আর্কাইভ

গৌরনদীতে যুবলীগ নেতারা দখল করে নিয়েছে একটি হিন্দু বাড়ি

প্রেমানন্দ ঘরামী ॥  আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার সুন্দরদী গ্রামে গতকাল মঙ্গলবার একটি সংখ্যালঘু পরিবারের বাড়ি দখল করেছে প্রভাবশালী উপজেলা যুবলীগ নেতারা। সংখ্যালঘু পরিবারের অভিযোগ স্থানীয় পুলিশের ছত্রছায়ায় দখল ও লুটপাট চালায় যুবলীগ নেতারা। ফলে চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন ওই পরিবারটি।

সরেজমিনে গিয়ে পরিবারের অভিযোগ, স্থানীয় লোকজন, পুলিশের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বরিশালের গৌরনদী পৌর সদরের ১নং ওয়ার্ডের সুন্দরদী মৌজার এসএ ২৯ নং খতিয়ানের ২০৯১ নং দাগের ৭৬.৪৪ শতাংশ জমির রেকর্ডিয় মালিক গৌরনদী উপজেলার সুন্দরদী গ্রামের মৃত কৃঞ্চ কুমার  চন্দের পুত্র মৃত গোপি নাথ চন্দ। চলতি মাঠ জরিপে গোপি নাথ চন্দের ওয়ারিস হিসেবে উক্ত সম্পত্তি তার পুত্র কানাই লাল চন্দ্রর নামে রেকর্ডভূক্ত হয়।

কানাই লাল চন্দ অভিযোগ করেন, আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে গৌরনদী উপজেলার সুন্দরদী গ্রামে গতকাল মঙ্গলবার সকালে কমান্ড ষ্টাইলে পৌর কাউন্সিলর ও উপজেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি কাজী স্বজল, গৌরনদী উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য মোঃ রুবেল তালুকদার, মোঃ শাহদাত তালুকদার, জুয়েল খান, ইউপি সদস্য ও যুবলীগ সদস্য মোঃ মিলন হাওলাদার, আল আমিন, সমীর সরকারসহ তাদের ভাড়াটে সন্ত্রাসী ও কাড মিস্ত্রীসহ ৩০/৩৫ সকাল সাড়ে ৭টায় তার বাড়িতে ঢুকে পাকা ভবনের উত্তর পাশে একটি টিনের ঘর তুলে সম্পত্তির আংশিক দখল নেন।  বিষয়টি গৌরনদী থানাকে জানালে পুলিশ ঘটনাস্থলে না গিয়ে তাদেরকে (কানাই চন্দকে)কাগজপত্র নিয়ে  থানায় হাজির হতে বলেন।

কানাই চন্দের পুত্র দীপক চন্দ (৩২) অভিযোগ করেন, কাগজপত্র নিয়ে থানায় গেলে কাগজপত্র দেখার নামে তাদেরকে থানায় বসিয়ে রাখা হয়। এ সুযোগে সকাল সাড়ে ৭টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত যুবলীগ নেতা ও তাদের ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা কমান্ড ষ্টাইলে বাড়ি দখল, বাড়ির একটি পুকুরের জাল টেনে প্রায় ৫০/৬০ হাজার টাকার মাছ লুট ও বাড়ির বাগানের রেন্ট্রি, মেহগনি, শিশুসহ বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় দেড় লাক্ষ টাকার গাছ কেটে লুট করে নিয়ে যায়। তিনি আরো অভিযোগ করেন, যুবলীগ নেতাদের দখল, মাছ গাছ লুট সম্পন্ন হওয়ার পরে পুলিশ উভয় পক্ষকে নিষেধাজ্ঞা মানতে সমঝোতা করে দেন।

অভিযোগের ব্যপারে ওয়ার্ড কাউন্সিলর কাজী তৌফিক ইকবাল স্বজল, আল আমিন, রুবেল তালুকদার, শাহদাত তালুকদার, মিলন হাওলাদারের কাছে  জানতে চাইলে তারা বলেন, আমরা ক্রয় সূত্রে জমির মালিক। মালিকানার দাবিতে আমরা আমাদের জমি দখল নেই।  আমরা কারো গাছ মাছ লুট করিনি। নিষেধাজ্ঞা অমান্য প্রসঙ্গে তারা বলেন, ইতিমধ্যে আদালত  নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নিয়েছে।

গৌরনদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, সংবাদ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে কাজ বন্ধ করে দেয়।

খবর পেয়ে আজ মঙ্গলবার বরিশাল পুলিশ সুপার এহসানউল্লহ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহাবুবুর রহমান, এএসপি সার্কেল মোঃ কামরুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »