আর্কাইভ

বরিশালে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে ছাত্রলীগের হামলা – আহত-৩০

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসুচী অনুযায়ী রবিবার বিকেলে বরিশালের গৌরনদী উপজেলা, পৌর বিএনপি ও তার সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে দলীয় কার্যালয় থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের ওপর উঠলে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা লাঠিসোটা নিয়ে অতর্কিতভাবে হামলা চালায়। এ সময় হামলাকারীরা পুলিশের উপস্থিতিতে ব্যানার ছিনিয়ে নিয়ে অগ্নিসংযোগ করে। হামলাকারীরা বিএনপির কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে চেয়ার, টেবিলসহ ছয়টি মটরসাইকেল ভাংচুর করে। হামলায় কেন্দ্রীয়  বিএনপির নেতাসহ কমপক্ষে ৩০ জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছে।

এভাবেই পুলিশের উপস্থিতিতে গৌরনদী বিএনপি কার্যালয় ভাংচুর ও বিএনপি নেতাকর্মীদের উপর হামলা করে ছাত্রলীগের। উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ মাহাবুব আলম ও সরকারি গৌরনদী কলেজ ছাত্রলীগের সহসভাপতি লুৎফর রহমান দিপ (গোল চিহ্ন) ভাংচুর ও হামলায় নেতৃত্ব দেন।প্রত্যক্ষদর্শী, আহত, দলীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে রবিবার বিকেল পাঁচটর দিকে উপজেলা বিএনপির উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও গৌরনদী উপজেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সোবাহানের নেতৃত্বে প্রায় ৫ শতাধিক নেতা-কর্মীরা দলীয় কার্যালয় থেকে মিছিল নিয়ে ঢাকা- বরিশাল মহাসড়কের গৌরনদী বাসষ্ট্যান্ড জামে মসজিদের কাছে পৌঁছে।

ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সোবাহান অভিযোগ করেন, ছাত্রলীগের শতাধিক নেতা-কর্মীরা লাঠিসোটা নিয়ে মিছিলের ওপর অতর্কিত ভাবে হামলা চালিয়ে বিক্ষোভ মিছিলের ব্যানার ছিনিয়ে নিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময় আত্মরক্ষার্থে নেতা-কর্মীরা বিএনপির কার্যালয় ও আশপাশের বাড়িতে আশ্রয় নেয়। এ সময় হামলাকারীরা পুলিশের উপস্থিতিতে বিএনপির কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে চেয়ার টেবিল ও অফিসের সম্মুখে নেতা-কর্মীদের রাখা ছয়টি মটরসাইকেল ব্যাপক ভাংচুর করে। বিএনপি অফিসে আশ্রয় নেয়া শতাধিক নেতা-কর্মীদের অবরুদ্ধ করে হামলাকারীরা রড, লাঠিসোটা দিয়ে বেধরক পিটিয়ে ও ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে গুরুতর আহত করে। পরবর্তীতে গৌরনদী থানার ওসি আবুল কালাম, উপজেলা ও কলেজ ছাত্রলীগের সিনিয়র নেতারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। হামলায়  বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও গৌরনদী উপজেলা বিএনপির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সোবাহান, উপজেলা সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব আবুল হোসেন মিয়া, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আব্দুল আউয়াল লোকমান, চাঁদশী ইউনিয়ন বিএনপির সাধারন সম্পাদক ও ইউপি সদস্য সিরাজুল ইসলাম, সহসম্পাদক রুহুল আমিন চোকদার, উপজেলা যুবদলের সভাপতি শরীফ সফিকুর রহমান স্বপন, সাধারন সম্পাদক রফিক চোকদার, পৌর সাধারন সম্পাদক জামাল হাওলাদার, পৌর ৫ নং ওয়ার্ড বিএনপি সভাপতি পান্না খান, যুবদল নেতা রাসেল, ফরিদ হোসেন, সিরাজ সরদার, আল-আমিন, সজীব, ইলিয়াস হোসেন, নুর আলম, ছাত্রদল নেতা শরীফ জসিম উদ্দিন, সৈয়দ নিয়াজুর রহমান নাদিম, কাজী সোহাগ, আসিফ, আশিক, রানা, জনি, জুলহাস, সুমনসহ কমপক্ষে ৩০ জন নেতা-কর্মীরা আহত হয়। গুরুতর আহতদের গৌরনদী ও আগৈলঝাড়া উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

গৌরনদী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ মাহাবুব আলম হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বিএনপির মিছিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পর্কে অশ্লীল শ্লোগান দেয়ায় কতিপয় ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা মিছিলকারীদের ধাওয়া করেছে। যা পরবর্তীতে আমরা নিভৃত করেছি। গৌরনদী থানার ওসি আবুল কালাম জানান, বিএনপির নেতারা অনুমতি ছাড়া বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে রাস্তায় বের হলে হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কোন মামলা হয়নি।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »