আর্কাইভ

এবার দখলের তালিকায় বরিশাল বাস টার্মিনাল

উম্মে রুম্মান, বরিশাল ॥ কীর্তনখোলা নদীর পূর্বতীরবর্তী চরকাউয়া বাস টার্মিনালটি সোমবার দখল হয়ে গেছে। সন্ধ্যায় যুবলীগ নেতা আবুয়াল হোসেন  অরুনের নেতৃত্বে বরিশাল নগরী থেকে ক্যাডার বাহিনী গিয়ে ঐ টার্মিনাল দখল করে বলে সেখানকার মালিক সমিতির সভাপতি শাহাদাত হোসেন জানান। দখলের পর সেখানে নৌ-বন্দর থানা পুলিশের সহায়তায় নতুন বাস মালিক সমিতির কমিটি ঘোষনা করা হয়। তবে ঐ কমিটিতে যাদের নাম রয়েছে তাদের মধ্যে মাত্র ৩ জন বাস মালিক। বাকীরা সকলেই টেন্ডারবাজী সহ নানান পেশার সাথে যুক্ত বলে জানাগেছে। নতুন  কমিটির সভাপতি করা হয়েছে এ্যাড. একেএম জাহাঙ্গীরকে। তার বাড়ী মেহেন্দীগঞ্জে। তিনি কোন বাসের মালিক নয় বলে জানিয়েছেন চরকাউয়ার বাস মালিকরা। সেখানকার বাস মালিক সমিতির  সভাপতি শাহাদত হোসেন জানান-দীর্ঘ ২০ বছর ধরে তিনি চরকাউয়া বাস মালিক সমিতির সভাপতি। সর্বশেষ গত ২০০৮ সালে বাস মালিকদের ভোটে তিনি সভাপতি নির্বাচিত হন। কখনোই সেখানে রাজনীতির প্রভাব ছিল না। ৫২ টি বাস শান্তিপূর্ন ভাবে চলাচল করছিল। কিন্ত সোমবার আকস্মিক বরিশাল নগরী থেকে একের পর এক নৌ যানে উঠে ক্যাডার বাহিনী কীতর্নখোলা নদী পাড়ি দিয়ে সেখানে হাজির হয়। ঘটনার আকস্মিকতায় বাস মালিকরা  হতবাক হয়ে যান। কিছু বোঝার আগেই সেখানে নতুন কমিটি ঘোষনা করে বহিরাগত ক্যাডার বাহিনী। চরকাউয়া বাসী ও বাসমালিকরা বহিরাগতদের পাকড়াও করার প্রস্ততি নিলেও বন্দর থানা পুলিশ এসে বহিরাগত ক্যাডার বাহিনীর পক্ষে অবস্থান নেয়। বাস মালিক সমিতির নেতারা জানান-সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোন প্রতিবাদ বা প্রতিরোধ করলেই পুলিশ তাদের গ্রেফতার করবে এমন আশংকায় তারা চুপচাপ  প্রত্যক্ষ করেছেন। দখলের প্রতিবাদে গতকাল বরিশাল প্রেসক্লাবে বাস মালিক সমিতি সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করলে শেষ পর্যন্ত তা তারা করতে পারেনি। চরকাউয়ার বাস মালিকরা জানিয়েছে যারা দখল করেছে তারা সকলেই ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতির সাথে যুক্ত। ফলে কোথাও তারা কোন সুবিচার পাচ্ছেন না।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »