আর্কাইভ

সন্তানের পিতৃ পরিচয় চায় বুদ্ধি প্রতিবন্ধী রুনা

উজিরপুর প্রতিনিধিঃ বরিশালের উজিরপুর উপজেলার হস্তিশুন্ড গ্রামের জব্বার সরদারের বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কণ্যা রুবী (১৫) বর্তমানে ১ বছরের পুত্র সন্তান নিয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। সন্তানের পিতৃ পরিচয় এবং নিজের স্বামীর পরিচয়ের জন্য বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সরোজমিনে গিয়ে জানাযায় একই বাড়ীর আপন চাচাতো ভাই জলিল সরদারের বখাটে ছেলে ইমরান হোসেন (১৮) সুযোগ পেলেই চাচাতো বোন রুবী (১৫) কে জোরপূর্বক ধ্বর্ষন করতো। এক পর্যায় ৫ মাসের অন্তসত্তা হলে বিষয়টি এলাকায় জানাজানী হয়। এ নিয়ে এলাকায় বহুবার শালীশ বৈঠক হলে ইমরানকে দোষি সাব্যস্থ করে এবং ইমরান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে এবং বিবাহ করার জন্য সম্মতি দেন। কিন্তু পরক্ষনেই তাল বাহানা করে বিয়ে করবে না বলে জানালে রুবীবাদী হয়ে গত ০১/০৫/২০১০ তারিখে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন৯(ক) ধারায় ইমরান কে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। মামালা নং ৬৫৭/১০ মামলার সাক্ষী প্রমান ও তদন্ত রিপোর্টে আসামী দোষী সাব্যস্থ হয় এবং ০৮/১১/২০১০ তারিখ বরিশাল পুলিশ সুপার কার্যালয় থেকে আসামীর প্রতি গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি করা হলেও অদ্য পর্যন্ত রহস্যজনক কারনে আসামী কে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

আসামীর মা মাসুদা বেগম অত্যান্ত চালাক প্রকৃতির তাই ছেলেক ঢাকায় আত্মগোপন করে রেখেছে। এদিকে হাটি হাটি পা পা করে পিতৃ পরিচয়হীন সন্তান জিন্নাত হোসেন হৃদয় এক বছরের পর্দাপন করল। এই নির্যাতিত বুদ্ধি প্রতিবন্ধী রুমা ও তার সন্তানের দিকে তাকালে এবং কথা শুনলে যেকোন লোকের  চোখে অশ্রু আসে। এ ব্যাপারে স্থানীয় মেম্বার জাকারীয়া ও মজিবর সরদার সহ বহু লোকের কাছে জিজ্ঞাসা করলে জানান সন্তান এর চেহারা ইমরানের মতোই মনে হয়ে। তবুও কোর্টের সিদ্ধান্তই চুড়ান্ত বলে মনে করেন। অপর দিকে বাদী অত্যান্ত গরিব এবং দু- বেলা পেট ভরে খাবার খেতে পারেন না। কিন্তু কি করে কেস মামলা চালাবেন বলে ফ্যাল ফ্যাল করে কেদেঁ ফেলেন। রুবী বলেন “ মোরে জোর কইরা এ রহম হরছে, এ হন মোর পোলারে কেডা খাওয়াইবে, মুই কি খামু আপনারা কন” এ ভাবেই সে বিলাপ করে আবেগে কথাগুলো বলছে  উপস্থিত সাংবাদিক ও স্থানীয় লোকজনের কাছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »