আর্কাইভ

অতঃপর বাকসুর ভিপি তুষার – জিএস নাহিদ

দক্ষিনাঞ্চলের শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপিঠ হিসেবে খ্যাত ব্রজমোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্র সংসদ (বাকসু)’র কমিটি গঠন করা হয়েছে। অস্থায়ী কর্মপরিষদে সিলেকশনের মাধ্যমে গঠিত কমিটি আজ সোমবার দুপুরে ঘোষনা করা হয়।

কলেজের অধ্যক্ষ ড.ননী গোপাল দাসকে বাকসুর সভাপতি নির্বাচিত করা হয়েছে। ভিপি(সহ-সভাপতি) কলেজ শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ন আহবায়ক মঈন তুষার, জিএস(সাধারন সম্পাদক) কলেজ শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ন আহবায়ক নাহিদ সেরনিয়াবাদ, এজিএস(সহ সাধারন সম্পাদক) সামচুদ্দোহা হাবীবকে নির্বাচিত করা হয়েছে।

এছাড়া সাহিত্য সম্পাদক পদে ছাত্রলীগের পঙ্কজ কুমার বিশ্বাস, সহ সাহিত্য সম্পাদক ছাত্র ইউনিয়নের শহিদুল ইসলাম শিশির, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক ছাত্রমৈত্রীর শামিল শাহরোখ তমাল, সহ নাট্য সম্পাদক কাজী মিলন, ছাত্র মিলনায়তন সম্পাদক জোবায়ের আলম,সহ ছাত্র মিলনায়তন সম্পাদক জাসদ ছাত্রলীগের পিযুস চন্দ্র, সহ ছাত্রী মিলনায়তন সম্পাদক সোনিয়া আক্তার, পরিবহন সম্পাদক নুরুল আম্বিয়া বাবু, সহ পরিবহন সম্পাদক মাহাদী হাসান বাবু সেরনিয়াবাদ, ক্রীড়া সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ মুন্না, সহ ম্যাগাজিন সম্পাদক আতিকুল্লা মুনীম, সমাজ সেবা সম্পাদক গোলাম মোস্তফা সেরনিয়াবাদ অনিক, সহ সমাজ সেবা সম্পাদক মোকলেচুর রহমান। সদস্যরা হলো মিজানুর রহমান সেরনিয়াবাদ, নুর আল আহাদ, সজল দাস, ছাত্র সমাজের হাবিবুর রহমান, শিরীন আক্তার, ছাত্রমৈত্রীর মুনতা বিনতে নুর। বাকী কয়েক পদ শূন্য রয়েছে। পরে পুরন করা হবে বলে জানিয়েছেন বাকসুর নব-নির্বাচিত এজিএস নাহিদ সেরনিয়াবাদ। এরমধ্যে ম্যাগাজিন সম্পাদক, ছাত্রী মিলনায়তন সম্পাদিকা’র পদ শূন্য রাখা হয়েছে।

বি এম কলেজের শিক্ষক পরিষদের সাধারন সম্পাদক এসএম কাইয়ুম উদ্দীন জানান, ১৯৮৯ সালে এমন একটি অস্থায়ী কর্ম পরিষদ গঠন করা হয়েছিল। তারই আলোকে বৈধ পন্থায় বাকসুর কমিটি গঠন করা হয়েছে। তিনি আরো জানান বিসিসি মেয়র শওকত হোসেন হিরনের অনুরোধে কমিটি গঠিত হয়েছে। এদিকে বাকসুর কমিটি গঠনে ক্ষুব্ধ সাবেক চীফ হুইফ আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ’র অনুসারীরা।

প্রসঙ্গত গত বছরের ৪ মে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে বরিশাল পলিটেকনিকে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পর মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে কেন্দ্র। এরপরে স্থগিত হয় বরিশাল মেডিকেল কলেজ এবং পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের কার্যক্রম। কাণ্ডারীবিহীন হয়ে পড়ে নগর ছাত্রলীগ। সংগঠনের চেইন অব কমান্ড কিংবা যোগ্য নেতৃত্ব ফিরিয়ে আনতে বরিশাল ছাত্রলীগের ত্যাগী বা মাঠের নেতা কর্মীরা বিদ্রোহ করে আসছে। অনেক আগ থেকেই মহানগরের ইউনিটগুলোর মধ্যে বরিশাল বিএম কলেজে ছাত্রলীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম জোড়ালোভাবে অব্যাহত রয়েছে। ছাত্রদের অধিকার আদায়েও কলেজ শাখা ছাত্রলীগ স্বোচ্ছার ভূমিকা পালন করছে। এক্ষেত্রে কলেজ শাখা ছাত্রলীগের মধ্যে যুগ্ন আহবায়ক মঈন তুষার ও নাহিদ সেরনিয়াবাদ সক্রিয় রয়েছে। সংগঠনের কর্মসূচী কিংবা কলেজের ন্যায় সঙ্গত প্রতিটি কর্মসূচীতে এই দুই ছাত্র নেতার অংশ গ্রহন বিদ্যমান। সাধারন শিক্ষার্থীদের দাবী দাওয়া পালনের ক্ষেত্রেও মঈন তুষার ও নাহিদ সেরনিয়াবাদ অগ্রগামী ভূমিকা পালন করছে। তুষার আর নাহিদের নেতৃত্বে বামপন্থী ছাত্রসংগঠনসহ সাধারন শিক্ষার্থীরা দীর্ঘ দিন ধরে বাকসুর নির্বাচনের দাবীতে বিক্ষোভ, মানববন্ধন, সড়ক অবরোধসহ লাগাতার কর্মসূচী পালন করে আসছিল।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »