আর্কাইভ

তিন সন্তানের জনক কর্তৃক কিশোরী ধর্ষিত

তিন সন্তানের জনক কর্তৃক এক কিশোরী ধর্ষিত হয়েছে। ধর্ষনের ঘটনাটি ধামা চাঁপা দেয়ার জন্য প্রভাবশালী একটি মহল উঠে পরে লেগেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার সকালে ধর্ষিতার পরিবার মামলা দায়ের করতে থানায় রওয়ানা হলে পথিমধ্যে ওই প্রভাবশালী মহলের অব্যাহত হুমকির মুখে তারা থানায় আসতে পারেননি। ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাতে।

শনিবার সরেজমিনে গেলে ধর্ষিতা কিশোরী (১২)’র মা রোকেয়া বেগম জানান, তার একমাত্র কন্যাকে নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে টরকীরচর আবাসন প্রকল্পের ৩/৯ কক্ষে বসবাস করে আসছিলেন। ঘটনার দিন শুক্রবার বিকেলে পার্শ্ববর্তী কালকিনি উপজেলার রমজানপুর গ্রামে একটি বিয়ে বাড়িতে তিনি বাবুর্চির সহকারী হিসেবে কাজ করতে যান। ধর্ষিতা কিশোরী জানান, শুক্রবার রাতে সে নির্জন ঘরে একাকি ঘুমিয়ে ছিলো। গভীর রাতে একই আবাসন প্রকল্পের ৩/৭ নং কক্ষের বাসিন্দা ৩ সন্তানের জনক নছিমন চালক জলিল সরদার রুমের জানালা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে মুখে কাপর বেঁধে তাকে ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে কিশোরীর ডাকচিৎকারে আবাসন প্রকল্পের লোকজন এগিয়ে এসে ধর্ষককে আটক করে গনধোলাই দেয়। বিচারের আশ্বাস দিয়ে একটি প্রভাবশালী মহল ধর্ষককে ছাড়িয়ে নেয়। পরবর্তীতে বিচার না করায় ধর্ষিতার পরিবার শনিবার সকালে গৌরনদী থানায় মামলা দায়ের করতে রওয়ানা হন। পথিমধ্যে ওই প্রভাবশালী মহল ধর্ষিতা ও তার মা রোকেয়া বেগমেক নানাধরনের ভয়ভিতীসহ হুমকি প্রদর্শন করে।

প্রভাবশালীদের অব্যাহত হুমকির মুখে শনিবার দুপুরে ধর্ষিতাকে নিয়ে তার মা আবাসন প্রকল্প এলাকা থেকে অন্যত্র চলে যান।

এ ব্যাপারে গৌরনদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ নুরুল ইসলাম-পিপিএম’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় এখনো কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »