুণাবলী থাকা প্রয়োজন তার বাস্তব সকল চিত্র ফুটে উঠেছে প্রদর্শনীর মাধ্যমে।

সমাপনী অনুষ্ঠানে স্থানীয় কৃষক রাম লাল বাড়ৈর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন, বর্তমান সরকার কৃষি বান্ধব সরকার। তাই কৃষির ওপরই বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। কৃষকদের সর্বাত্মক সহযোগী করার জন্য এ সরকার বদ্ধ পরিকর। তাই কৃষি উৎপাদনে বিনামূল্যে সার ও বীজ বিতরণসহ সরকারের সকল প্রকার সহযোগী অব্যাহত রয়েছে। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ও কৃষক বন্ধু মোঃ সিরাজুল ইসলাম, আব্দুল হালিম, হানিফ হাওলাদার। বক্তব্য রাখেন প্রধান শিক্ষিকা সাবিনা ইয়াসমিন, প্রশিক্ষক মোঃ আল-আমিন, বাসন্তি হালদার, কৃষক মালেক মোহাম্মদ ফিরোজ, অনিমা বাড়ৈ, শিশির হালদার প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ ফকরুল আলম। শেষে দেওপাড়া কৃষক মাঠ স্কুলের প্রশিক্ষণার্থী ৪৭জন কৃষক-কৃষাণীদের মাঝে কৃষি উপকরণ ও সনদপত্র বিতরণ করা হয়।
মোঃ এনায়েত হোসেন মুন্না


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো পোষ্ট...

Leave a Reply