আর্কাইভ

বাবুগঞ্জ থানা বিভক্তির কারনে ৩ ইউনিয়নবাসী বিপাকে

উম্মে রুমান, বরিশাল ॥ বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ থানার তিনটি ইউনিয়ন চাঁদপাশা, রহমতপুর ও মাধবপাশা ইউনিয়নসহ বাবুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সদর দপ্তর এলাকা জেলার নবগঠিত মেট্রোপলিটন এয়ারপোর্ট থানার অন্তর্ভূক্ত করায় এ ৩ ইউনিয়নবাসী পরেছে বিপাকে। এখানে বসবাসকারী লাখো মানুষের প্রাণের দাবী বাবুগঞ্জ থানার সীমানা পুর্বাবস্থায় বহাল রাখার দাবী এখনো অব্যাহত রয়েছে।

বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর ও পাকি¯তানের জাতীয় পরিষদের সাবেক স্পীকার বিচারপতি আঃ জব্বার খানের স্মৃতিবিজরীত পিতৃভূমি বাবুগঞ্জ ১৯১৫ সালে ৯০টি গ্রাম নিয়ে থানায় রুপান্তরিত হয়। বাবুগঞ্জে রয়েছে আগরপুর, কেদারপুর, দেহেরগতি, চাঁদপাশা, রহমতপুর ও মাধবপাশা সহ  ৬টি ইউনিয়ন। এই ৬ ইউনিয়নের মধ্যবর্তী স্থানে রহমতপুর ইউনিয়নে বাবুগঞ্জ থানা হেডকোয়াটারের অবস্থান। এই উপজেলায় রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকটি স্থাপনা যার মধ্যে রয়েছে বরিশাল বিমান বন্দর, বরিশাল ক্যাডেট কলেজ, ভেটেরিনারী কলেজ, বরিশাল কৃষি গবেষনা কেন্দ্র, রহমতপুর কৃষি ইনষ্টিটিউট, হর্টিকালচার সেন্টার ও বরিশাল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি- ২ এবং দক্ষিণ বাংলার তৎকালীন রাজা পরিবারের ঐতিহ্যবাহী দুর্গা সাগর দিঘি যাহা পর্যটন কেন্দ্র ঘোষিত হয়েছে। এছাড়াও বাবুগঞ্জে রয়েছে আরও অনেক সরকারি ও বেসরকারী গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান। বরিশাল জেলার সবচেয়ে কাছের উপজেলা বাবুগঞ্জ হলেও উন্নয়নের ক্ষেত্রে স্বাধীনতার পর থেকে ছিল অবহেলিত। কিন্তু এরই মধ্যে গত ২০১০সালের ২৫শে জানুয়ারি স্থান পূর্ণ বিন্যসের কেন্দ্রীয় এক সভায় বরিশাল মেট্রোপলিটন থানা গঠনের লক্ষ্যে তিনটি নতুন থানার ঘোষনা করা হয়। যার মধ্যে বরিশালের কাশিপুর ও বাবুগঞ্জের রহমতপুর চাঁদপাশা ও মাধবপাশা ইউনিয়ন নিয়ে বাবুগঞ্জ বিমানবন্দর থেকে ৭ কিঃ মিঃ দক্ষিণে গড়িয়ার পাড়ে বিমান বন্দর থানা করার ঘোষনা দিয়ে এরই মধ্যে একটি ভাড়া বাড়িতে বিমান বন্দর থানার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। তবে, এ ঘোষনার পর থেকেই বাবুগঞ্জের রহমতপুর, চাঁদপাশা ও মাধবপাশার  অধিবাসীরাসহ অপর তিনটি ইউনিয়ন দেহেরগতি, আগরপুর ও কেদারপুরের সর্বস্তরের নারীপুরুষ, ছাত্র, যুবকসহ সকলেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন। যার ধারাবাহিকতায় গত বছরের ৬ই ফেব্র“য়ারি থেকে বাবুগঞ্জের জনপথ গুলো থানা বিভক্ত না করার দাবীতে আন্দোলন সংগ্রামে উত্তাল হয়ে ওঠে। এর মধ্যে ঢাকা বরিশাল মহা সড়কের রহমতপুরে সড়ক অবরোধ, মানব বন্ধন, কাফনের কাপড় পরে প্রতিবাদ মিছিল, শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে ও কয়েক হাজার মোমবাতি থানা চত্তরের প্রধান ফটকে জ্বালিয়ে প্রতিবাদ জানানো হয়। গঠন করা হয়েছে বাবুগঞ্জ থানা রক্ষা কমিটি।

থানা রক্ষাকমিটির একাধিক সূত্রে জানা যায়, বাবুগঞ্জে দুই লক্ষাধিক জনসংখ্যার বসবাসের স্থান। উক্ত জনসংখ্যার প্রায় ৪৫ ভাগ মানুষ বাবুগঞ্জ থানা সীমানা কর্তন করলে নব গঠিত মেট্রোপলিটন এয়ারপোর্ট থানায় অন্তর্ভুক্ত করলে বাবুগঞ্জের বর্তমান থানার কোন অস্থিত্ব থাকবে না।এছাড়াও বর্তমানে এ ৩ ইউনিয়ন রহমতপুর, চাঁদপাশা ও মাধবপাশা সীমান্তবর্তী  এলাকার মানুষ থানার কার্যক্রম ও আইনী সহায়তা পেতে ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছে বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

আরও দেখুন...
Close
Back to top button
Translate »