আর্কাইভ

ঘুষের কাছে অসহায় সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিরা

মোশাররফ হোসেন লোন দেয়ার নামে ঘুষ বানিজ্যের ধান্ধায় দিশেহারা হয়ে পরেছেন। লোন প্রতি ১০হাজার টাকা ঘুষ দিলেই সরকারি কর্মচারি-কর্মকার্তাগন খ্বু সহজেই লোন পেয়ে যাচ্ছেন। যার ভাগ-ভাটোয়ার দিতে হয় সংশ্লিষ্টদেরকেও। তথ্যনুযায়ী, বিভিন্ন ব্যংকের ন্যায় ডেভলপমেন্ট ব্যাংক ও সরকারী কর্মকার্ত-কর্মচারিদের বিভিন্ন খাতে লোন দিয়ে আসছে অনেক পূর্ব থেকেই। কিন্তু এই ব্যাংকের কর্মকর্তা মোশররফের কাছে লোন চাইতে গেলেই তাকে ঘুষ দিতে হয় কমপক্ষে ১০হাজার টাকা।

গোপন একটি সূত্র জানিয়েছে. পুলিশের কনেষ্টবল এনামুল হক (বিএমপি) গত বছর ২লক্ষ টাকা লোন নিতে যায় ডেভলপমেন্ট ব্যাংকে। লোনের টাকার জন্য অনেক দিন ঘুরও প্রথমে লোনের টাকার কোন হদিস মেলেনি। পরে যখন পরিচিত একটি মাধ্যমে তিনি লোনের জন্য তদবির করেন তখন তাকে সর্ত জুরে দেয়া হয় ১০হাজার টাকা দিলে লোনের টাকা পাইয়ে দেয়ার ব্যাবস্থা করা হবে। পরে উপায় না পেয়ে পুলিশের লোক হয়েও তাকে নগদ ১০ হাজার টাকা গুনে দিয়ে তারপর তার লোনের ২লক্ষ টাকা নিতে হয়েছে। টাকা যত বেশী লোন তত তারাতারি এই পন্থায় বিশ্বাষি মোশাররফ। বর্তমানে মোশাররফের কাছে সরকারী-কর্মকর্তা কর্মচারিরা লোনের ক্ষেত্রে জিম্নি হয়ে রয়েছে।

এ বিষয়ে মোশাররফের সাথে আলাপ কালে তিনি জানান, ব্যাংকের কতিপয় লোক আমার সুনাম নষ্ট করার জন্য এমন ভাইরাস ছরাচ্ছে। এ নামের কাউকে লোন দেয়া হয়েছে কিনা আমি তাই জানিনা।

আরও পড়ুন

আরও দেখুন...
Close
Back to top button
Translate »