আর্কাইভ

এক প্রতিবন্ধীর পরিবারকে দেশ ত্যাগের হুমকি

সম্প্রদায়ের এক প্রতিবন্ধী ব্যক্তির সহয় সম্পত্তির মালিকানা দাবি করেছে। ওই সম্পত্তি থেকে অসহায় পরিবারটিকে উৎখাতের জন্য প্রভাবশালীরা বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতিসহ প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রভাবশালীদের অব্যাহত হুমকির মুখে অসহায় পরিবারটি এখন চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন। ঘটনাটি বরিশালের গৌরনদী উপজেলার প্রত্যন্ত পূর্ব চরসরিকল গ্রামের।

ওই গ্রামের মৃত হরিচরন তালুকাদারের পুত্র দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শখানাৎ তালুকদারের (৫২) অভিযোগে জানা গেছে, তার পিতার রেখে যাওয়া ২ একর ৯৬ শতক সম্পত্তির মধ্যে ১৯৭৮ সনে ১ একর ৪৫ শতক সম্পত্তি সরকার ভিপি করে নেয়। ওই বছরের ৯ জুন থেকে প্রতিবছরেই সরকারি ভাবে ডিসিআর কাটার মাধ্যমে পুরো সম্পত্তি শখানাৎ তালুকদার ভোগ দখল করে আসছেন। এরইমধ্যে শখানাতের পৈত্রিক সম্পত্তির ওপর লোলুপ দৃষ্টি পরে স্থানীয় প্রভাবশালী আবু তালেব সিকদারের। তিনি জাল দলিলের মাধ্যমে শখানাতের ৪৪ শতক সম্পত্তির মালিকানা দাবি করে। অভিযোগে আরো জানা গেছে, ইতিপূর্বে আবু তালেব ওই সম্পত্তি দখল করতে গেলে বাঁধা দেয়ায় শখানাতের স্ত্রী নুপুর রানীকে পিটিয়ে গুরুতর জখম করা হয়েছিলো।  

প্রতিবন্ধী শখানাতের স্ত্রী নুপুর রানী তালুকদার অভিযোগ করেন, আবু তালেবের অপর সহযোগী একই গ্রামের আনোয়ার হাওলাদার, ছিদ্দিক সিকদারসহ অন্যান্যরা অতিসম্প্রতি মোটা অংকের টাকা উৎকোচের বিনিময়ে উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিসের কতিপয় অসাধু কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে তার স্বামী (শখানাতের) নাম কর্তন করে তাদের নামে ভিপি সম্পত্তির ডিসিআর কেটে নিয়েছে। গত ২৬ জুলাই রাতে ওই জমির ১০ শতকে আনোয়ার ও ছিদ্দিকের লোকজনে ধান রোপন করেছে। পরেরদিন ভোরে বিষয়টি তার স্বামী শখানাত স্থানীয়দের কাছে বিচার দিলে ওইদিন রাতে আবু তালেব, আনোয়ার ও ছিদ্দিকসহ তাদের লোকজনে তাদের স্ব-পরিবারে দেশত্যাগের জন্য হুমকি প্রদর্শন করে। অন্যাথায় তাদের স্ব-পরিবারকে প্রাণনাশেরও হুমকি দেয়া হয়।

প্রভাবশালীদের অব্যাহত হুমকির মুখে প্রতিবন্ধী শখানাত তালুকদার তার স্ত্রী ও তিন কন্যাকে নিয়ে এখন চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন। এ ব্যাপারে তারা সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয় ও প্রসাশনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

অভিযোগ অস্বীকার করে আবু তালেব সিকদার, আনোয়ার হোসেন ও ছিদ্দিক সিকদার বলেন, বৈধ ভাবেই আমরা ওই সম্পত্তির মালিকানা দাবি করছি।

আরও পড়ুন

Back to top button