আর্কাইভ

এসএমএস” বা টেক্সট মেসেজের বিশ বছর!

মতিউর রহমান লিটুঃ প্রথম “এসএমএস” বা টেক্সট মেসেজ পাঠানোর আজ ২০ বছর পুর্তি। ১৯৯২ সনের ৩রা ডিসেম্বর নেইল পাপোয়ার্থ নামের এক বৃটিশ ইঞ্জিনিয়ার যিনি বৃটিশ টেলিকমে কর্মরত ছিলেন প্রথম তাঁর কম্পুউটার থেকে বসের মোবাইল ফোনে বিশ্বের সর্বপ্রথম বার্তাটি পাঠিয়েছিলেন। লেখা ছিল “মেরী ক্রীসমাস”।

 

রিচার্ড জারভিস নামক বস সেদিন কোনভাবেই বার্তাটির উত্তর দিতে পারেননি। তবে সেদিনের সেই আবিস্কার আজ আমাদের দৈনন্দিন জীবনকে করেছে আনন্দময়।

 

বর্তমান সভ্যতায় মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন কিন্তু এসএমএস ব্যবহার সম্পর্কে জানেনা এমন মানুষ খুজে পাওয়া ভার। কথা বলতে সময় না থাকলে একটু এসএমএস দিয়ে কুশলাদি জেনে নেয়া যায় প্রিয়জনের কাছ থেকে।

 

১৯৯২ সনে প্রথম এসএমএস পাঠানো শুরু হলেও বৃটিশ টেলিকম ব্যবসায়ীকভাবে এসএমএস পাঠানো সুবিধা দেন ১৯৯৩ সনের শেষদিকে। যদিও “সুইডেনের টেলিয়া” সর্বপ্রথম এসএমএস পাঠানোর সুবিধা দিয়েছিলেন ১৯৯২ সনের শেষদিকে তবে শুধুমাত্র নিজস্ব নেটোয়ার্কের মধ্যেই ছিল তা সীমাবদ্ধ।

 

১৯৯৪ সনে পৃথিবীর অনেক দেশের টেলিফোন কম্পানী মোবাইল ফোনে এসএমএস সুবিধা দেয়া শুরু করেন। আজ পর্যন্ত এক দশমিক তিন টিলিয়ন এসএমএস পাঠানো হয়েছে বলে ডাটা পাওয়া যায়। এসএমএস পাঠিয়ে মোট বারো বিলিয়ন আমেরিকান ডলার অ্যায় করেছেন টেলিফোন কম্পানীগুলী। ২০১৫ সনের মধ্যে মোট উনিষ ট্রিলিয়ন এসএমএস পাঠানো হতে পারে সারা পৃথিবীব্যাপী এমন সম্ভাবনা রয়েছে তবে অনেক কম্পানী এখন ফ্রি এসএমএস সুবিধা দেয়ায় রাজস্ব তেমন বাড়বে না বলে মন্তব্য করেছেন বৃটিশ এক টেলিফোন কর্মকর্তা। ইন্টারনেট ভিত্তিক এসএমএস চালু হওয়ায় দিন আর দিন বেড়েই চলছে এসএমএস এর জনপ্রিয়তা। প্রযুক্তির সুবিধা নিয়ে আমরা কতই না কাছে এসেছি একজন আরেকজনের!!!!!!  

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

আরও দেখুন...
Close
Back to top button
Translate »