আর্কাইভ

দক্ষিণাঞ্চলের সাথে সড়ক পথে দু’ঘন্টা যোগাযোগ বন্ধ

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ লোকাল বাসের হেলপারকে মারধর করে আটক করে রাখায় গতকাল রবিবার দুপুরে শ্রমিকদের সড়ক অবরোধের কারনে দক্ষিণাঞ্চলের সাথে সড়ক পথে যোগাযোগ দু’ঘন্টা বন্ধ ছিলো। ফলে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের গৌরনদীর ভূরঘাটা বাসষ্ট্যান্ডের দু’পার্শ্বে শত শত যানবাহন আটকা পরে তীব্র যানজটের সৃষ্টিসহ যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। পরবর্তীতে দু’থানার পুলিশ, শ্রমিক ও বাস মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে।

গৌরনদী হাইওয়ে থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা থেকে দক্ষিণাঞ্চলের সাথে সড়কপথে যোগাযোগের একমাত্র মহাসড়ক হচ্ছে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়ক। এ সড়ক দিয়ে প্রতিনিয়ত পুরো দক্ষিণাঞ্চলের হাজার-হাজার যানবাহন চলাচল করে থাকে। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকেরা জানান, গতকাল রবিবার মাদারীপুর থেকে বরিশালগামী রাসেল এন্টারপ্রাইজ নামের লোকাল বাসের যাত্রী ছিলেন ভূরঘাটা এলাকার মিনহাজদি গ্রামের জনৈক মোহাম্মদ আলী। গাড়িতে বসে পকেটমাররা তার পকেটে থাকা প্রায় দশ হাজার টাকা নিয়ে যায়। বাসটি বেলা দেড়টার দিকে ভূরঘাটা বাসষ্ট্যান্ডে পৌঁছলে মোহাম্মদ আলী এ ঘটনায় গাড়ির ষ্টাফদের দায়ি করে হেলপার আল-আমিনকে মারধর করে। একপর্যায়ে মোহাম্মদ আলীর লোকজনে হেলপার আল-আমিনকে বেধম মারধর করে আটক করে রাখে। এ ঘটনায় অন্যান্য গাড়ির শ্রমিকেরা ক্ষিপ্ত হয়ে মহাসড়কের ওপর আটটি গাড়ি দিয়ে ব্যারিকেট সৃষ্টি করে শ্রমিকের ওপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। খবর পেয়ে গৌরনদী ও কালকিনি থানা পুলিশ, বাস ও শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে হামলাকারীদের বিচারের আশ্বাস দিলে বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকেরা মহাসড়ক অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয়।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »