আর্কাইভ

বরিশালে চাকুরির প্রলোভনে এক পুলিশ কনষ্টবলের ঘুষ বানিজ্য

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ চাকুরির প্রলোভনে বরিশাল বিভাগীয় এডিশনাল (সহকারী) ডিআইজির দেহরক্ষী এক পুলিশ কনষ্টবল কর্তৃক ঘুষ বানিজ্যের বিস্তার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

পটুয়াখালী জেলার হাজিপুরের কনষ্টবল নিয়োগ প্রত্যাশি সফিক আহমেদ অভিযোগ করেন, এডিশনাল ডিআইজির দেহরক্ষী বিপ্লব চক্রর্বতী চলতি মাসের ৬ তারিখের কনষ্টবল নিয়োগ পরীক্ষায় চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে তার কাছ থেকে ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা ঘুষ গ্রহন করে। পরবর্তীতে চাকুরি না হওয়ায় ঘুষের টাকা ফেরত চাইলে বিপ্লব নানা তালবাহানা শুরু করে। একপর্যায়ে বিপ্ল¬ব তাকে ২ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা ফেরত দিয়ে বাকি ১০ হাজার টাকার খরচের কথা বলে আত্মসাত করে। সফিক এর প্রতিবাদ করায় তাকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি প্রদর্শন করা হয়। অভিযোগে আরো জানা গেছে, একইভাবে চাকুরির প্রলোভন দেখিয়ে কনষ্টবল বিপ্ল¬ব নিয়োগ প্রত্যাশি ১০ জনের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা ঘুষ গ্রহন করেছে।
{loadposition AD101}
নাম প্রকাশ করার শর্তে বরিশাল রেঞ্জ পুলিশের একাধিক সূত্রে জানা গেছে, বিপ্লব চক্রর্বতী- (কনষ্টবল নং ১৩৭৮) রেঞ্জ পুলিশের একাধিক সদস্যের কাছ থেকে বিভিন্ন সময় বদলীর ভয়ভীতি দেখিয়ে মোটা অংকের টাকা ঘুষ গ্রহন করে আসছে। রেঞ্জ পুলিশের সদস্য (কনষ্টবল) দেলোয়ার হোসেন জানান, অতিসম্প্রতি কনষ্টবল বিপ্লব তার ছেলের মুখে ভাত অনুষ্ঠান করেছে নগরীর নাম করা রেস্তোরা কাম আবাসিক হোটেল ওয়ান বুকিং করে। এ অনুষ্ঠানে ব্যয় হয়েছে প্রায় ৫ লক্ষ টাকা। যা একজন পুলিশ কনষ্টবলের কাছে অকল্পনীয়। বিষয়টি নগরীর অনেক ধর্নাঢ্য ব্যক্তিকেও প্রশ্নবিদ্ধ করেছে।

এ ব্যাপারে বরিশাল বিভাগীয় সহকারী (এডিশনাল) ডিআইজি ভানু লাল দাসের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিপ্লব সম্পর্কে এখনও আমার কাছে কেউ কোন অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে তার (বিপ্ল¬বের) বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »