আর্কাইভ

বরিশালে দুস্থদের জন্য কম্বল বরাদ্দ হলেও পরিবহন ব্যয় বরাদ্দ না থাকায় তা পরে রয়েছে গুদামে – শীতে কষ্ট পাচ্ছে দরিদ্ররা

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ বরিশালের দুস্থ পরিবারের মাঝে বিতরণের জন্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের ৪ হাজার ১শ’ পিস কম্বল বরাদ্দ পাওয়া গেছে। ইতোমধ্যেই ওই কম্বল জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে পৌছেছে। ১৫ নভেম্বরের মধ্যে কম্বল উত্তোলনের সরকারী নির্দেশ থাকলেও এখন পর্যন্ত ২টি উপজেলা ব্যতিত জেলার অধিকাংশ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তারা কম্বল উত্তোলন ও বিতরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি বলে জানাগেছে। পরিবহণ ব্যয় বরাদ্দ না থাকায় উপজেলাগুলোর কম্বল উত্তোলনে অনিহা দেখা দিয়েছে। ফলে শীত কষ্টে ভুগছে হতদরিদ্র পরিবারগুলোর শিশু ও বৃদ্ধরা। ত্রান ও পুনর্বাসন সূত্র মতে, বরাদ্দকৃত কম্বলের মধ্যে বরিশাল সদর উপজেলায় ৪শ ৬৫ পিচ, বাকেরগঞ্জে ৫শ ২৭ পিচ, উজিরপুরে ৩শ ৪০ পিচ, আগৈলঝাড়ায় ৩শ ৩০ পিচ, মুলাদীতে ৩শ ৩৫ পিচ, হিজলায় ২শ ৮০ পিচ, গৌরনদীতে ৩শ ৪০ পিচ, বানারীপাড়ায় ৩শ পিচ, মেহেন্দিগঞ্জে ৩শ ৪৫ পিচ এবং বাবুগঞ্জ উপজেলায় ৩শ ২৫ পিচ। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের জন্য বরাদ্ধ করা হয়েছে ২শ পিচ। এ ছাড়া গৌরনদী পৌরসভার জন্য ৩০পিচ, বানারীপাড়া পৌরসভার জন্য ২০ পিচ, মুলাদীর জন্য ৩০ পিচ, মেহেন্দিগঞ্জের জন্য ২৫ পিচ এবং বাকেরগঞ্জ পৌরসভার জন্য ২৫পিচ কম্বল। অবশিষ্ট ১শ ৮৩ পিচ কম্বল রাখা হয়েছে জেলা প্রশাসকদপ্তরে বন্টনের জন্য। বিভিন্ন ষ্টেশন যেমন লঞ্চঘাট, বাস স্ট্যান্ড ও ফুটপাতে রাত্রীযাপনকারী দুস্থদের মাঝে কম্বল বিতরণ করার কথা রয়েছে। সরকারী নির্দেশ অনুযায়ি ১৫ নভেম্বরের মধ্যে কম্বল উত্তোলনের নির্দেশ থাকলেও গতকাল রোববার ২ ডিসেম্বর পর্যন্ত শুধুমাত্র বরিশাল সদর উপজেলা এবং গৌরনদী উপজেলার কম্বল উত্তোলন করা হয়েছে। অন্যান্য উপজেলার বরাদ্ধকৃত কম্বল পরে রয়েছে ত্রাণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের গুদামে। তবে যারা কম্বল উত্তোলন করেছেন তারও এখন পর্যন্ত সেগুলো বিতরণ করেনি। ফলে, শীত কষ্টের শিকার হচ্ছে হতদরিদ্র দুস্থরা। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়নকারী অফিস প্রধান ও কর্মচারিরা জানান, সরকার কম্বল বরাদ্দ করলেও তা জেলা থেকে উপজেলা সদরে নেয়ার জন্য কোন আর্থিক বরাদ্দ না থাকায় তারা কম্বল তুলতে অনিহা প্রকাশ করছেন। কারণ হিসেবে জানাগেছে, জেলা সদর থেকে বিভিন্ন উপজেলায় কম্বলগুলো নিতে ট্রাক ভাড়া হবে প্রায় ১০ হাজার টাকা।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »