আর্কাইভ

প্রবীন শিক্ষককে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল

গ্রেফতারের প্রতিবাদে আজ শনিবার সকাল ১০ টায়  উপজেলা সদরের স্কুল , কলেজ , মাদ্রাসার  ছাত্র -–ছাত্রীরা তাদের প্রথম সাময়িক নির্ধারিত পরীক্ষা ফেলে রেখে  ও সাধারন জনতা উজিরপুর থানা ,ইউ এন ও অফিস ঘেরাও , বিক্ষোভ মিছিল ও ইউ এন ও প্রিয়সিন্ধু তালুকদারের অপসারনের দাবীতে প্রধান সড়ক অবরোধ করেছে।

স্থানীয়ও পুলিশ সুত্রে জানা যায় , উজিরপুরের কুমার বাড়ির বাজারে ডবি¬উ বি ইউনিয়ন ইনিস্টিটিউশনের সাবেক প্রধান শিক্ষক মাহবুবুর রহমান তালুকদার তার বসত ঘরের সামনে গত শুক্রবার সকালে টিন দিয়ে বেড়া দিতে গেলে এ সময় ভূমি খেকো আসিশ কুমার ওরফে (মনা দাস)  বাধা প্রদান করে সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে  বেড়া ভেঙ্গে ফেলে । পুন:রায় শিক্ষক তার ঘরের সামনে বেড়া দিতে গেলে মনা দাস তার লোকজন নিয়ে শিক্ষকের উপর হামলা চালায় । এসময় হামলা প্রতিহত করলে উভয়পক্ষের হাতাহাতিতে মনা দাস সামান্য আহত হলে শিক্ষক সহ ৭ জনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করে। শুক্রবার রাতে শিক্ষক থানা মসজিদে এশার নামাজ পড়তে গেলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসলে এলাকায় চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

শনিবার সকাল ১০ টায় ঐ শিক্ষকে কোট হাজতে চালান দেওয়ার খবর পেয়ে ডবিউ বি ইউনিয়ন ইনিস্টিটিউশন , প্রাথমিক বিদ্যালয় , উজিরপুর আলীম মাদ্রাসা, শেরে বাংলা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় , উজিরপুর আলহাজ্জ্ব বি এন খান ডিগ্রী কলেজের প্রায় ২ হাজার ছাত্র-ছাত্রীরা, শিক্ষক , ও তার প্রাত্তন ছাত্র- ছাত্রী , সাধারন জনতা মুক্তির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করে উজিরপুর থানা , ইউ এন ও অফিস ঘেরাও করে ইউ এন ও প্রিয় সিন্ধু তালুকদারের অপসারন দাবী করে। উত্তেজিত ছাত্র- ছাত্রীরা রাস্তায় শুয়ে পড়ে গাছ ফেলে যান চলাচল বন্ধ করে দেয় । বেলা ১০ টা থেকে ১১টা পর্যন্ত প্রায় এক ঘন্টা যান  চলাচল বন্ধ থাকে।  পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতে নিয়ন্ত্রনে আনে । এছাড়া মনা দাস ঐ বাজারের কোটি টাকার সরকারী সম্পত্তিতে অবৈধ ভাবে বিলাস বহুল বিল্ডিং নির্মান করেন।  বিভিন্ন সময় ওই শিক্ষক এর প্রতিবাদ করলে আগে থেকেই ক্ষিপ্ত হয়েছিল মনা দাস । এদিকে শিক্ষকের মুক্তি না হলে ছাত্র ছাত্রী অনির্দিষ্ট কালের জন্য হরতাল , অবরোধ এবং পরীক্ষা বর্জন সহ বিভিন্ন কর্মসূচী নেবেন বলে জানিয়েছেণ। ডবিউ বি ইউনিয়নের প্রধান শিক্ষক আঃ হালিম হাওলাদরে কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান তারা ছাত্র- ছাত্রীদেরকে শান্ত থাকার জন্য বললেও তারা তাদের বাধা উপেক্ষা করে শিক্ষকের মুক্তির দাবীতে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে পরিস্থিতি তাদের নিয়ন্ত্রনের বাইরে চলে যায়।

ইউ এন ও’র অপসারনের দাবীর ব্যাপারে ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে জানতে চাইলে তারা জনান ইউ এন ও হিন্দু বিধায় তিনি বিভিন্ন সময় সামান্য অজুহাতে হিন্দুদের পক্ষে অবস্থান নেন এবং মুসলমানদের হয়রানির শিকার করেন। যার কারনে আমরা তার অপসারন দাবী করছি।

আরও পড়ুন

Back to top button