আর্কাইভ

ডিবি পুলিশের বিরুদ্ধে তিন ব্যবসায়ীর ৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি ॥  এবার বরিশালের তিন ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে ডিবি পুলিশের বহুল আলোচিত এস.আই মাসুম ও তার টিমের তিন সদস্যের বিরুদ্ধে। বিষয়টি সোমবার রাতে সর্বত্র ছড়িয়ে পরলে সেই থেকে আজ মঙ্গলবার দিনভর এ নিয়ে টক অব দ্যা নগরীতে পরিনত হয়। সোমবার রাতেই সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বিষয়টি নিয়ে জরুরি বৈঠক করেছেন।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, ঢাকাগামী জলযান বে-ক্রুজের তিন যাত্রীকে (ব্যবসায়ী) সোমবার সকালে ডিবি’র এস.আই মাসুম, এএসআই রফিক, কনস্টেবল শান্ত ও সাইদ আটক করে। তাদের কাছে থাকা ১২ লক্ষ টাকা প্রথমে হাতিয়ে নেয়া হয়। পরবর্তীতে ওই ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে হুন্ডি ব্যবসার মিথ্যে অজুহাতসহ তাদেরকে অস্ত্র ও মাদক মামলায় জড়ানোর হুমকি দিয়ে ৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে বাকি ৭ লক্ষ টাকা ফেরত দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে ওই ব্যবসায়ীরা বিষয়টি ডিবির মাঠ পর্যায়ের অপর সদস্যদের অবহিত করেন। একপর্যায়ে বিষয়টি ডিবি পুলিশের মধ্যে চাউর হয়ে যায়। বিপুল অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়ার বিষয়টি পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে পৌঁছলে অভিযুক্ত চার ডিবি পুলিশের সদস্যকে উপ-পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ে তলব করা হয়। সেখানে উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) সোয়েব আহমেদ অভিযুক্তদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করেন। অভিযুক্তরা ব্যবসায়ীদের আটক করে ছেড়ে দেয়ার কথা স্বীকার করলেও টাকা আত্মসাতের বিষয়টি অস্বীকার করেন।

এ ব্যাপারে ডিবি’র এসি রিয়াজ হোসেনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রথমে মিটিংয়ে থাকার কথা জানিয়ে পরবর্তীতে আর ফোন রিসিভ করেননি। উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) সোয়েব আহমেদকে ফোন করা হলে তিনিও মিটিংয়ের কথা বলে বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদের ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে সোয়েব আহমেদ পুরো বিষয়টি নিয়ে পুলিশ কমিশনারের সাথে যোগাযোগ করার পরামর্শ দেন। পুলিশের বিশস্ত একটি সূত্রে জানা গেছে, ডিবির খপ্পড়ে পড়া তিন ব্যবসায়ী ও অভিযুক্ত ডিবি পুলিশের সদস্যদের নিয়ে সোমবার রাত সাড়ে আটটার দিকে পুলিশ কমিশনারসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বৈঠক করেছেন। তবে পরবর্তী বিষয়ে কিছুই জানা যায়নি।

উল্লেখ্য, এর আগেও ডিবি পুলিশের সদস্যরা পটুয়াখালীর এক ব্যবসায়ীকে একইভাবে জিম্মি করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়। বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল বৈশাখী টিভি’র বরিশাল বিভাগীয় প্রতিনিধি অপূর্ব অপুর এক নিকট আত্মীয়কে বিনা অভিযোগে আটক করে ৭৪ হাজার টাকা মুক্তিপণ আদায় করে। টাকার দাবিতে বাংলাভিশন চ্যানেলের বরিশাল প্রতিনিধি শামীম আহমেদের পরিবারকে হয়রানী করে। দীর্ঘদিন যাবত ডিবি’র কতিপয় সদস্যরা এভাবেই নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে নিরহ মানুষকে ধরে এনে মুক্তিপন আদায় করে আসছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »