আর্কাইভ

গৌরনদীতে পৌর কাউন্সিলরের হাতে পান ব্যবসায়ী লাঞ্চিত

কাউন্সিলর ও যুবলীগ নেতা আহসান হোসেন খায়রুল খান এক পান ব্যবসায়ী নেতাকে মারধর করেছে। এর প্রতিবাদে পান ব্যবসায়ীরা জরুরি সভা করে অনিদৃষ্ট কালের জন্য পান ক্রয় করা বন্ধ করে দিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার রাতে বরিশালে গৌরনদী উপজেলার টরকী বন্দর ট্রাক স্টান্ডে। পান ব্যবসায়ীরা পান ক্রয় না করায় ঘোষনা দেয়ায় পান চাষীদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে।
টরকী বন্দর পান ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি হাকিম খান জানান, শনিবার রাত আটার দিকে তাদের ক্রয় কৃত পান বহনের জন্য টরকী বন্দর ট্রাক স্টান্ডে ট্রাক প্রবেশ করে। অসাবধানত বশত ট্রাকের সাথে বেধে ডিশ লাইন ছিড়ে যায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গৌরনদী পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর, যুবলীগ নেতা ও  ডিশ ব্যবসায়ী  আহসান হোসেন খায়রুল খান ও কাজী মিজান অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এ সময় ট্রাক ড্রাইভার ইলিয়াস হোসেনকে মারধর করে। ইলিয়াসকে রক্ষার জন্য টরকী বন্দর পান ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক লিটন মৃধা এগিয়ে আসলে তার ওপর হামলা চালায়। এ ঘটনার প্রতিবাদে গতকাল রোববার সকালে টরকী বাসস্টান্ডস্থ টরকী বন্দর পান ব্যবসায়ী সমিতির কার্যালয়ে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। আব্দুল হাকিম খানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, পান ব্যবসায়ী লাল চান সরদার , কাজী সরোয়ার , রুবেল খান , কালাম মৃধা , নূরু হাওলাদার , পরিমল পাল প্রমূখ। বক্তরা হামলা ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানান। এছাড়া সভায় এ হমলার ঘটনা বিচার না হওয়া প্রর্যন্ত ব্যবসায়ীরার অনিদৃষ্টকালের জন্য পান ক্রয় বন্ধ রাখায় সিন্ধান্ত হয়। হামলার কথা অস্বীকার করে গৌরনদী পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও যুবলীগ নেতা আহসান হোসেন খায়রুল খান বলেন, ডিশের তার ছেড়াকে কেন্দ্র করে ট্রাক ড্রাইভারের সাথে ভুল বোঝা বুঝি হয়েছিল। পরবর্তীতে তা মিমাংসা হয়ে গিয়েছে। অপর দিকে । পান ব্যবসায়ীরা পান ক্রয় না করায় ঘোষনা দেয়ায় পান চাষীদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে। উল্লেখ্য টরকী বন্দরে দক্ষিনাঞ্চলের পানের প্রধান মোকাম।

আরও পড়ুন

Back to top button