আর্কাইভ

বরিশালে টেন্ডার নিয়ে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

বরিশাল: বরিশাল সদর উপজেলার প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকার ঠিকাদরী কাজের দরপত্র জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর সিএন্ডবি রোড উপজেলা পরিষদে মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসীম উদ্দিন ও বিএম কলেজ শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মঈন তুষার গ্রুপের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।

এতে মঈন তুষার গ্রুপের নূর সায়ীদি নামে একজন আহত হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দুপুর ১ টার দিকে ঠিকাদারী কাজের দরপত্র জমা দিতে আসে মঈন তুষার ও জসিমউদ্দিনের অনুসারীরা।

এসময় তারা দরপত্র জমা দেয়া নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় লিপ্ত হয়।

তুষার অনুসারী সায়ীদিকে পিটিয়ে আহত করে জসিমের অনুসারীরা।

এঘটনার খবর পেয়ে শতাধিক অনুসারীদের নিয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে জসিম গ্রুপকে ধাওয়া করে তুষার। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

বরিশাল সদর উপজেলা প্রকৌশলী মো. হাফিজুর রহমান জানান, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) অর্থয়ানে সদর উপজেলার ৪টি কমিউনিটি স্কুল পুণ:নির্মান ও  সংস্কারের জন্য তিন কোটি ৩২ লাখ টাকার দরপত্র আহ্বান করা হয়।

মঙ্গলবার দুপুর ১ টায় ওই দরপত্র জমাদানের শেষ সময় ছিল।

এ সময়ে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

তবে দরপত্র জমা দেওয়া নিয়ে কোন সমস্যার সৃষ্টি হয়নি।

বিএম কলেজ শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মঈন তুষার বলেন, তার সমর্থকেরা দরপত্র জমা দিতে গেলে মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসীমের লোকজন তাতে বাধা দিলে দুই পক্ষের মধ্যে একটু ঝামেলা হয়।

তবে মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসিমউদ্দিন দাবী করেন তার সাথে কোন ঝামেলা হয়নি। তিনি বলেন,  লোক মুখে শুনেছি কাজ পাইয়ে দেওয়ার জন্য তুষার ছাত্রলীগের কয়েক জন নেতার কাছ থেকে টাকা নিয়েছে। তাদের সাথে তুষারের  ঝামেলা হয়েছে।

কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাখাওয়াত হোসেন বলেন, ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »