আর্কাইভ

বরিশালে বন্যা আতঙ্কে নৌকা কেনার ধুম

খোকন আহম্মেদ হীরা, বরিশাল ॥ চলতি মাসের মাঝামাঝি কিংবা শেষভাগে বন্যার আশংকা রয়েছে। বিভিন্ন গনমাধ্যমের এ সংবাদে এখনই বন্যা আতঙ্ক দেখা দিয়েছে বরিশালবাসীর মধ্যে। আর এ কারনেই আগাম বন্যা মোকাবেলায় এতদাঞ্চলের নিন্মাঞ্চলবাসীদের মধ্যে নৌকা কেনার ধুম পরেছে। বরিশালের গৌরনদী, আগৈলঝাড়া ও আটঘর, কুড়িয়ানার নৌকার হাটে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ওইসব হাটে গত বরিশালে বন্যা আতঙ্কে নৌকা কেনার ধুমকয়েকদিন ধরে নৌকা বিক্রির ধুম পরেছে।

জেলার আগৈলঝাড়া, উজিরপুর, বানারীপাড়া, পিরোজপুর স্বরূপকাঠী ও ঝালকাঠীর একটি অংশের প্রায় সহস্রাধিক পরিবার নৌকা তৈরির পেশার সাথে জড়িত রয়েছেন। সূত্র মতে, এসব এলাকায় পেনিস ও টালাই নামের দু’ধরনের নৌকা তৈরী করা হয়। পেনিস নৌকা ৮’শ টাকা থেকে ১ হাজার এবং টালাই নৌকা ১ হাজার টাকা থেকে দেড় হাজার টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। আগৈলঝাড়ার বারপাইকা গ্রামের প্রায় দু’শতাধিক পরিবার নৌকা তৈরির পেশার সাথে জড়িত রয়েছেন। ওই গ্রামের নৌকা তৈরির মিস্ত্রি সুরেন্দ্র নাথ মিস্ত্রি জানান, প্রতিবছরের জৈষ্ঠ্য মাস থেকে নৌকা তৈরীর কাজ শুরু করে একটানা আশ্বিন মাস পর্যন্ত তিনি এ কাজ করেন। তবে এবার আগাম বন্যার আশংকায় ইতোমধ্যে নৌকা বিক্রির ধুম পরেছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। তিনি আক্ষেপ করে বলেন, দীর্ঘদিন আমি এ পেশার সাথে জড়িত থাকলেও অল্প পুঁজির কারনে এবার চাহিদা থাকা সত্বেও বেশি নৌকা তৈরী করতে পারছি না। কাঠের দাম বেড়ে যাওয়ার কারনে ও আগাম বন্যা মোকাবেলায় ক্রেতারা নৌকা ক্রয়ের প্রতি ঝুঁকে পড়ার কারনে গত বছরের তুলনায় এ বছর নৌকার দামও একটু চড়া।

আগৈলঝাড়ার সাহেবেরহাটে নৌকা ক্রয় করতে আসা উজিরপুর উপজেলার জল্লা গ্রামের ধীরেন্দ্রনাথ মজুমদার জানান, তাদের এলাকাটি নিন্মাঞ্চল হওয়ায় আগে ভাগেই বন্যা মোকাবেলার জন্য তিনি নৌকা ক্রয় করতে এসেছেন। একথা শুধু ধীরেন্দ্রনাথ মজুমদারের একারই নয় একই ভাবে জানালেন, ওই হাটে নৌকা ক্রয় করতে আসা মোল্লাপাড়া গ্রামের প্রবীর বিশ্বাস, ওটরা গ্রামের হাবিবুর রহমান, কারফা গ্রামের সুনীল সমাদ্দার, বাশাইল গ্রামের রব সরদার, কুড়ালিয়া গ্রামের স্বপন কুমারসহ অসংখ্য ক্রেতারা।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »