আর্কাইভ

ব্রেকিং নিউজ! ভারতে পাকিস্তানী গোয়েন্দা গ্রেফতার-ওয়াচডগ

বেতমীজ পায়রাকে সর্দারজি কি করিয়া বশ করিলেন উহার বিবরণে যাইবার আগে আরও একটা গল্প মনে হইয়্যা গেল। বেশী লুজ ফিল করিলে গিট্টুটাকে ফের চেক করিয়া নেন। মনে শান্তি পাইবেন। যাহাই হৌক, গল্পটা এই রকমঃ সর্দারজি সাইকেল চোরকে বামাল গ্রেফতার করিলেন। এর আগেও একটা সাইকেল চুরি গিয়াছে, তাই এই যাত্রায় চোরকে পুলিশের হাতে তুলিয়া দিবার বাসনা করিলেন। যেই কথা সেই কাজ, সাইকেল সহ চোরকে ভাল করিয়া বান্ধিয়া সর্দারজি রওয়ানা হইয়্যা গেলেন গঞ্জের দিকে। তো থানায় আসিয়া সর্দারজি কথা বলিলেন পুলিশের সহিত। ঘটনার বিস্তারিত জানাইলেন এবং যথাযোগ্য বিচার চাহিলেন। পুলিশ মনোযোগের সহিত অভিযোগ শুনিল এবং লিপিবদ্ধ করিল। সবশেষে নন-সর্দারজি পুলিশ জানিতে চাহিল, ’সবকুচ তো মালুম হোয়্যা, লেকিন শালে চোর কিধার হ্যায়?’ ‘হাজুর, ও আব ঘাবরাইয়ে মত, শালে কো আচ্ছা সে সাইকেল কো সাথ আটকা দিয়া‘। ’তো, আব উসকো হাত ভি আটকা দিয়্যা?’। ’ কেউ? উসকা কোই জরুরাত নেহি থা’। তরজমা করিলে এই দাঁড়াইবে, সর্দারজি চোরকে ভাল করিয়া দুই পা বাধিয়া সাইকেলের সহিত আটকাইয়্যা লম্বা পথ পাড়ি দিয়া থানায় আসিয়াছে অভিযোগ করিতে। ’আপকা দেমাক মে এ ভি নেহি আয়্যা কেউ কি শালে চোর হাত সে গিট্টু খোল কর সাইকেল লে কর নিকাল যায়ে গা?‘ সর্দারজি বিচলিত না হইয়্যা দৃঢ়তার সহিত উত্তর করিল, ’ইসি গম হামরি দেমাক পে নেহি আয়া, ও শালা ভি সর্দারজি, কেউ উসকা দেমাক পে আয়েগা? অভিযোগ লিপিবদ্ধ শেষ হইলে দারোগ সহ সর্দারজি রওয়ান হইয়্যা গেল চোরের দিকে। বেশ কিছুটা দূর হইতেই দেখা দিল দৃশ্যটা; চোর সর্দারজির দুই পা বান্ধা এবং তিনি মনের আনন্দে এক হাত মাথায় ও অন্য হাতে বিড়ি ফুকাইতেছেন।

ফিরিয়া যাই সমকালীন ঘটনায়। আমাদের সর্দারজি রাজধানী অমৃতসর হইতে ৪০ কিলোমিটার দূরের একটা থানায় আসিলেন ধৃত পায়রা সহ। পুলিশ দেখিল পায়ারার পায়ে তামার তৈরী রিং, সাথে একখান পত্র এবং বুকে লাল সীল। পুলিশ অফিসার রামাদাস জগজিৎ সিং চাহাল আবিষ্কার করিলেন, এই পায়রা প্রেমিকের পত্র বহনকারী যেন তেন পায়রা না, রীতিমত গোয়েন্দা পায়রা। শত্রু দেশ পাকিস্তান হইতে পাঠানো হইয়াছে ’স্পেশাল মিশনে’। হইতে পারে স্পেশাল এজেন্ট মাসুদ রানার চর। ঘটনার বিস্তারিত এখনো আবিষ্কার হয়নি। তবে পায়রাটাকে ডাক্তারী পরীক্ষা শেষে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষে সশন্ত্র পাহারায় রাখা হইয়াছে। পাঞ্জাব সরকার তাহার রাজ্যে প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান সীমান্তে নজরদারি জোরদার করিতে বাধ্য হইয়াছে। গোয়েন্দা পায়রা লইয়্যা দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধ বাধিয়া গেলে আমাদের দেশেও চাইল, ডাইল, ফেন্সি ডাইল, তেল, লবন, আদা, কন্ডম সহ নিত্য ব্যবহার্য জিনিসপত্রের মূল্য বাড়িয়া যাইতে পারে। ব্লগারদের অনুরোধ করিব যথা সময়ে প্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী গোয়াইন স্টক করিতে। যেই হারে ঢাকার দালান কোঠা হেলিয়া পরিতেছে কোন সময় পুরা দেশ ভারতের দিকে হেলিয়া পরে, উহা কেবল স্বয়ং মাবুদই বলিতে পারিবেন। ঐ দেশে যাওয়াই মানে যুদ্ধে জড়াইয়্যা যাওয়া।

ছহি-ছেলামতে বাঁচিয়া থাকিবেন, দোয়া করিতেছি।
(পরিবর্ধিত)।
http://priyo.com/offbeat/2010/may/29/41288.html


WatchDog – AmiBangladeshi

www.WatchDog.AmarBlog.Com

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »