আর্কাইভ

বিসিসি নির্বাচন : বরিশালের ২৭টি ব্যস্তিতে ঈদের আমেজ

হাসান মাহমুদ, বিশেষ প্রতিনিধি ॥  সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনকে সামনে রেখে নগরীর ২৭ টি বস্তিবাসীদের ঘরে ঘরে এখন উৎসবের পাশাপাশি ঈদের আমেজ বিরাজ করছে। বস্তির গৃহবধূ থেকে শুরু করে পুরুষ এবং কিশোর-কিশোরীরা এখন আর কাজের জন্য নগরীতে এসে ধরনা দেয় না। তারা আসন্ন সিটি নির্বাচনের তিনজন মেয়র, ৩০টি ওয়ার্ডের ১১৫ জন সাধারন কাউন্সিলর ও ১০টি সংরক্ষিত আসনের ৪৭ জন কাউন্সিলর প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণাকে উপার্জনের একমাত্র মাধ্যম হিসেবে ধরে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। এজন্য তারা প্রত্যেক মেয়র ও কাউন্সিলর পদপ্রার্থীর কাছ থেকে প্রতিদিন ৫ থেকে ৬’শ টাকা করে মজুরী পাচ্ছেন। নির্বাচন উপলক্ষ্যে প্রত্যেকটি পরিবার এখন প্রতিদিন গড়ে ১ থেকে দেড় হাজার টাকা করে আয় করছেন। বস্তিবাসীর ভোট নিশ্চিত করতে বস্তিতেই কর্মী বাহিনী তৈরি করে চলছে প্রচার-প্রচারণার কাজ। বস্তিবাসীদের ভোট পেতে মাঠে নেমেছেন প্রার্থীরা।

নগরীর কীর্তনখোলা নদীর পাড় সংলগ্ন আমানতগঞ্জ এলাকার পলাশপুরের ১৪টি, রসুলপুর ও মোহম্মদপুর বস্তি, পোর্ট রোডস্থ কলাপট্টি বস্তি, কেডিসি সংলগ্ন বালুর মাঠ বস্তি, স্টেডিয়াম বস্তি, ভাটারখাল বস্তি, রূপাতলী বস্তিসহ বিভিন্ন স্থানের ২৭টি বস্তি ঘুরে এমনই তথ্য পাওয়া গেছে। এসব বস্তিতে প্রায় ৭০ হাজার মানুষ বসবাস করছেন। এরমধ্যে নারী-পুরুষ প্রায় ৪০ হাজার ভোটার রয়েছেন। দারিদ্রপীড়িত এসব বস্তির প্রতিটি ঘরে ঘরে এখন যেন ঈদের মতোই আনন্দ বয়ে যাচ্ছে। তবে বস্তির একাধিক বাসিন্দারা জানিয়েছেন, তারা যার পক্ষে কাজ করছেন তাকেই যে ভোট দেবেন এমন কথা নেই। যে প্রার্থী বস্তিবাসীর ভাগ্যের উন্নয়নে কাজ করেছেন কিংবা আগামীতেও করবেন তারা তাকেই ভোট দেবেন।

বৃষ্টি ভেজা গণসংযোগ

আজ শুক্রবার দিনভর অবিরাম বৃষ্টির মধ্যে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় টেলিভিশন মার্কার সমর্থনে ব্যাপক গণসংযোগ করেছেন মহাজোট সমর্থিত সম্মিলিত নাগরিক কমিটির মেয়র পদপ্রার্থী আলহাজ্ব শওকত হোসেন হিরন। এসময় অগ্রনী ব্যাংকের পরিচালক এ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দারসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন। একইদিন বৃষ্টি ভেজা গণসংযোগ করেছেন ১৮ দলীয় জোটের সমর্থিত জাতীয়তাবাদী নাগরিক পরিষদের মেয়র প্রার্থী আহসান হাবিব কামাল-আনারস ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহমুদুল হক খান মামুন-দোয়াত কলম। এছাড়া নগরীর ৩০ টি ওয়ার্ডেই বৃষ্টির মধ্যে গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন নিজ নিজ ওয়ার্ডের সাধারন ও সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর পদপ্রার্থীরা।

মাদকে সয়লাব

নির্বাচনকে সামনে রেখে মাদক ব্যবসায়ীরা নগরীতে ইতোমধ্যে বিপুল পরিমান মাদকদ্রব্য আমদানি করেছে। আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরাও মাদক ব্যবসায়ীদের দৌরাত্ম নিয়ন্ত্রনে আনতে বিশেষ অভিযান অব্যাহত রেখেছে। এরইমধ্যে নগরীর পলাশপুর এলাকার ৬নং গুচ্ছ গ্রামে র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা গত ৬ জুন সন্ধ্যায় অভিযান চালিয়ে ১ হাজার ২০ পিস ইয়াবাসহ দু’মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো- টগর ভূঁইয়া ও হৃদয় বেপারী। র‌্যাব-৮ এর এএসপি রুহুল আমিন জানান, নগরীর অন্যান্য চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে।

জাল টাকার ছড়াছড়ি

নির্বাচনের মাঠে কৌশলে একটি প্রতারক চক্র বিপুল পরিমান জাল টাকা ছড়িয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। নগরীর সদর রোডের ব্যবসায়ী আনিচুর রহমান জানান, তিনি গত দু’দিন ৫টি এক হাজার টাকার জাল নোট পেয়েছেন। একই ভাবে জানিয়েছেন চকবাজার, হাসপাতাল রোড ও গীর্জা মহল্লার একাধিক ব্যবসায়ীরা।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »