আর্কাইভ

“আর্সেনিক হেইড্যা আবার কি’?

গৌরনদী সংবাদদাতা ॥ “আর্সেনিক হেইড্যা আবার কি? মোর পোলাপান লইয়া বাড়ির লগের  শামচুর বাড়িরতোন কলের পানি আইন্না খাইতেছি। এহন হুনি হেই কলের পানিতে আর্সেনিক আছে”। এ কথা গুলো বললেন বরিশালের গৌরনদী উপজেলার চাঁদশী ইউনিয়নের দক্ষিন গোবর্বরধন গ্রামের মোবারক  সরদারের স্ত্রী হাসিনা বেগম (৬৫)। এ কথা শুধু হাসিনার একার নয় তার শুরে শুর মিলিয়ে বললেন একই গ্রামের বাদল মিয়ার স্ত্রী কুমকুম বেগম, রাশিদা আক্তারসহ অনেকে।

আজ দুপুরে সরেজমিনে জানা গেছে, গৌরনদী পৌরসভা সংলগ্ন চাঁদশী ইউনিয়ন। এ ইউনিয়নের অধিকাংশ বসিন্দার নিরাপদ পানি ব্যবহার ও তার প্রয়োজনীয়তা এবং আর্সেনিক দূষন প্রতিরোধ সম্পর্কে কোন ধারনা নেই। তাই এ সম্পর্কে বে-সরকারি সংস্থা আশা গৌরনদী সদর শাখা গতকাল রবিবার দিনব্যাপী জনসাধারনকে সচেতনতা মূলক সভা, উঠান বৈঠকসহ বিভিন্ন কর্মসুচীর মাধ্যমে নিরাপদ পানি ব্যবহার ও তার প্রয়োজনীয়তা এবং আর্সেনিক দূষন প্রতিরোধ সম্পর্কে ধারনা দেয়া হয়। দিনব্যাপী এসব কর্মসুচীতে অংশ গ্রহন করেন গৌরনদী সদর শাখা ব্যবস্থাপক মো. আবু বকর সেলিম, আশা’র উজিরপুর জেলার ডিএম শেখ সেলিম উল্লাহসহ আন্যান্য কর্মকর্তারা।

পালরদী গ্রামের জুলেখা বেগম (৫৫), শাওড়া গ্রামের মর্জিনা বেগম (৫০), উত্তর বিজয়পুর গ্রামের রাশিদা বেগম (৪৫) জানান, আশা’র ওঠান বৈঠকের মাধমে জীবানু এবং আর্সেনিক দূষন ম,ুক্ত পানিকে নিরাপদ পানি বলে, পানি দূষনের কারন, নিরাপদ পানি পাওয়ার উৎস, পানি নিরাপদ করার উপায়, আর্সেনিক বিষক্রিয়ার লক্ষন, আর্সেনিক প্রতিরোধ করার উপায়সহ বিভিন্ন বিষয়ে অবগত হয়েছেন। যার পরিপ্রক্ষিতে তাদের স্বাস্থ্য সু রক্ষা থাকবে।

আশা গৌরনদী রিজিওনাল  ম্যানেজার আরিফ হোসেন সিকদার জানান, তার আওতাধীন ৯ ব্রাঞ্চের মাধ্যমে ৮ শতাধিক জনসাধারনকে সচেতনতা মূলক সভা, উঠান বৈঠক, মতবিনিময় সভা করে নিরাপদ পানি ব্যবহার ও তার প্রয়োজনীয়তা এবং আর্সেনিক দূষন প্রতিরোধ সম্পর্কে অবহিত করা হয়।

আর্সেনিক

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »