আর্কাইভ

ভর্তি কেলেংকারী – বরিশাল জেলা প্রশাসকসহ চারজনকে উকিল নোটিশ

নিজস্ব সংবাদদাতা, গৌরনদী, ৩০ এপ্রিল ॥ বরিশাল জিলা স্কুলে চলতি বছর তৃতীয় শ্রেণীতে ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল কেলেংকারীর ঘটনায় ভর্তি বঞ্চিত শিক্ষার্থীদের উত্তরপত্র পূনঃমূল্যায়নের সুযোগ না দেওয়ায় ক্ষুদ্ধ অভিভাবকেরা জেলা প্রশাসকসহ ভর্তি পরীক্ষার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে গতকাল সোমবার উকিল নোটিশ পাঠিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত ভর্তি পরীক্ষার পূনঃপ্রকাশিত ফলে বাদপড়া ৩৫ শিক্ষার্থীর উত্তরপত্র মূল্যায়নের আশ্বাস দিয়েছিলেন ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক এস.এম আরিফুর রহমান। এজন্য ১০০ টাকা ফি দিয়ে অভিভাবকদের আবেদন করতে বলা হয়েছিলো। অভিভাবক এ্যাডভোকেট শেখ হুমায়ুন কবীর মাসউদ জানান, তিনিসহ প্রায় সকল অভিভাবকেরা ১০০ টাকা জমা দিয়ে তাদের সন্তানদের উত্তরপত্র পূনঃমূল্যায়নের আবেদন করেছিলেন। কিন্তু ফলাফল কেলেংকারীর পর অভিভাবকদের দায়ের করা মামলার অজুহাত দেখিয়ে জেলা প্রশাসক উত্তরপত্র পুনঃমূল্যায়নের সুযোগ দেয়নি। নোটিশদাতা এ্যাডভোকেট সৈয়দ ওবায়েদুল্লাহ সাজু জানান, তথ্য অধিকার আইন অনুযায়ী তথ্য জানার অধিকার প্রত্যেক নাগরিকের রয়েছে। জেলা প্রশাসক উত্তরপত্র পূনঃমুল্যায়নের সুযোগ না দিয়ে তথ্য আইন লংঘন করছেন। আগামি ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে প্রেরিত নোটিশের সন্তোষ জনক জবাব না দিলে জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে তথ্য আইন লংঘনের মামলা করা হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

জেলা প্রশাসক ছাড়াও ভর্তি সংক্রান্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও উন্নয়ন), জিলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক, সরকারী বালিকা বিদ্যালয়য়ের প্রধান শিক্ষককেও উকিল নোটিশ দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, জিলা স্কুলের তৃতীয় শ্রেণীর ভর্তি পরীক্ষা গত ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হওয়ার পর ২৭ ডিসেম্বর ফলাফল প্রকাশ করা হয়। কিন্তু ফলাফলের সীট তৈরীতে কম্পিউটার অপারেটরের ভুলের অজুহাত দেখিয়ে প্রকাশিত ফলাফল বাতিল করে ২ জানুয়ারি পূনঃপ্রকাশ করা হয়। এতে প্রথমবারের ঘোষনাকৃত ৩৫ জন উত্তীর্ন শিক্ষার্থীর ফলাফল বাতিল করা হয়।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

আরও দেখুন...
Close
Back to top button
Translate »