আর্কাইভ

পুলিশের নির্দেশ উপেক্ষিত – গৌরনদীতে সরকারি ও মালিকানাধীন সম্পত্তি জবর দখল করে ভরাট করছে ছাত্রলীগ নেতা

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ বরিশালের গৌরনদীতে পুলিশের নির্দেশ উপেক্ষা করে উপজেলা হাসপাতালের (আশোকাঠী) সম্মুখের সরকারি ও মালিকানাধীন সম্পত্তিতে গত দু’দিন ধরে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু দিয়ে ভরাট কাজ অব্যাহত রেখেছে স্থানীয় প্রভাবশালী এক ছাত্রলীগ নেতা। এ ঘটনায় স্থানীয়দের চরম উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

আশোকাঠী গ্রামের ব্যবসায়ী মানিক সরদারের পুত্র আসাদুজ্জামান কাবুল অভিযোগ করেন, হাসপাতালের সম্মুখের পরিত্যক্ত সম্পত্তির (ডোবার) ১২ শতক সম্পত্তি তিনি ক্রয় সূত্রে মালিক হন। তার সম্পত্তিতে গত দু’দিন ধরে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে ভরাট কাজ শুরু করে উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি গোলাম রাসেল মিয়া। অবৈধভাবে জবর দখল করে বালু ভরাটের ব্যাপারে তিনি (কাবুল) থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে থানার এস.আই ফোরকান আহম্মেদ ঘটনাস্থলে গিয়ে গত মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) বালু ভরাটে বাঁধা দিয়ে কাজ বন্ধ করে দেন। দ্বিতীয় দফায় বুধবার সকালে থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আবুল কালাম নোটিশের মাধ্যমে ছাত্রলীগ নেতা রাসেল মিয়া ও আসাদুজ্জামান কাবুলকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে আগামি শুক্রবার থানায় হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন। কাবুলের অভিযোগে আরো জানা গেছে, নোটিশ পাওয়ার পরেও প্রভাবশালী ছাত্রলীগ নেতা রাসেল মিয়া ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে ড্রেজার দিয়ে বালু ভরাটের কাজ অব্যাহত রেখেছে। থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করা সত্বেও পুলিশ রহস্যজনক ভূমিকা পালন করছে।

স্থানীয় ব্যবসায়ী মোঃ মোশারফ হোসেন জানান, ডোবার মধ্যের প্রায় ৩০ শতক সম্পত্তির ১৬ শতক ক্রয় সূত্রে রেকর্ডিয় মালিক স্থানীয় আসাদুজ্জামান কাবুলসহ অন্যান্যরা। বাকি সম্পত্তি সড়ক ও জনপদের।

নোটিশ দেয়ার কথা স্বীকার করে গৌরনদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল কালাম বলেন, নোটিশ পাওয়ার পরেও ড্রেজার দিয়ে বালু ভরাটের কাজ করায় রাসেল মিয়া আইনকে অমান্য করেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অভিযোগ অস্বীকার করে উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি গোলাম রাসেল মিয়া বলেন, ডিগ্রি খরিদ মূল্যে এই সম্পত্তির মালিক আমি। তাই আমি আমার সম্পত্তিতে ভরাট করছি। এ ব্যাপারে বরিশাল সড়ক ও জনপদের উপ-সহকারী প্রকৌশলী শিশির কুমার বড়াল বলেন, রাসেল মিয়া ও তার লোকজনে অবৈধ ভাবে সওজের জমিতে মাটি ভরাট করছে। বিষয়টি বিভাগীয় ভাবে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »