আর্কাইভ

উজিরপুরে ২৩টি সরকারি দপ্তরের ৭৬টি পদ শূণ্য

খোকন আহম্মেদ হীরা, উজিরপুর থেকে ফিরে ॥ বরিশালের উজিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ ২৩ সরকারি দপ্তরের প্রধান প্রধান কর্মকর্তা ও অন্যান্য কর্মচারীর ৭৬টি পদ দীর্ঘদিন ধরে শূণ্য রয়েছে। অতিরিক্ত দায়িত্বে গৌরনদীসহ বিভিন্ন উপজেলার কর্মকর্তাদের নাম সর্বস্ব সাইন বোর্ড ঝুলানো থাকলেও ওইসব কর্মকর্তাদের অনুপস্থিতির কারনে দপ্তরগুলো রয়েছে তালাবদ্ধ। ফলে প্রতিনিয়ত উপজেলাবাসীকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এ ব্যাপারে উপজেলাবাসী সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সংশ্লিষ্ট অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা দেবী চন্দ যোগদানের মাত্র ৫ মাসের মধ্যে গত ৩ মার্চ অন্যত্র বদলী হয়ে যান। তারস্থলে ফুল প্রদীপ চাকমাকে উজিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে বদলীর আদেশ দেয়া হলেও তিনি এখানে যোগদান না করেই অন্যত্র বদলী হয়ে গেছেন। গত ১৪ মে বিভাগীয় কমিশনার আবু হেনা মোঃ রাহমাতুন মুনিম স্বাক্ষরিত এক বদলীর আদেশে বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সোহরাব হোসেনকে পুনরায় উজিরপুরে যোগদানের নির্দেশ দেয়া হয়। তিনি অদ্যবর্ধি এখানে যোগদান না করায় জনমনে হতাশার সৃষ্টি হয়েছে। এ উপজেলায় বর্তমানে অতিরিক্ত দায়িত্বে রয়েছেন গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন। ওই অফিসের অফিস সহকারী, এমএলএস সহ ৫টি পদ শূণ্য রয়েছে। এ উপজেলায় চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্য বিভাগের ৩৯ টি পদ দীর্ঘদিন ধরে শূণ্য রয়েছে। উপজেলা হাসপাতালসহ ৯টি সাব সেন্টারে মোট ২০ জন মেডিকেল অফিসারের পদ থাকলেও কর্মরত রয়েছেন মাত্র ৮ জন। এছাড়া সাব সেন্টারে ৯ জনের পরিবর্তে কর্মরত রয়েছেন উপজেলার আটিপাড়া সাব সেন্টারে মাত্র একজন। সর্বমোট ১২ জন ডাক্তারের পদ সহ ৩৯টি পদ শূণ্য থাকায় জনগন স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। ভূমি অফিসে সহকারী কমিশনার ভূমি ও কানুনগোসহ ৫টি পদ শূণ্য থাকায় এলাকার জনসাধারন চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। উজিরপুর উপজেলা প্রকৌশলী পদটি শূণ্য থাকায় সহকারী প্রকৌশলী ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব পালন করেন। ওই অফিসে বর্তমানে ৩টি পদ শূণ্য রয়েছে। প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তাসহ ৩টি পদ দীর্ঘদিন ধরে শূণ্য থাকায় এ অফিসের আবাসিকসহ ৫টি ভবন এখন পরিত্যক্ত হয়ে মাটির সাথে নিমজ্জিত হওয়ার উপক্রম হয়ে দাঁড়িয়েছে। খাদ্য নিয়ন্ত্রন অফিসে উপ-খাদ্য নিয়ন্ত্রকসহ ২টি পদ শূণ্য রয়েছে। এখানে অতিরিক্ত দায়িত্বে আছেন জনৈক মশিউর রহমান। স্থানীয়রা জানান, ওই অফিস কক্ষের সামনে সাইনবোর্ড ঝুলানো থাকলেও তাকে (মশিউর রহমানকে) কখনো অফিসে পাওয়া যায়নি। অফিস চলছে খাদ্য পরিদর্শক দিয়ে। প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে অফিস সহকারীসহ ৩টি পদ শূণ্য রয়েছে। মৎস্য কর্মকর্তা ও সহকারী মৎস্য কর্মকর্তাসহ ২টি পদ দীর্ঘদিন ধরে শূণ্য থাকায় বিল বাওর বলেখ্যাত উপজেলার মৎসজীবি ও ঘের মালিকদের চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। এখানে অতিরিক্ত দায়িত্বে গৌরনদী উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা প্রনব কুমারের নামের সাইন বোর্ড ঝুলানো থাকলেও অফিস কক্ষটি রয়েছে তালাবদ্ধ। মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে সহকারী শিক্ষা অফিসারের পদটি দীর্ঘদিন শূণ্য থাকায় শিক্ষক সমাজে কার্যক্রম ব্যহৃত হচ্ছে। সমাজ সেবা অফিসে ২টি পদ শূণ্য রয়েছে, একজন রয়েছেন ডেপুটেশনে। জাতীয় মহিলা সংস্থা ও সমবায় অফিসেও জনবল সংকট রয়েছে। বণ বিভাগ স্বতন্ত্র বিভাগ হলেও মাত্র ৩জন দিয়েই এখানে কার্যক্রম চলছে। সর্ব জনবলহীন একাডেমীক সুপারভাইজার নিজেই ১টি পদ নিয়ে পুরো অফিস চালাচ্ছেন। সাব-রেজিষ্ট্রার পদটি দীর্ঘদিন থেকে শূণ্য থাকায় এখানকার ভূমি মালিকরা রেজিষ্ট্রি কার্যক্রমে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। কৃষি অফিসের ২টি ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ে ৩টি পদ শূণ্য রয়েছে। উপজেলা পরিসংখ্যান অফিসে পরিসংখ্যান কর্মকর্তার পদটি গত একযুগ ধরে শূণ্য থাকায় পরিসংখ্যান কার্যক্রম চলছে মন্থরগতিতে। ওই অফিসে ২টি পদ শূণ্য রয়েছে।  জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলীর কার্যালয়ে সারিসারি কর্মকর্তার সাইনবোর্ড ঝুলানো থাকলেও সহকারী প্রকৌশলী সেলিম আহম্মেদ ৪টি উপজেলার দায়িত্বে ও উজিরপুরে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন। উপ-সহকারী প্রকৌশলী মাঈনউদ্দিন ডেপুটেশনে বরিশালে কর্মরত থাকলেও বেতন নিচ্ছেন উজিরপুর থেকে। ওই অফিসে মোট ৪টি পদ শূণ্য রয়েছে। নির্বাচন অফিস সার্ভার ষ্টেশন অত্যন্ত গুরুতপূর্ন দপ্তর হলেও একজন কর্মকর্তা দিয়েই অফিস চলছে। মাত্র ২টি পদের ১টি শূণ্য। ওই অফিসে নেই কোন ঝাড়–দার কিংবা এমএলএসএস। আনসার ভিডিপি অফিসে রয়েছে একটি পদ শূণ্য।

উজিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বাদল তীব্র জনবল সংকটের কথা স্বীকার করে বলেন, উজিরপুর উপজেলায় অতিরিক্ত শূণ্য ও ভারপ্রাপ্ত পদগুলোর কারনে দীর্ঘদিন থেকে উপজেলাবাসীকে চরম দুর্ভোগ ও ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। এ ব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্য সহ সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করেও কোন সুফল পাওয়া যায়নি। তিনি জরুরি ভিত্তিতে শূণ্য পদগুলো পূর্ণ করে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের পথকে আরো সুগম করার জন্য সংশ্লিষ্ট স্ব-স্ব মন্ত্রনালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »