আর্কাইভ

এক শিক্ষকের রোষানলে পড়ে পিয়নের চাকুরী বরখাস্ত

পড়ে পিয়ন নুরুল ইসলামের পরিবার এখন মানবেতর জীবন যাপন করছেন। দীর্ঘ ২৬ বছর কলেজে পিয়নের দ্বায়িত্ব পালন করে আসছিলেন তিনি। অশ্রুসিক্ত নয়নে নুরুল ইসলাম জানান কলেজের শিক্ষক ইলিয়াস ব্যাপারীর অনৈতিক কর্মকান্ড করতে না পারার কারনেই তাকে পিয়নের চাকুরী থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। তিনি জানান খোঁজ নিলেই পাওয়া যাবে এই শিক্ষকের বিরুদ্ধে নানাবিধ অন্যায় অনিমের অভিযোগ রয়েছে।

জানাযায়, বছর চারেক আগে মহিলা কলেজে ইংরেজী বিভাগের শিক্ষক হিসাবে যোগদান করেন ইলিয়াস ব্যাপারী। তিনি কলেজের হোস্টেল সুপারের দ্বায়িত্বেও রয়েছেন। কলেজের একটি সূত্র জানায়, একজন শিক্ষক হোস্টেল সুপারের দ্বায়িত্বে ২ বছর থাকতে পারে। কিন্তু ইলিয়াস হোস্টেল সুপার পদে দু বছর অতিক্রম করেছে আরো আগে। সূত্র জানায়, ৬ সদস্য নিয়ে নুরুল ইসলামের পরিবার। পিয়নের চাকুরী করে টানাহেচরার মাধ্যমে পরিবারের সদস্যদের ভরন পোষন করে আসছিলেন। বেশ কিছু দিন আগে নুরুল ইসলামকে শিক্ষক ইলিয়াস অবৈধ কাজে সহায়তা করতে বলেন। পিয়ন নুরুল ইসলাম নীতিতে অটল ছিলেন বিধায় সে কোনভাবেই অপকর্মের সঙ্গে সম্পূক্ত বা সহায়তা করবেন না বলে শিক্ষককে সাফ জানিয়ে দেয়। মুলত এরপরই থেকে চাকুরী থেকে তাকে বাদ দিতে নানা কুটচাল আটে শিক্ষক ইলিয়াস। এরইধারাবহিকতায় বৃহস্পতিবার নুরুল ইসলামকে শিক্ষক ইলিয়াস কলেজ থেকে বের করে দেন আর জোরালো কন্ঠে শিক্ষক বলেছেন তোমার চাকুরী বরখাস্ত করা হয়েছে। শিক্ষক ইলিয়াস ব্যাপারী বলেন নুরুল ইসলামের ব্যাবহার ভাল নয়। সে আমার সঙ্গেও র্দূব্যবহার করেছে। এজন্য হোস্টেল কমিটির সিদ্ধান্তনুযায়ী তাকে বাদ দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »