আর্কাইভ

২৫ ফেব্রুয়ারী কলাপাড়ায় প্রধানমন্ত্রীর শুভাগমন

কলাপাড়া সংবাদদাতা ॥ আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারী প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র আগমন উপলক্ষে কলাপাড়া উপজেলার মৎস্য বন্দর মহিপুর প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকাল ৩ টার দিকে মহিপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে’র হল রুমে ইউনিয়ন আ’লীগ আহ্বায়ক আঃ ছালাম আকনের সভাপতিত্ত্বে ১৩ সদস্য বিশিষ্ট মহিপুর থানা বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বাস্তবায়ন কমিটি সূত্রে জানাগেছে, ১৯৭২ সালে ১০ জানুয়ারী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্ব-দেশ প্রত্যাবর্তন করেন। এরপর যুদ্ধবিধ্বস্ত স্বাধীন দেশের মানুষের সুখ-দুঃখ স্ব-চোখে দেখার জন্য করেন তিনি সমগ্র বাংলাদেশ ভ্রমন করেন। তারই ধারাবাহিকতায় ৭২ সালে ডিসেম্বর মাসে দক্ষিণাঞ্চলের কলাপাড়া উপজেলায় জনসভা করেন। ওই সভায় তালতলী, রাঙ্গাবালী ও মহিপুর প্রশাসনিক থানা দক্ষিণাঞ্চলের গণমানুষের প্রানের দাবীতে পরিনত হয়েছিল। এ অঞ্চলের মানুষের দাবীর প্রেক্ষিতে তালতলী,রাঙ্গাবালী ও মহিপুর থানা করা হবে তিনি ঘোষনা করেন। কিন্তু দূভার্গ্যবশতঃ ৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু স্ব-পরিবারে হত্যার ম্যাধ্যমে দেশে রাজনৈতিক পটপরিবর্তন হয়। ফলে জাতির জনকের স্বপ্নগুলোর মুখ থুবরে পরে। অনেক ত্যাগ-তিতিক্ষার পরে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা ৯৬ রাষ্ট্র ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয় এবং তার পিতার স্বপ্নকে বাস্তবায়ন শুরু করেন। পর্যায়ক্রমে তালতলী ও রাঙ্গাবালী প্রশাসনিক থানায় রূপান্তরিত হলেও কলাপাড়া উপজেলা মৎস্য বন্দর মহিপুর আজও রয়ে গেছে অন্ধকারে ।

মহিপুর মৎস্য বন্দর থেকে সরকার প্রতি বছর কোটি কোটি রাজস্ব পেলেও গত ৩৯ বছর পাড় হালেও তা এখনও বাস্তবায়ন হয়নি। ফলে মহিপুর বাসীর প্রাণের দাবী থানার কার্যক্রম।

এ লক্ষ্যে শুক্রবার বিকাল ৩ টার দিকে মহিপুর পুলিশ তদন্ত্র কেন্দ্রের হল রুমে জরুরী এক সভায় আঃ ছালাম আকন সভাপতি ও কালিম মোহম্মদ কে সাধারন সম্পাদক করে ১৩ সদস্যের বিশিষ্ট মহিপুর থানা বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করা হয়েছে।
এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সদস্য সচিব ও ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম হাওলাদার, ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যার মোঃ খলিলুর রহমান, মৎস্য আড়ৎদার সমিতির সাবেক সাধারন সম্পাদক নিমাই চন্দ্র দাশ, মৎস্য আড়ৎদার সমিতির সাধারন সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, সুলতান হাওলাদার, ডাঃ রুহুল আমিন দুলাল, হাজী শাহজাহান মোল¬া, আব্দুস ছত্তার হাওলাদার প্রমুখ।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »