মেয়েদের কটাক্ষ করা ভিডিও নিয়ে তোলপাড়

বাংলাদেশে গত কয়েকদিন ধরে ফেসবুকে অনেকে পোস্ট বা কমেন্ট দিয়ে তীব্র ক্ষোভ আর প্রতিবাদ করছেন একটি ভিডিওতে এক তরুনের দেয়া বক্তব্যের। প্রায় ১২ মিনিটের ওই ভিডিও ইউটিউবে দিয়েছেন সাব্বির নামের এক তরুণ।

ইউটিউবে পাওয়া ভিডিওটির নীচে এর স্ক্রিপ্ট লেখক ও পরিচালক হিসেবে হায়াত মাহমুদ রাহাতের নাম উল্লেখ রয়েছে।

ভিডিওটিতে দেখা যায় যে ছেলে ও মেয়েদের ধূমপান নিয়ে একের পর এক বক্তব্য দিয়েছেন সাব্বির যা অনেকের কাছেই আপত্তিকর ও বিপজ্জনক উস্কানি বলে মনে হয়েছে।

যেমন মানুষের সমাগমের জায়গা বা পাবলিক প্লেসে তার নিজের ছেলে বন্ধুরা ধূমপান করলে সেটায় তার সমস্যা হয়না, সমস্যা হয় মেয়েরা ধূমপান করলে।

ভিডিওতে তার ডায়ালগটি এমন- “তোরা ছেলে মানুষ। তোরা এ জায়গায় স্মোক করলে এ জায়গার এনভায়রনমেন্ট চেঞ্জ হচ্ছেনা। কিন্তু একটা মেয়েমানুষ যখন এভাবে পাবলিকলি স্মোক করছে এ জায়গার পুরো এনভায়রনমেন্ট চেঞ্জ হয়ে যাচ্ছে”।

ধূমপান নিয়ে তার আরেকটি যুক্তি হলো, “একটা ছেলের সবার সামনে সিগারেট খাওয়া নরমাল কিন্তু একটা মেয়ের জন্য নরমাল না”।

তবে সবচেয়ে ভয়ংকর দিক হলো ভিডিওর এক পর্যায়ে তিনি গোপনে মেয়েদের ছবি তুলে সেটি ফেসবুকে আপলোড করে দেয়ার আহবান জানিয়েছেন সবাইকে। ফেসবুকে এ ভিডিও নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা যাচ্ছে অনেককেই।

তানিয়া কামরুন নাহার নামে একজন এ বিষয়ে একটি পোস্টে তার মন্তব্যে লিখেছেন “মূর্খ ও সাইকোপ্যাথ”।

অনিক খান নামে একজন লিখেছেন, “আমার এই ভিডিও দেখে প্রচণ্ড মেজাজ খারাপ হয়েছে! এন্টি-পাবলিক স্মোকিং একটা স্ট্যান্ড নিলেও কথা ছিল”!

সায়েদ খালেদের মন্তব্য, “একটা ফালতু ভিডিও ছাড়া আর কিছু দেখি না ওটাতে”।

অপরাজিতা সঙ্গীতা লিখেছেন, ” আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কোন বিকল্প নেই”।

রুবা চৌধুরী মন্তব্য, ” রাস্তায় চলতে ফিরতে অশিক্ষিত কিছু মানুষ মাঝে মাঝে এমন খুব তত্ত্ব ঝাড়ে তখন তাদের সবাই পাগলা কি না কয় ভাব কইরা অদেখা করে এবং আমারেও বলে বাদ দেন আফা। সেই ছাগলের মতো মানুষগুলা এখন ইউটিউব চালাইতে পারে!!!

আহসানুল কবির ডালিম লিখেছেন, “ফাত্রারে আইনত শাস্তি দেয়ার উপাই কেউ জানেন”?

এম রবিউল ইসলাম লিখেছেন তিনি ভিডিওটি দেখেই রিপোর্ট করেছেন।

এভাবে অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করে গোপনে মেয়েদের ছবি ভিডিও করার উস্কানি দেয়ায় দ্রুত আইনি ব্যবস্থা নেয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেছেন।

প্রথমবারে বাবার ভিটায় সুবর্ণা মুস্তাফা

প্রখ্যাত অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার মেয়ে সুবর্ণা মুস্তাফা প্রথমবারের মতো তার বাবার ভিটায় গেলেন।

বরিশালের দপদপিয়ায় বাবার ভিটায় এক প্যাঁচে সাদা শাড়ি পড়ে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নায়িকার সাজে পরিদর্শন করেন তিনি।

নিজের ফেসবুক পেজে সেই ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে সুবর্ণা লিখেছেন, ‘প্রথমবার বাবার ভিটা পরিদর্শন করলাম’।

বর্তমানে সরকারি অনুদানে নির্মাতা বদরুল আনাম সৌদের পরিচালনায় ‘গহীন বালু চর’ সিনেমার শুটিং নিয়ে ব্যস্ত আছেন এ অভিনেত্রী।

এক ফ্রেমে জেমস-বাচ্চুর পাগলামি

একটা সময় ব্যান্ডের গান মানেই ছিল জেমস-আইয়ুব বাচ্চুর গান। বহু অ্যালবামে পাশাপাশি দেখা গেছে তাদের। অ্যালবাম প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গে তা লুফে নিয়েছেন শ্রোতারাও। কিন্তু অনেকদিন দুজনের একসঙ্গে কোন অ্যালবাম নেই। পাওয়া যাচ্ছিল না এক ফ্রেমে ছবিও। তবে সম্প্রতি তাদের পাওয়া গেছে এক ফ্রেমে। রবির আয়োজনে একটি মিউজিক্যাল অ্যাপসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে একসঙ্গে ক্যামেরা বন্দী হন তারা। তাও আবার সেলফিতে!

ছবিটি আইয়ুব বাচ্চু নিজের ফেসবুক ওয়ালে শেয়ার দিয়েছে। ক্যাপশনে তিনি কবিতার ছন্দে লিখেছেন, ‘একই আছি দুজনেই/একই তুমি আমি/একই আছে এখনও/আমাদের পাগলামি।’

সিনেমাকে চাঙ্গা করতে জাজের নতুন উদ্যোগ

বাংলাদেশের শীর্ষ চলচ্চিত্র প্রযোজনা সংস্থা জাজ মাল্টিমিডিয়া তাদের ব্যবসার ক্ষেত্রে নতুন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। জাজ মাল্টিমিডিয়া ছবি নির্মাণের পাশাপাশি হল ডিজিটালাইজেশনসহ নানা ধরনের কারিগরি সহায়তা দিয়ে থাকে। সেসব খাতগুলোর ক্ষেত্রেই জাজ মাল্টিমিডিয়া নতুন নীতি গ্রহণ করেছে। এ নীতিমালায় প্রজেক্টরের ভাড়া কমানো, সিনেপ্লেক্স নির্মাণ ও পাইরেসি বন্ধে নতুন উদ্যোগের কথা বলা হয়েছে। জাজ মাল্টিমিডিয়া তাদের ফেসবুক পেইজে এ সংক্রান্ত একটি নোটও প্রকাশ করেছে। জাজের এ সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সাধারণ প্রযোজক ও নির্মাতারা।

জাজ মাল্টিমিডিয়া প্রকাশিত নোটটি নিচে তুলে ধরা হলো-

বর্তমানে মুভি প্রতি এনকোডিং চার্জ আমরা নিচ্ছি ১২ হাজার টাকা হল প্রতি। এটা প্রযোজক সমিতির সাথে জাজ এর এগ্রিমেন্ট আছে। এর পর আমরা প্রযোজক সমিতির প্রাক্তন নেতাদের সাথে বসেছিলাম রেট কমানোর জন্য। কিন্তু আশানরুপ সাড়া পাই নাই। আশানুরুপ সাড়া না পাওয়ার কারণ হলো, যেহেতু নেতারা সিনেমা বানায় না, তাই আমরা ১২ হাজার নিলে যেমন তাদের ক্ষতি নাই, তেমনি কম নিলেও তাদের কোন লাভ নাই। বরং আমরা বেশি নিলে তাদের লাভ হলো, তারা সাধারণ প্রযোজক কে বলতে পারে যে জাজ বেশি নিচ্ছে। জাজ এর বদনাম করে তাদের নেতাগিরি টিকিয়ে রাখতে চাচ্ছে।

জাজ মনে করছে, এই সব তথা কথিত নেতাদের কুটিল পলিটিক্স থেকে সাধারণ প্রযোজকদের উদ্ধার করা উচিৎ। এর জন্য আমার গত ২৮শে এপ্রিল নিন্মোক্ত ঘোষণা দিয়েছিঃ

১। এই ঈদ থেকে আমরা ২৫০ হল ডিজিটাল এর আউতায় নিয়ে আসব। যা হবে সম্পূর্ণ কেডিয়াম ভিক্তিক এঙ্ক্রিপ্টেড সার্ভার। তাই এই সার্ভার থেকে কপি বা পাইরেসি করা সম্ভব নয়। আমরা যদি সফল হই তবে আমরা পাইরেসি মুক্ত বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উপহার দিতে পারব।

২। আমরা ২৫০ টা সিনেমা হল কে ৪ টা ক্যাটাগরিতে ভাগ করেছি। A, B, C, D… যাহার VPF CHARGE হবেঃ

প্রথম সপ্তাহেঃ

A – ক্যাটাগরি – about ৪৫টি সিনেমা হল – ১০,০০০ টাকা

B – ক্যাটাগরি – about ২৫টি সিনেমা হল – ৮,০০০ টাকা

C – ক্যাটাগরি – about ৫৫টি সিনেমা হল – ৬,০০০ টাকা

D – ক্যাটাগরি – about ১২৫টি সিনেমা হল – ৫,০০০ টাকা

দ্বিতীয় ও পরবর্তী সপ্তাহঃ

A ও B – ৫,০০০ টাকা

C ও D – ৩ হাজার টাকা

এতে প্রযোজক এর অর্থ সাশ্রয়ী হবে।

এটা কার্যকর হয়েছে ১লা মে থেকে।

৩। জাজ এই ঈদ এর মধ্যে বন্ধ হয়ে যাওয়া ৫০টি হল ভাড়া নিয়ে, সম্পূর্ণ নতুন ভাবে ডেকোরেশন করে খোলার চেষ্টা করছে। ইতিমধ্যে আমারা ১৮টি হল ভাড়া নিয়েছি। আর বাকি হল গুলির সাথে কথা চলছে। আশা করি, এই ঈদের পর থেকে প্রযোজকগন চলতি হল গুলির সাথে, আরও ৫০ টি হল এ সিনেমা মুক্তি দিতে পারবে।

৪। কাজ চলছে ৪টি সিনেমপ্লেক্স তৈরি করার। প্রাথমিক বাজেট ১৫ কোটি টাকা।

৫। এ ছাড়া কাজ চলছে ডিজিটাল টিকেটিং সিস্টেম এর। আশা করছি এই সিস্টেম এই রোজার ঈদ থেকে চালু হবে। বর্তমানে আমাদের এই প্রোজেক্টটি পরীক্ষাধীন (টেস্ট রান) আছে।

এরকম অ্যাকশন সিনেমায় দর্শক এর আগে আমাকে কখনো দেখেনি : আরিফিন শুভ

ঢাকাই ছবির নায়ক আরিফিন শুভ। ২২ এপ্রিল মুক্তি পেল তাঁর নতুন ছবি ‘মুসাফির’। পরিচালনা করেছেন আশিকুর রহমান। তার বিপরিতে দেখা মিলবে নবাগতা মারজান জেনিফার। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরেই শুভ’কে মুঠোফোনে ফোন করে পাওয়া যাচ্ছিল না। অবশেষে তার সঙ্গে কথা হল-২০ এপ্রিল সন্ধ্যায়। তিনি জানালেন ২১ এপ্রিল দুপুর ২টার দিকে ফটোশ্যুট শেষে মুসাফির নিয়ে কথা বলবেন। যেই কথা সেই কাজ। যথা সময়ের আগেই হাজির। ঠিক ঘড়ির কাটায় যখন দুটা, তখন তার ফোন। জানালেন যমুনা ফিউচার পার্কের একটি নির্দিষ্ট স্থানের নাম। আর বললেন সেখানে তিনি অপেক্ষা করছেন। তবে তাকে খুঁজে পেতে সেরকম কোন বেগ পেতে হল না।

আরিফিন শুভ ইতিমধ্যে প্রায় ১২টি ছবিতে অভিনয় করেছেন। তারমধ্যে জনপ্রিয়তার তালিকায় রয়েছে ‘অগ্নি’ ও ‘ছুঁয়ে দিলে মন’। এ দুটো ভিন্ন আঙ্গিকের ছবি। দর্শকের গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছেন তিনি। যার কারণে চলচ্চিত্রে নিজের অবস্থান তৈরি করার দৌড়ে বেশ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছেন। এদিকে গত ১৩ এপ্রিল ভোরে মালয়েশিয়া থেকে ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবির কিছু দৃশ্যের শুটিং শেষ করে দেশে ফিরেছেন।

কথার শুরুতেই জানালেন, অল্প সময়ের মধ্যেই দ্রুত ছবি তুলতে হবে। এরপর ছবি নিয়ে কথা। আর সে অনুযায়ীই রথ চললো। দ্রুত ছবি তোলা শেষে মুসাফির প্রসঙ্গে কথা শুরু। শুভ বললেন-‘মুসাফির এর সবচাইতে জ্যাকপট হচ্ছে অ্যাকশন, এরকম অ্যাকশন ঘরানার সিনেমায় দর্শক এর আগে আমাকে কখনও দেখে নি। আমার চরিত্রের নাম সানি। এ ছেলেটার সাথে অবিচার হয়েছে। সে প্রতিশোধপরায়ণ। একটা ঘটনা বদলে দেয় তাকে। এভাবেই এগিয়ে যায় গল্প’।

শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা বিষয়ে শুভ বললেন, ‘এ ছবিতে একটা দৃশ্য  আছে এমন- হিরো কারাগার থেকে বেরিয়ে আসছে। আমাদের পরিচালক সিদ্ধান্ত নিলেন সে দৃশ্যটি ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনেই দৃশ্যধারণ করবেন। যে কোন কারণেই হোক আমাদের সেখানে শুটিং করার অনুমতি ছিল না। আমার যে গেটআপ ছিলো সেখানে কেউ আমাকে চিনতে পারছিলো না। পরিচালক সিদ্ধান্ত নিলেন গেরিলা স্টাইলে শুটিং করবে। আমাকে দেখা যাবে সঠিক সময়েই আমি শট দিয়ে বের হয়ে যাবো। আমরা সকাল সাতটার সময় সেখানে পৌঁছাই। কেউ কিছু জানেন  না। তিনটি গোপন ক্যামেরা সেখানকার বিভিন্ন স্থানে বসানো হয়। এরপর পুলিশ সেটা দেখে ফেলে। আমাদের শুটিংয়ের সকল সরঞ্জাম নিয়ে তারা চলে যায়। যদিও তাদেরকে বিয়ষটি বোঝালে পরে তারা বুঝতে পারে। আমরা  শুটিং সেখানে সম্পন্ন করি’।

পাঠক আগেই বলেছি এ ছবিতে শুভর বিপরিতে দেখা মিলবে নবাগত মারজান জেনিফার। সহ-শিল্পীকে নিয়ে বলতে গিয়ে বললেন, ‘জেনিফার নবাগতা নায়িকা হিসেবে ভাল ছিলো । সে দারুণ কো-অপারেটিভ। তারমধ্যে সবচেয়ে দারুণ যে বিষয়টি ছিলো-সেটি হলো চেষ্টা’। এ ছবির অভিনেতা-অভিনেত্রী কিংবা টেকনিশিয়ান থেকে শুরু করে বেশিরভাগই তরুণ। বলা চলে পরিবর্তনের ডাক দিয়েছেন তারা। শুভ বললেন, ‘অ্যাকশন, মেকিং স্টাইল এ বিষয়গুলো দর্শক আলাদাভাবে এ সিনেমায় দেখতে পাবে। আর আমি এবং পরিচালক দুজনই তরুণ। কাজটি ভাল হয়েছে কি না, তা তো  আর বলতে পারি না। দর্শক বলতে পারবেন। আমাদের টিমের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ চেষ্টা ছিলো ভাল কিছু করার।  তবে দর্শক কিভাবে গ্রহন করবে তা জানার জন্যে অপেক্ষা করছি’।

শুভ আরেকটু যোগ করে দিয়ে বললেন, ‘মুসাফির সিনেমার গানগুলোর কথা আলাদাভাবে উল্লেখ করতে হবে। এতে তাহসান ভাই অসাধারণ একটি গান গেয়েছেন। এমনটা তাহসানের কণ্ঠে আগে শোনা যায়নি বলে দাবি করেন শুভ। এ ছাড়া কোনাল, বেলাল খানের গানগুলো দর্শক-শ্রোতাদের ভালো লাগবে।’

এদিকে আরিফন শুভর শুরুটা হয়েছিল র‌্যাম্প মডেলিং দিয়ে। এরপর টিভি নাটক। তারপর বিজ্ঞাপনচিত্রে অভিনয়। কয়েক বছর ধরে তার সবকিছুই চলচ্চিত্র ঘিরে। সবশেষে বড়পর্দায় এসে থিতু হলেন আরিফিন শুভ। এছাড়া একটি সিনেমার শুটিংয়ের সময় অন্য সিনেমার শুটিং করেন না শুভ। ক্যারিয়ারের জন্য ভিন্ন পন্থা হিসেবে দেখছেন বিয়ষটিকে? ‘আমাদের এখানে ফিল্মের বিষয়ে আলাদা কোন একাডেমি নেই। কিন্তু ভিন্ন কিছু করা কিংবা কাউকে দেখে কিছু করা সেদিক থেকে আমার মনোযোগের জায়গা থেকে একবারে কাজ শেষ করে  আরেকটি শুরু করা পক্ষে তিনি’। শুভ বলে রাখলেন, ‘এরমানে এই না সেটি ২০ দিন কিংবা ২৫ দিনেরে মধ্যেই শেষ করতে হবে। একবারে একটু সময় নিয়ে কাজ করে ফেললে মুড, কন্টেনিটি ভাল করা সম্ভব’।

চলচ্চিত্র নিয়ে বর্তমান সময়ে আশার চাইতে হতাশার কথাই বেশি শোনা য়ায়। তবে এত সহজে দমে যাওয়ার পাত্র নন তিনি। এর শেষ দেখে যেতে চান। যে কোন হোক নিজের অবস্থান থেকে চলচ্চিত্রকে কিছু দেওয়ার প্রতিজ্ঞা করেই এ মাধ্যমেই এসেছিলেন। ‘আমি চলচ্চিত্রকে সবকিছুর উর্দ্ধে দেখি। দেশটা তো আমার। ভাষাটা আমার। সংস্কৃতিটা আমার। আমার যে সম্পদ-আমি বেঁচে থাকলেই আমার ইন্ড্রাস্ট্রিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারব। সরকার যদি হলগুলো ঠিক করার ব্যবস্থা না নেয় তাহলে যতটাকা খরচ করে সিনেমা বানানো হোক না কেন  দর্শক কি হলে ফিরবে? তারপরও আমি আশাবাদী থাকতে চাই। কোন না কোন সময়ে সরকার এ বিষয়ে হাত দিবেই’। বলছিলেন শুভ।

প্রসঙ্গক্রমেই শুভ আরেকটু যোগ করে বললেন, ‘আমি আমার জায়গা থেকে স্ট্যান্ট নিচ্ছি । সেটি অনেকটাই এমন- ‘আমি যেকোন গল্পে কাজ করছি না। যতই চাপ থাকুক না কেন? যতক্ষন পর্যন্ত আমি কনভেইন্স না থাকবো। যত প্রেসারই থাকুক না কেন! আমাদের এখানে কাজ করতে গিয়ে কত ধরনেরই চাপের সম্মুখীন হতে হয়। আমি ইচ্ছে করলেই সব কাজে হ্যাঁ কিংবা না করতে পারি না। অনেক সময় অনুরোধের ঢেঁকি গিলতে হয়। যতটুকু সম্ভব চেষ্টা করছি না করছি গেলার’।

এছাড়া শুভ সম্প্রতি ‘মৃত্যুপুরি’ ছবির কাজ শেষ করেছেন। বর্তমানে  দীপঙ্কর দীপনের পরিচালনায় ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবির কাজ করছেন। এদিকে ১লা মে থেকে শুরু করবেন জাকির হোসেন রাজুর  পরিচালনায় প্রেমী ও প্রেমী ছবির কাজ। এরপর টাইগার মিডিয়া ও জাজ মাল্টিমিডিয়ার আরও দুটি ছবির কাজ করবেন। অন্যদিকে মুক্তির তালিকায় মে মাসে রয়েছে অস্ত্বি ছবিটি। ছবিটি পরিচালনা করেছেন অনন্য মামুন।

না ফেরার দেশে চিত্রনায়িকা দিতি

ঢাকা : ক্যানসারের সঙ্গে যুদ্ধ করে অবশেষে চলে গেলেন দেশীয় চলচ্চিত্রের অন্যতম সেরা নায়িকা দিতি। আজ রোববার বিকেল ৪টা ৫ মিনিটে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি…..রাজিউন)। বাংলামেইলেকে খবরটি নিশ্চিত করেছেন ইউনাইটেড হাসপাতালের মিডিয়া মুখপাত্র ডা. সাগুফতা।

মৃত্যুর আগ পর্যন্ত হাসপাতালের সাধারণ কেবিনে রাখা হয়েছিল দিতিতে। আর মৃত্যুর সময় তার পাশে ছিলেন দিতির দুই সন্তান।

ডা. সাগুফতা বাংলামেইলকে বলেন, ‘মৃত্যুর আগমুহূর্তে দিতির শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। কৃত্রিম পর্যায়েও শ্বাস নিতে পারছিলেন না তিনি। একপর্যায়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।’

মস্তিস্কে ক্যানসার আক্রান্ত হওয়ার পর তাকে ভারতের মাদ্রাজের ইনস্টিটিউট অব অর্থোপেডিকস অ্যান্ড ট্রমাটোলজি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। কিন্তু সেখানকার ডাক্তাররা আশানুরূপ ফলাফল জানাতে পারেননি। তাই চলতি বছরের শুরুতে তাকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়।

উল্লেখ্য, ১৯৮৪ সালে নতুন মুখের সন্ধানের মাধ্যমে দেশীয় চলচ্চিত্রে দিতির আগমন ঘটে। তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র উদয়ন চৌধুরী পরিচালিত ‘ডাক দিয়ে যাই’। কিন্তু ছবিটি শেষ পর্যন্ত মুক্তি পায়নি। তার মুক্তিপ্রাপ্ত প্রথম চলচ্চিত্র ছিল ‘আমিই ওস্তাদ’। ছবিটি পরিচালনা করেছিলেন আজমল হুদা মিঠু। এরপর দিতি প্রায় দুই শতাধিক ছবিতে কাজ করেছেন। সুভাষ দত্ত পরিচালিত ‘স্বামী স্ত্রী’ ছবিতে অভিনয় করে প্রথমবারের মতো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন। ১৯৮৫ সালে আমজাদ হোসেনের ‘হীরামতি’ ছবিতে চিতত্রনায়ক সোহেল চৌধুরীর সঙ্গে অভিনয় করতে গিয়েই প্রেমে পড়েন দুজন। পরবর্তীতে তারা দুজনে বিবাববন্ধনে আবদ্ধ হন। ১৯৮৭ সালে জন্ম নেন মেয়ে লামিয়া চৌধুরী আর ১৯৮৯ সালে জন্ম নেয় ছেলে দীপ্ত। তবে সোহেল চৌধুরীর সাথে দিতির সংসার স্থায়ী হয় নি, ভেঙ্গে যায়। পরে ১৯৯৮ সালের ১৭ ডিসেম্বর রাত দুটার দিকে সোহেল চৌধুরী খুন হন বনানীর ট্রাম্পস ক্লাবে। পরবর্তীতে দিতি তার সর্বাধিক চলচ্চিত্রের জুটি ইলিয়াস কাঞ্চনকে বিয়ে করলেও সেই বিয়েও স্থায়ী হয়নি, ডিভোর্সের মাধ্যমে সমাপ্তি ঘটে।

দিতি অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রগুলো হল-‘হীরামতি’, ‘দুই জীবন’, ‘ভাই বন্ধু’, ‘উছিলা’, ‘লেডি ইন্সপেক্টর’, ‘খুনের বদলা’, ‘দুর্জয়’, ‘আজকের হাঙ্গামা’, ‘স্নেহের প্রতিদান’, ‘শেষ উপহার’, ‘চরম আঘাত’, ‘স্বামী-স্ত্রী’, ‘অপরাধী’, ‘কালিয়া’, ‘কাল সকালে’, ‘মেঘের কোলে রোদ’, ‘আকাশ ছোঁয়া ভালোবাসা’, ‘মুক্তি’, ‘কঠিন প্রতিশোধ’, ‘জোনাকীর আলো’, ‘তবুও ভালোবাসি’, ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী’, ‘হৃদয় ভাঙা ঢেউ’, ‘মাটির ঠিকানা’, ‘নয় নম্বর বিপদ সংকেত’ ইত্যাদি।

ছোটপর্দায়ও সমানভাবে ব্যস্ত দিতি অসুস্থতার ফাঁকে ভারত থেকে ফিরে বাংলামেইলকে তার আত্মজীবনী নিয়ে ধারাবাহিক নাটক নির্মাণের বাসনা পোষন করেছিলেন।

ফেরারি হচ্ছেন তানিন সুবহা

সময়ের সম্ভাবনাময়ী চিত্রনায়িকা তানিন সুবহা নতুন একটি ছবিতে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হলেন। হানিফ মাহমুদ পরিচালিত ‘ফেরারি’ ছবিতে তার বিপরীতে রয়েছেন রবিন। ডনি প্রোডাকশন হাউজের ব্যানারে নির্মিত হবে ছবিটি। গতকাল থেকেই ছবিটির শুটিং হবার কথা থাকলেও পরিচালকের অসুস্থতার কারণে এর শুটিং পেছানো হয়েছে। আগামী ফেব্রুয়ারি থেকে ছবির শুটিং হবার কথা।

তানিন সুবহা বললেন,’নতুন বছরের শুরুতেই ভালো একটি ছবির কাজ পেয়ে আমি আনন্দিত। ছবির গল্পটি চমৎকার। আশা করছি ছবিটিতে নিজেকে মেলে ধরার সুযোগ পাবো’।

এদিকে আগামী ২২ শে ফেব্রুয়ারি তানিন অভিনীত ও কাজল কুমার পরিচালিত ‘অবাস্তব ভালোবাসা’ নামে একটি ছবি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। চলতি বছরের প্রথম দিনেই মুক্তি পেয়েছে এই নায়িকার ‘মাটির পরী’ ছবিটি। ‘মাটির পরী’ ছবির মাধ্যমেই ঢালিউডে নায়িকার খাতায় নাম লেখান তিনি। তানিন বললেন, ‘নতুন আরও বেশ কয়েকটি ছবিতে কাজ করার ব্যাপারে কথা হয়েছে। অল্প কিছুদিনের মাঝেই সেগুলো চূড়ান্ত হবে’।

উল্লেখ্য, তানিন সুবহা গৌরনদীর মেয়ে।

tanin subha in village

মোশাররফ করিমের ‘কালা’র ফুল’

বিনোদন ডেস্ক ।। একটি একতলা বাড়ির ছাদের চিলেকোঠায় থাকে কালা। সূর্য ডোবার পর তাকে এই বাড়ি থেকে বের হতে দেখা যায়, আবার সূর্য ওঠার আগে সে তার চিলেকোঠায় ঢুকে পড়ে। অদ্ভুত ব্যাপার হল তার শত্রুপক্ষ বিভিন্ন সময় তাকে মারতে এসে বাড়ি তল্লাশি করেও খুঁজে পায়না। এই রহস্যের বাস্তবসম্মত সমাধান খুঁজে পাওয়া যাবে ‘কালা’র ফুল’ চলচ্চিত্রে। চলচ্চিত্রের এই কালা হলেন মোশাররফ করিম। এ ছবির মাধ্যমে ফের বড়পর্দায় আসছেন মোশাররফ। চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করছেন আলম আশরাফ। ইতিমধ্যেই চলচ্চিত্রটির কিছু অংশের চিত্রধারণ সম্পন্ন হয়েছে। নির্মাতা সূত্রে জানা যায়, জানুয়ারী থেকে চলচ্চিত্রটির শুটিং পুরোদমে শুরু হবে। নির্মাতা আশরাফ বলেন, সমাজের চেইন্জ মেইকার হিসেবে কালা চরিত্রে দেখা যাবে মোশররফ করিমকে। সিনেমাটিতে বিভিন্ন সময় তাকে খুন করতে দেখা যাবে, কিন্তু প্রতিটা খুনে মিশ্রিত থাকবে এলাকাবাসীর স্বস্তির নিঃশ্বাষ। এমন একটি চরিত্রে এই প্রথম মোশাররফ করিমকে দেখা যাবে। ‘কালা’র ফুল’ সিনেমার প্রমোশনালের শুটিং শেষ হয়েছে এই মাসের ২৬ তারিখে। তবে চলচ্চিত্রে মোশাররফের বিপরীতে কাকে দেখা যাবে তা নিয়ে এখনো নিশ্চিত হতে পারেননি নির্মাতা।

ঈদে চার গান নিয়ে কাজী শুভ

এবারের ঈদে আসছে না সুরকার এবং কণ্ঠশিল্পী কাজী শুভর কোন একক অ্যালবাম। তবে বিভিন্ন মিক্সড অ্যালবামে প্রকাশিত হচ্ছে তার ৪ টি গান। এর মধ্যে আছে তার কণ্ঠে জনপ্রিয় হওয়া অন্যতম গান ‘মন পাঁজরে’র সিক্যুয়েল। এছাড়া বাকি গানগুলো হল মিলনের Read more “ঈদে চার গান নিয়ে কাজী শুভ”

কাজী শুভর নতুন মিউজিক ভিডিও (ইউটিউব)

নির্মিত হল জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী কাজী শুভ ও রিমার ‘জীবনের খেয়া ঘাটে’ শিরোনামের গানের মিউজিক ভিডিও। গানের কথা লিখেছেন আব্দুল কাদের মুন্না। সুর করেছেন বেলাল খান। গানটি কম্পোজিশন করেছেন মুশফিক লিটু।

সম্প্রতি মানিকগঞ্জের নাহার সিটি গার্ডেনে গানটির ভিডিওচিত্র নির্মিত হয়েছে। এটি নির্মান করেছেন এস.এম তুষার।

গানটি সম্পর্কে Gournadi.com কে কাজী শুভ বলেন, ‘জীবনের খেয়া ঘাটে’ আমার একটি পছন্দের গান। এর কথা ও সুরে বৈচিত্র রয়েছে । আমি গানটি নিয়ে ভীষন আশাবাদী।’

বর্তমানে সম্পদনার টেবিলে রয়েছে ভিডিওটি। ভিডিও চিত্রটি খুব শিগগিরই বিভিন্ন বেসরকারী চ্যানেলে প্রচার করা হবে।

গানটিতে মডেল হয়েছেন সজিব ও লোপা।

সিডি চয়েসের ব্যানারে গত ঈদুল আযহায় ‘জীবনের খেয়া ঘাটে’ অ্যালবামটি রিলিজ হয় ।

[youtube url=”http://www.youtube.com/watch?v=V1kuT8ZQi-4” width=”560″ height=”315″]

সংবাদ : রেজাউল শরীফ

শেষ সিনেমায় অভিনয় করতে ভারতে মাহি

সম্প্রতি মাহিয়া মাহি ঘোষণা দিয়েছেন ‘অগ্নি ২’ হবে তার ক্যারিয়ারের শেষ সিনেমা। যদি সে নিজের সিদ্ধান্তে অটল থাকেন তাহলে শেষ সিনেমার শুটিংয়ে ভারতে এখন মাহি। সিনেমার বেশিরভাগ শুটিং হবে ব্যাংককে। তাই ভারতের শুটিং শেষে ব্যাংককের উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন তিনি।

ভারতে যাওয়ার আগে মাহি বলেন, ‘আমি ‘অগ্নি’ সিনেমাতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছিলাম। সিনেমাটি ব্যবসা সফল হয়েছে। অ্যাকশন দৃশ্যে দর্শক আমাকে দারুণভাবে গ্রহণ করেছে। আর তাই ‘অগ্নি ২’ নিয়েও আমি আশাবাদী। আগের সিনেমা থেকে এবারের সিনেমার গল্প ও লোকেশনে ভিন্নতা থাকছে। তা ছাড়া এই সিনেমাটির বাজেটও বেশি। আমার বিশ্বাস, দর্শকরা আরো একটি ভালো সিনেমা দেখতে পাবেন।’

তবে নিজের সিদ্ধান্তে অটল থাকবেন কি না জানতে চাইলে এড়িয়ে যান মাহি। সময়ই সব ঠিক করবে বলে জানান তিনি। ‘অগ্নি ২’ সিনেমাটি প্রযোজনা করছে বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়া এবং কলকাতার এস কে মুভিজ।

কবির কাছে পরীর প্রেমের চিঠি

এখন আর কেউ চিঠি লেখেন না, এসএমএস, ফেসবুক, ইমেইল এসব মাধ্যেমেই লেখালেখির নয়া ভাষা তৈরি হয়েছে। প্রযুক্তির বিকাশের কারণে হারিয়ে গেছে কাগজে কলমে লেখা চিঠির প্রচলন। বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে সংগ্রহ করেছি একটি চিঠি। এ চিঠি চলচ্চিত্র অভিনেত্রী পরীমণির লেখা। তিনি তার প্রিয় কবিকে লিখেছেন একটি চিঠি। সেই চিঠিটি প্রকাশ করা হল  পাঠকদের জন্য…

প্রিয় কবি
হে প্রেম আমার। যেদিন থেকে প্রেম শব্দটা বুঝতে পেরেছি সেদিন থেকে এই প্রেমে তোমাকেই খুঁজেছি। আমার বিশ্বাস তুমি আছ। একদিন তুমি ঠিকই ধরা দিবে আমাকে। আমার সামনে এসে দুচোখে তাকিয়ে শক্ত করে আমার হাত দুটি ধরে ফিসফিস করে বলবে, প্রিয়া এই দেখ আমি এসেছি। তোমার রবি, তোমার কবি, তোমার প্রেম, আজ তোমার সামনে দাঁড়িয়ে।

আর আমি অবাক হয়ে শুধু দেখব তোমায়। কবি জান? আমি প্রতিদিন নতুন করে প্রেমে পড়ি তোমার। তোমায় খুঁজে বেড়াই সকালের মিষ্টি রোদে। খুঁজে পাই ঐ নীল আকাশে…দীঘির জলে। বৃষ্টির ফোটায়, ফুলের সুবাসে, মাতাল হাওয়ায়, সন্ধ্যার গোধূলিতে…।

তোমার জন্য এ হৃদয়ে ভালোবাসার ফুলসজ্জা সাজিয়ে রেখেছি। ফিরে এসো তুমি। একবার একবার একবার শুধু একবার…। শুধুই একবার…তোমার অপেক্ষায়…
ইতি
তোমার পরীমণি

[আমার এই চিঠি পড়ে যদি কারো মনে হয় এগুলো শুধুই লেখা তাহলে ভুল। এগুলো আমার হৃদয়ের কথা। একজন রবীন্দ্রনাথ প্রেমীর প্রেমের কথা।]