আর্কাইভ

খালেদা জিয়ার আগমন উপলক্ষে গৌরনদীতে বিএনপির যৌথ কর্মী সভায় দু’গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি

সভার শুরুতেই উপস্থাপক পূর্ব নির্ধারিত প্রধান অতিথি বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি বেগম সেলিমা রহমানের স্থলে কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা বিএনপির সভাপতি এডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার-এমপির নাম ঘোষনা করেন। এতে বিব্রতকর অবস্থায় পরেন সভায় আগত জেলা ও উপজেলার নেতৃবৃন্দ। একপর্যায়ে প্রধান অতিথি সেলিমা রহমানের নামের সম্মিলিত ব্যানারটি ছিরে ফেলে তার (সেলিমা রহমানের) সমর্থকরা।

প্রত্যক্ষদর্শী, পুলিশ ও দলীয় সূত্রে জানা গেছে, সভার পূর্ব মুহুর্তে সামনের সারির চেয়ারে বসাকে কেন্দ্র করে গৌরনদী উপজেলা বিএনপির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সোবাহানের সমর্থক সরকারি গৌরনদী কলেজ ছাত্রদলের সহসম্পাদক জসিম শরীফের সাথে উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক বদিউজ্জামান মিন্টুর সমর্থক ও পৌর ছাত্রদলের সহসম্পাদক সবুজ হাওলাদারের বাকবিতন্ডার হয়। এক পর্যায়ে উভয় গ্র“পের সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনায় তুমুল হট্টগোল বাঁধে। এ সময় বিএনপির দু’গ্র“পের মধ্যে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

বরিশাল সদর উত্তর জেলা বিএনপির সভাপতি মেজবা উদ্দিন ফরহাদ-এমপি’র কাছে নির্ধারিত প্রধান অতিথিকে না রাখা ও ব্যানার ছেরা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সভাপতি নির্ধারন নিয়ে স্থানীয় ভাবে বিরোধ থাকায় পূর্ব ঘোষিত প্রধান অতিথি বেগম সেলিমা রহমানকে সভাপতি করা হয়েছে। নেতৃবৃন্দর নির্দেশেই ব্যানার খোলা হয়েছে।
শেষে সেলিমা রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত যৌথ কর্মী সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন এডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার-এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন মেজবা উদ্দিন ফরহাদ-এমপি, নজরুল ইসলাম রাজন, আকন কুদ্দুসুর রহমান, নাছিমা সরোয়ার, ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সোবাহান, এস.এম মনিরুজ্জামান মনির, লোকমান হোসেন খান, পারভেজ আকন বিপ্লব।

আরও পড়ুন

Back to top button