আর্কাইভ

প্রেমের বলি যুবক ইমরান

সুঠমো দেহের অধিকারী ইমরান বয়াতী (১৮)। ভালবেসে প্রেমিকাকে নিয়ে পারি জমানোর অপরাধে অমানুষিক নির্যাতনের স্বীকার হয়ে প্রান দিতে হলো যুবক প্রেমিক ইমরানকে। হৃদয় বিদারক ও লোমহর্ষক ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বড়দুলালী গ্রামে।

নিহত যুবকের নানা আজিজ সরদার জানান, ওই গ্রামের শাহিন বয়াতীর পুত্র (তার নাতী) ইমরান প্রেমের টানে গত সোমবার পাশ্ববর্তী কমলাপুর গ্রামের প্রভাবশালী হাবুল ফকিরের কন্যা সোনিয়াকে নিয়ে অজানার উদ্দেশ্যে পারি দেয়। পরবর্তীতে হাবুল ও তার নিকট আত্মীয়দের অব্যাহত হুমকির মুখে অনেক খোঁজাখুজির পর গত বুধবার ঢাকা থেকে প্রেমিক যুগলকে উদ্ধার করা হয়। ওইদিনই সোনিয়াকে তার পরিবারের কাছে পৌঁছে ইমরানকে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। এ ঘটনায় ইমরানের বাবা-মা ও নিকট আত্মীয়দের সাথে কলহের সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ইমরানের মা অভিমান করে তার বাবার বাড়ি সুন্দরীতে চলে আসে। এ সময় ইমরানের দাদা মলি বয়াতী, ফুফা ফারুক মুন্সী ঘরের মধ্যে ইমরানকে আটক করে অমানুষিক নির্যাতন করে। নির্যাতনের এক পর্যায়ে ইমরান সংজ্ঞাহীন হয়ে পরলে নির্যাতনকারীরা তার (ইমরানের) মুখে বিষ ঢেলে এলাকায় আত্মহত্যার কথা রটিয়ে দিয়ে গাঁ ঢাকা দেয়। স্থানীয়রা মুমুর্ষ অবস্থায় ইমরানকে প্রথমে গৌরনদী ও তাৎক্ষনিক বরিশাল হাসপাতালে নেয়ার পথিমধ্যে সে (ইমরান) মারা যায়।

নির্মম নির্যাতনের প্রত্যক্ষদর্শী নিহত ইমরানের আট বছরের বোন সাদিয়া খানম কান্নাজড়িত কন্ঠে বলে, মুই দাদু ও ফুফার পায় জড়াইয়া ধইরা কান্নাকাটি কইরাও মোর ভাইরে বাচাঁইতে পারলাম না। এ ঘটনায় নিহত মা মাসুদা বেগম বাদি হয়ে গৌরনদী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পুলিশ বরিশাল মর্গে প্রেরন করেছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »