আর্কাইভ

বিশিষ্ট সংগঠক ও সাংবাদিক মতিউর রহমান লিটুর বিরুদ্ধে অশালীন প্রচারনা

পিবিসি২৪ ॥ ভুয়া ইমেইল ব্যবহার করে নিউইয়র্ক প্রবাসী বিশিষ্ট সঙ্গঠক ও সাংবাদিক মতিউর রাহমান লিটুর বিরুদ্ধে বানোয়াট কাহিনী বানিয়ে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম সহ কমিউনিটির গুরুত্বপুর্ন ব্যক্তিদের কাছে পাঠানো হয়েছে। এমনকি ইমেইল সেন্ডারের নাম হিসাবেও ” লিটু” ব্যবহার করা হয়েছে।

ভিত্তিহীন কল্পকাহিনীর মাধ্যমে পিবিসি২৪ এর প্রধান সম্পাদক মতিউর রাহমান লিটুকে পটুয়াখালীর একজন শীর্ষ সন্ত্রাসী হিসাবে চিহ্নিত করার অপচেষ্টা করা হয়েছে। ব্যক্তি বিশেষের এহেন ন্যাক্কারজনক ঘটনায় কমিউনিটির ব্যক্তিবর্গ অত্যন্ত বিস্মিত হয়েছেন। বিভিন্ন মহল থেকে এর তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়। প্রবাসীবার্তা পরিবারের পক্ষ থেকে এহেনও মিথ্যা প্রচারনার তীব্র নিন্দা জানানো হয়।

মিথ্যা সংবাদটিতে বলা হয়েছে জনাব মতিউর রহমান লিটু একজন শীর্ষ সন্ত্রাসী, পটুয়াখালী সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্রনেতা থাকাকালীন সময়ে বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত ছিলেন, ৯০ দশকের মাঝামাঝি জেল জরিমানার ভয়ে পটুয়াখালী থেকে পালিয়ে প্রথমে ব্রুনাই এবং পরে ইংল্যান্ডে অবস্থান করেন। আমেরিকায় এসেও আত্মগোপনে ছিলেন অনেকদিন কিন্তু বর্তমানে তিনি আওয়ামীলীগ সরকারের কর্মকান্ডের মিথ্যা প্রচারনায় অনলাইন পত্রিকার মাধ্যমে একজন তথ্য সন্ত্রাসীরুপে আবির্ভুত হয়েছেন। এলাকার প্রভাবশালী পরিবারের সদস্য হওয়ায় সাধারন মানুষ তাঁর সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের কোন প্রতিবাদ করতে পারেনি কোনদিন। তাই এখন সময় এসেছে সবাই মিলে এই তথ্য সন্ত্রাসীকে প্রতিহত করতে হবে। অদ্ভুত এক কাহিনী!

আসলে জনাব মতিউর রহামান লিটু ৯০ দশকের মাঝামাঝি থেকে প্রবাসে রয়েছেন, প্রথমে ব্রুনাই লিকুইফাইড ন্যাচারাল গ্যাস কম্পানীর- আসমিন এন্টারপ্রাইজের এসিস্টান্ট সুপারভাইজার হিসেবে কাজ করেছেন চার বছর। পরবর্তীতে ইংল্যান্ডের এলসমেয়ারপোর্টে একটি গাড়ি রফতানি কম্পানিতে চাকুরী করেন প্রায় দুই বছর। ২০০০ সনের প্রথম দিকে আমেরিকা আসেন এবং লিগ্যাল আইনের মাধ্যমেই আমেরিকার নাগরিকত্ব গ্রহন করেন। প্রবাস জীবনে জনাব মতিউর রহমান লিটু একজন পরোপকারী সমাজকর্মী হিসাবে পরিচিত।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »