গৌরনদী সংবাদ

গৌরনদীতে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে পুড়িয়ে হত্যা

যৌতুকের দাবিতে দৃ’সন্তানের জননী এক গৃহবধূকে নির্যাতনের পর গায়ে কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহতের লাশের ময়নাতদন্ত শেষে সোমবার দিবাগত মধ্যরাতে বাবার বাড়ির পারিবারিক গোরস্তানে দাফন করা হয়। এ ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনাটি জেলার গৌরনদী উপজেলার নলচিড়া ইউনিয়নের বদরপুর গ্রামের।

উপজেলার দক্ষিণ মাহিলাড়া গ্রামের মৃত কাদের সরদারের পুত্র দিনমজুর শাহজাহান সরদার জানান, গত ৭ বছর পূর্বে তার বোন পারভীন আক্তারকে (২৬) পাশ্ববর্তী নলচিড়া ইউনিয়নের বদরপুর গ্রামের মৃত নায়েব আলী খানের পুত্র নজরুল খানের সাথে সামাজিকভাবে বিয়ে দেয়া হয়। তাদের সংসারে দুটি পুত্র সন্তান রয়েছে।
শাহজাহান অভিযোগ করেন, উপজেলার পিঙ্গলাকাঠী বাজারের মটরসাইকেলের মেকানিক নজরুল খান ও তার পরিবারের সদস্যরা বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময় যৌতুকের দাবিতে পারভীনকে শারিরিক নির্যাতন করে আসছিলো। তাদের (নজরুলের) দাবি অনুযায়ী বিয়ের পর দু’বার ৯০ হাজার টাকা যৌতুক দেয়া হয়। আরো এক লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে গত ১৯ অক্টোবর সকালে নজরুল ও তার পরিবারের সদস্যরা পারভীনকে অমানুষিক নির্যাতন করে। এতে পারভীন অজ্ঞান হয়ে পরলে তার গায়ে কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়। এসময় পারভীনের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে মুর্মুর্ষ অবস্থায় তাকে (পারভীন) উদ্ধার করে প্রথমে গৌরনদী ও তাৎক্ষনিক শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরবর্তীতে উন্নত চিকিৎসার জন্য পারভীনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রবিবার (২৫ অক্টোবর) রাতে পারভীন বেগম মারা যায়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পারভীনের মৃত্যুর সংবাদ ছড়িয়ে পরার পর ঘাতক স্বামী নজরুল ইসলাম ও তার পরিবারের সদস্যরা বসত ঘর তালাবদ্ধ করে আত্মগোপন করেছে।

গৌরনদী থানার ওসি মো. আলাউদ্দিন মিলন জানান, এ ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে নিহতের ভাই শাহজাহান সরদার বাদি হয়ে চারজনকে আসামি করে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। আসামিদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশ অভিযান শুরু করেছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

আরও সংবাদ...

Leave a Reply

Back to top button