আর্কাইভ

তিন দিনেও উদ্ধার হয়নি অপহৃত স্কুল ছাত্র – তিন অপহরনকারী গ্রেপ্তার

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ বরিশালের গৌরনদী উপজেলার টরকী বন্দর ভিক্টরীয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্র রানা দাসকে গত রবিবার খেলার মাঠ থেকে অপহরন করেছে একটি অপহরনকারী চক্র। অপহৃত স্কুল ছাত্রকে উদ্ধারের দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার সকালে ঢাকা বরিশাল মহাসড়ক অবরোধ করেছে স্কুলের শিক্ষার্থী ও স্থানীয়রা। পুলিশ অপহরনের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে এজাহারভূক্ত তিন জনকে গ্রেপ্তার করেছে। এ ঘটনায় অপহৃতার পিতা কৃঞ্চ দাস বাদি হয়ে তিন জনকে আসামি করে গৌরনদী থানায় শিশু পাচার আইনে একটি মামলা দায়ের করেছে।

অপহৃতার পরিবারের অভিযোগ, মামলার বিবরন ও পুলিশ জানায়, গৌরনদী উপজেলার সুন্দরদী গ্রামের কৃঞ্চ দাসের পুত্র টরকী বন্দর ভিকোটারিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেনীর মেধাবী ছাত্র রানা দাস গত রবিবার বিকেলে আনোয়ারা প্রি-ক্যাডেট স্কুল সংলগ্ন মলয় দাসের পরিত্যাক্ত ভিটায় ক্রিকেট খেলছিল। খেলা শেষে বাড়ি যাওয়ার সময় বিকেল সাড়ে ৫টায় ভিটার পূর্ব পাশে পৌছলে একই গ্রামের মথুরা ভক্তের পুত্র কার্তিক ভক্ত (২৫) পিছন থেকে ডেকে কথা শোনতে বলে। এ সময় পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা সুন্দরদী গ্রামের বাসিন্দা ও ঢাকা রায়ের বাজার একটি মার্কেটের নৈশ প্রহরী সুলতান শরীফ (৪৮)সহ অজ্ঞাত ৩/৪জন রানা দাসের নাকে চেতনা নাশক রুমাল চেপে ধরে অজ্ঞান করে মাইক্রোবাসযোগে অজ্ঞাতস্থানে নিয়ে যায়। সন্ধ্যার পরেও রানা দাস বাড়ি ফিরে না আসায়  পরিবার ও আত্মীয় স্বজনরা বিভিন্ন স্থানে তাকে খোজাখুজি করতে থাকে ।  তাকে না পেয়ে সোমবার সকালে বিষয়টি পুলিশকে জানান। ক্রিকেট খেলা শেষে বাড়ি ফেরার  সময় কার্তিক কর্তৃক রানাকে ডেকে নেয়ার বিষয়টি পরিবারের লোকজন তার (রানা দাসের) বন্ধুদের কাছে জানতে পারেন। পরে সন্ধ্যায় পরিবারের লোকজন ও স্থানীয়রা কার্তিক ভক্তকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সন্দেহজনক আচরন ধরা পরে। এক পর্যায়ে তাকে আটক করে গনপিটুনী দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদে কার্তিক অপহরনের মূল হোতা সুলতান শরীফ ও তার স্ত্রী হেণা বেগমের নাম প্রকাশ করে। সোমবার গভীর রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে সুলতান শরীফ ও তার স্ত্রী হেনা বেগমকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হলেও অপহৃত রানা দাসকে উদ্ধার করতে পারেনি। অপহরনের ঘটনায় অপহৃতার পিতা কৃঞ্চ দাস বাদি হয়ে সুলতান শরীফ, তার স্ত্রী হেনা বেগম, সহযোগী কার্তিক  ভক্তের নামালে¬খসহ  অজ্ঞাতনামা তিন জনকে আসামি করে গত সোমবার গভীর রাতে গৌরনদী থানায়  শিশু পাচার আইনে একটি মামলা দায়ের করেছে।

এদিকে অপহৃত স্কুল ছাত্র রানা দাসকে উদ্ধারের দাবিতে মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত ঢাকা –বরিশাল মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে রানা দাসের স্কুলের শিক্ষার্থী ও স্থানীয়রা। এ সময় মহাসড়কে দুই পাশে শত শত যাহবাহন আটকা পরে ঝানজটের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে গৌরনদী থানার ওসি, গৌরনদী হাইওয়ে থানার ওসি ও স্থানীয় আওয়ামীলীগের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থলে পৌছে রানা দাসকে উদ্ধারের আশ্বাস দিলে অবরোধ প্রত্যাহার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের কাছে (থানা হাজতে) অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে কার্তিক ভক্ত ডেকে নেয়ার কথা স্বীকার করেন। সুলতান অপহরনের সাথে জড়িত নয় বলে দাবি করেন।

গৌরনদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আসামিদের গতকাল মঙ্গলবার আদালতে প্রেরন করা হয়েছে এবং দশ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করা হয়েছে। অপহৃততে উদ্ধারে জার প্রচেষ্টা চলছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »