আর্কাইভ

গৌরনদীর চাঞ্চল্যকর শিক্ষক হত্যাকান্ড – পরকীয়ার জের ধরেই কালু ঠান্ডা মাথায় খুন করে শিক্ষক ফরিদকে

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ এক সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে পরকীয়া প্রেমের জের ধরেই খুন হয়েছে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার পিঙ্গলাকাঠী মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক ফরিদ জমাদ্দার। খুনী কালু সরদার পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়ার পর বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে চাঞ্চল্যকর এ হত্যাকান্ডের মূলরহস্য। বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) খুনীকে আদালতে সোর্পদ করা হলে সে তার জবানবন্দিতে ম্যাজিষ্ট্রের কাছে খুনের কথা অকপটে স্বীকার করে। এ যেন এক ফুল তার তিন মালি। একজন বৈধ থাকেন প্রবাসে। বাকি দু’জন অবৈধ। দু’অবৈধ মালির বিরোধের জেরধরেই একজন খুন করে আরেকজনকে।   

গৌরনদী থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোঃ নুরুল ইসলাম-পিপিএম জানান, পুলিশের কাছে ১৬১ ও ম্যাজিষ্ট্রের কাছে ১৬৪ ধারার জবানবন্দিতে খুনী কালু একাই এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে বলে স্বীকার করেছে। পুলিশ ও স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, পিঙ্গলাকাঠী গ্রামের জনৈক সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে আবুল কালাম ওরফে কালু সরদার পরকীয়ায় জড়িয়ে পরে। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে প্রবাসীর পরিবারের চাপের মুখে তাদের সম্পর্কের ফাঁটল ধরে। প্রবাসীর শিশু পুত্র পিঙ্গলাকাঠী মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেনীতে পড়াশুনা করতো। শিশু পুত্রকে নিয়ে প্রবাসীর স্ত্রী স্কুলে যাতায়াতের সুবাধে তার সাথে মেধাবী শিক্ষক ফরিদ জমাদ্দারের পরিচয় হয়। একপর্যায়ে প্রবাসীর বাড়িতে শিক্ষক ফরিদ জমাদ্দার যাতায়াতের সুবাধে তাদের সাথে সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এতে কালুর সন্দেহ হয়। তাই সে শিক্ষক ফরিদ জমাদ্দারকে প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে কথা না বলা ও তার সাথে কোন সর্ম্পক না রাখার জন্য বিভিন্ন সময় হুমকি দিয়ে আসছিলো। তার হুমকিতে কোন কাজ না হওয়া শিক্ষক ফরিদ জমাদ্দারকে সে হত্যার পরিকল্পনা করে। তারই ধারাবাহিকতায় গত ২২ সেপ্টেম্বর শিক্ষক ফরিদ জমাদ্দার (২৮) স্কুলে যাওয়ার পথিমধ্যে পিঙ্গলাকাঠীর কর্মকার বাড়ির নির্জনস্থানে পৌঁছলে সন্ত্রাসী কালু সরদার ছুরিকাঘাত করে ফরিদকে হত্যা করে। হত্যাকান্ডের পর পরই খুনী কালু সরদার এলাকা থেকে আত্মগোপন করে।

 

এদিকে হত্যার ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য একটি বিশেষ রাজনৈতিক মহলের পরোক্ষ ইঙ্গিতে নিহতের ভাই স্কুল শিক্ষক শাহ জালাল জমাদ্দার বাদি হয়ে গৌরনদী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই মামলার প্রধান আসামি করা হয় উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ নয়ন শরীফ ও সরকারি গৌরনদী কলেজ ছাত্রলীগের সহসভাপতি মোঃ কাজল হাওলাদারসহ ৫জনকে। দীর্ঘ তদন্ত শেষে পুলিশ নিহত শিক্ষক ফরিদ জমাদ্দার ও প্রবাসীর স্ত্রীর ফোন কললিষ্টের সূত্র ধরে তাদের সম্পর্কের বিষয়টি নিশ্চিত হন। পরবর্তীতে হত্যার মূলরহস্য উদঘাটন করে আত্মগোপনে থাকা চাঞ্চল্যকর এ মামলার প্রকৃত খুনী কালুকে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল থানার গোদাবাজার এলাকা থেকে গত ২৬ অক্টোবর রাতে গ্রেফতার করা হয়।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »