আর্কাইভ

সিটি নির্বাচন : বরিশালে কামাল সমর্থকদের হামলা ও ভাংচুর

হাসান মাহমুদ, বিশেষ প্রতিনিধি ॥  বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের (বিসিসি) নির্বাচনে বিএনপির সমর্থিত জাতীয়তাবাদী নাগরিক পরিষদের মেয়র পদপ্রার্থী আহসান হাবিব কামালের সমর্থকেরা হামলা চালিয়ে মেডিকেল কলেজ অডিটোরিয়ামের জানালার গ্লাস ও চেয়ার ভাংচুর করেছে। এ নিয়ে পুরো নগরীতে ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে নগরীর কোতয়ালী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি সাখাওয়াত হোসেন জানান, বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এসএ টিভির আয়োজনে রবিবার রাত আটটার দিকে তিন মেয়র পদপ্রার্থীদের নিয়ে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ অডিটোরিয়ামে ‘জনতার সামনে জন প্রতিনিধি’ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, তিন মেয়র পদপ্রার্থী যথাক্রমে-১৪ দল সমর্থিত সম্মিলিত নাগরিক কমিটির আলহাজ্ব শওকত হোসেন হিরন-টেলিভিশন, বিএনপির সমর্থিত জাতীয়তাবাদী নাগরিক পরিষদের আহসান হাবিব কামাল-আনারস ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহমুদুল হক খান মামুন-দোয়াত কলম ওই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। শাহরিয়ার বিপ্লবের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানটি সরসরি সম্প্রচার করে এসএ টিভি। অনুষ্ঠান শুরুর পরপরই উঠে আসে প্রার্থীদের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কার্যক্রম। একপর্যায়ে নগরীর খাল ভরাটের প্রসঙ্গ উঠে আসে আলোচনায়। আহসান হাবিব কামাল নগরীর বেশ কয়েকটি খাল ভরাটের জন্য সদ্যবিদায়ী মেয়র আলহাজ্ব শওকত হোসেন হিরনকে দায়ী করেন। হিরন এ অভিযোগ অস্বীকার করে উল্টো সাবেক মেয়র আনসান হাবিব কামালের সময়ে আটটি খাল ভরাট হয়েছে বলে মন্তব্য করেন। এসময় হিরন ও কামালের মধ্যে মৃদু বাকবিতন্ডা বাঁধলে বিজ্ঞাপন বিরতিতে যান সঞ্চালক। বিরতিতে যাওয়ার পরপরই উত্তেজিত হয়ে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন আহসান হাবিব কামাল। সূত্রমতে, জনতার মুখোমুখি অনুষ্ঠান থেকে উত্তেজিত হয়ে মেয়র প্রার্থী আহসান হাবিব কামাল বেরিয়ে যাওয়ার সময় তার অনুসারীরা মেডিকেল কলেজের অডিটোরিয়ামে হামলা চালিয়ে একাধিক জানালার গ্লাস ও চেয়ার ভাংচুর করে।

 

কামালের পক্ষে মিছিল

নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত বিধিনিষেধ অমান্য করে বরিশালে জাতীয়তাবাদী নাগরিক পরিষদের মেয়র পদপ্রার্থী আহসান হাবিব কামালের আনারস মার্কার সমর্থনে প্রায় প্রতিদিন তার সমর্থকেরা নগরীতে খন্ড খন্ড মিছিল করছে। মিছিল ও প্রচার প্রচারনার মাইকে জাতীয় ইস্যু, খালেদা জিয়া ও হেফাজত ইসলামীর বিভিন্ন দাবি তুলে ধরার পাশাপাশি আমার দেশ পত্রিকা, দিগন্ত টেলিভিশন, ইসলামীক টেলিভিশন বন্ধের ব্যাপারেও সরকারকে কটুক্তি করে আ’লীগের প্রার্থীকে ভোট না দিতে সাধারন ভোটারদের আহবান করা হচ্ছে। আনারস মার্কার পক্ষে আপত্তিকর প্রচার প্রচারনা ও মিছিল করার ব্যাপারে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নগরীর সাধারন ভোটার থেকে শুরু করে ১৪ দলের মেয়র প্রার্থীর সমর্থকেরা।

 

ইভিএম পদ্ধতির ডেমো ভোটে ব্যাপক সাড়া

বরিশাল সিটি নির্বাচনে এখানে এবারই প্রথমবারের মতো ব্যবহার করা হচ্ছে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহন। ফলে ভোটারদের সচেতনতা করার লক্ষ্যে ডেমো ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। রবিবার থেকে শুরু হওয়া এ প্রক্রিয়া চলবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত। বিসিসি নির্বাচনের রিটানিং অফিসার মোঃ মুজিবুর রহমান জানান, নগরীর ১৬নং ওয়ার্ডের ৪ হাজার ১৮১ জন ভোটার জিলা স্কুল ও সরকারি কমার্শিয়াল কলেজ কেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দেবেন। তাই ইভিএম সম্পর্কে ভোটারদের উদ্ভুদ্ধ করতে ডেমো ভোটের আয়োজন করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, অধিকাংশ ভোটাররাই ইভিএম পদ্ধতিতে ডেমো ভোট দিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। ডেমো ভোটের পাশাপাশি ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দেয়ার জন্য সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে মাইকিং ও লিফলেট বিতরণ করা হচ্ছে।

 

ব্যক্তি ইমেজে এগিয়ে যাচ্ছেন হিরন

নির্বাচনের দিন যতোই ঘনিয়ে আসছে, ততোই পাল্টে যেতে শুরু করেছে ভোটের হিসেব-নিকেশ। জোট-মহাজোট সমর্থিত দু’মেয়র পদপ্রার্থীর প্রচারণায় কেন্দ্রের হেভিওয়েটের নেতারা এখন নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। মহাজোট সমর্থিত সম্মিলিত নাগরিক পরিষদের মেয়র প্রার্থী আলহাজ্ব শওকত হোসেন হিরনের টেলিভিশন মার্কার পক্ষে গত শনিবার থেকে গণসংযোগ শুরু করেন বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে ও জাতীয় সংসদের সাবেক চীফ হুইফ আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ। তার সাথে প্রচারণায় নামেন আ’লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বাহাউদ্দিন নাসিম, স্বেচ্ছাসেবকলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক পংকজ দেবনাথ, ফরিদপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান, বরিশাল-১ আসনের সাংসদ এ্যাডভোকেট তালুকদার মোঃ ইউনুস, সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল জ্যাকব, নুর নবী শাওন-এমপি, বরগুনার এমপি গোলাম সবুর টুলু, অগ্রনী ব্যাংকের পরিচালক এ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, কেন্দ্রীয় আ’লীগের উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক খলিলুর রহমান, সহসম্পাদক জোবায়েদুল হক রাসেল, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মাহবুবুর রহমান হিরন, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি এএইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম। এরা সকলেই রাজনৈতিক আদলের পরিবর্তে ব্যক্তি শওকত হোসেন হিরনের ইমেজ ও উন্নয়ন কর্মকান্ডকে কাজে লাগিয়ে ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন। ভোটররাও দলীয় হিসেবে না দেখে হিরনের ব্যক্তি ইমেজকেই বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন।

 

বসন্তের কোকিল প্রার্থীদের বর্জনের আহবান

সম্মিলিত নাগরিক কমিটির মেয়র প্রার্থী শওকত হোসেন হিরন আজ সোমবার নগরীর বিভিন্নস্থানে গণসংযোগকালে ভোটারদের উদ্দেশ্যে বলেন, যারা বছরের পর বছর ক্ষমতা ভোগ করলেও নগরীর কোনো উন্নয়ন করেনি; তারা এখন বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে ঘোলা জলে মাছ শিকার করতে চাইছে। হিরন তার প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী আহসান হাবিব কামালকে ইঙ্গিত করে বলেন, ভোট এলেই নিজেকে প্রার্থী ঘোষণা করে জনগণের কাছে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করলেও ভোটের পর এসব প্রার্থীদের বরিশালবাসীর পার্শ্বে আর দেখা মেলেনা। তাই সময় এসেছে এসব বসন্তের কোকিল প্রার্থীদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে আগামী ১৫ জুন ব্যালটের মাধ্যমে তাদের প্রত্যাখ্যান করার। তিনি টেলিভিশন মার্কায় ভোট দিয়ে নগরীর উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য ভোটারদের প্রতি আহবান করেন। দিনভর গণসংযোগকালে তার সাথে উপস্থিত ছিলেন সম্মিলিত নাগরিক কমিটির সদস্য সচিব মাহাবুব উদ্দিন আহম্মেদ (বীর বিক্রম), অগ্রনী ব্যাংকের পরিচালক এ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি সাইদুর রহমান রিন্টু, কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা ও দ্রুতি পরিবহনের চেয়ারম্যান আলী খবির চাঁন প্রমুখ।

ভোলা সমিতির সমর্থন

সম্মিলিত নাগরিক কমিটির মেয়র প্রার্থী শওকত হোসেন হিরনকে সমর্থন দিয়েছেন বরিশালস্থ ভোলা জেলা কল্যাণ সমিতি। ভোলা জেলা কল্যাণ সমিতির সভাপতি কাওসার আহমেদ আজ সোমবার জানান, বরিশাল মহানগরীর উন্নয়নের মহানায়ক, সদ্যবিদায়ী মেয়র হিরনের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে বরিশালস্থ ভোলা জেলা কল্যান সমিতির সকল নেতৃবৃন্দের সর্বসম্মতিক্রমে হিরনকে সমর্থন দেয়া হয়েছে।

কামালের গণসংযোগ

১৮ দল সমর্থিত এবং জাতীয়তাবাদী নাগরিক পরিষদের মনোনীত মেয়র প্রার্থী আহসান হাবিব কামালের আনারস মার্কার সমর্থনে আজ সোমবার দিনভর নগরীর বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মজিবর রহমান সরোয়ার-এমপি ও দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক এবায়েদুল হক চাঁনসহ বিএনপির নেতৃবৃন্দরা।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »