আর্কাইভ

বার্থীতে ঘন্টাব্যাপী রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ বাড়ি ভাংচুর ও লুট – আহত-২০

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ গৌরনদী উপজেলার বার্থী ইউনিয়নের বাঙ্গিলা গ্রামে শনিবার দুপুরে বিরোধ পূর্ন জমির মুগ ডাল তোলাকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষ চলাকালে একটি গৃহে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট করা হয়েছে। এছাড়া একটি কলা বাগানের কলা গাছ কেটে সাবার করে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা। সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের মহিলাসহ কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত ১১ জনকে গৌরনদী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গেছে, ওই গ্রামের আকুব আলী সরদারের সাথে প্রতিবেশী ইসমাইল হোসেন সরদারের জমাজমি নিয়ে র্দীঘদিন থেকে বিরোধ চলে আসছে। বিরোধপূর্ন জমিতে আকুব আলী সরদার সম্প্রতি মুগ ডাল চাষ করেন। শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে আকুব আলীর ভাই সলেমান সরদার ওই মুগ ডাল তোলতে যায়। এ সময় ইসমাইল বাঁধা দেয়। এ নিয়ে ঊভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। এর জেরধরে ইসমাইল হোসেন সরদার তার দলবল নিয়ে অতকির্ত ভাবে ইসমাইলের ছোট ভাই সিরাজ সরদারের বসত ঘরে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে। হামলাকারীরা ঘরের আসবারপত্র ভাংচুর করে নগদ ৩০ হাজার টাকা ব্যবহৃত স্বর্নলংকারসহ মূল্যবান মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে সিরাজ সরদারের লোকজন আসলে উভয় গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। ঘন্টাব্যাপী রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ চলাকালে গোটা এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষ চলাকালে সিরাজ সরদারের একটি কলা বাগানের শতাধিক কলা গাছ কেটে সাবার করে দেয় প্রতিপক্ষের লোকজনে। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

সংঘর্ষে আকুব আলী সরদার, রুবি খানম, শাহীন সরদার, আছিরোন নেছা, সলেমান সরদার, দেলোয়ার হোসেন, আহাদুল সরদার, সিরাজ সরদার, লিজা বেগম, ইসমাইল সরদার, মালেকা বেগম, তুহিন সরদার, শাহীন, মুহিতসহ উভয় গ্রুপের ২০ জন আহত হয়। গুরুতর আহত ১১ জনকে গৌরনদী উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় উভয়পক্ষ থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »