“দক্ষিণাঞ্চলের রোগীদের মুখে হাসি ফোঁটাতে আসছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী” : আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ

দক্ষিণাঞ্চলের আসহায়-দুঃখী রোগীদের মুখে হাসি ফোঁটাতে জননেত্রী প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বরিশালে আসছেন স্বাস্থ্য মন্ত্রী। মঙ্গলবার বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্বাস্থ্য সেবা উন্নয়ন কমিটির সভায় স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, দক্ষিণাঞ্চলবাসীর প্রতি প্রধানমন্ত্রীর অনেক মমতা। তাই আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় এসে এ অঞ্চলবাসীর ভ্যাগের পরিবর্তন ঘটিছেয়ে। ব্যাপক উন্নয়ন করা হয়েছে এ অঞ্চলের। তারই ধারাবহিকতায় তারই নির্দেশে এ অঞ্চলের গরীব-সাধারণ রোগীদের সমস্য দুর করতে বরিশালে শান্তির অগ্রদূত হিসেবে আসছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মাদ নাসিম।

আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্বাস্থ্য সেবা উন্নয়ন কমিটির সভায় উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য এ্যাড. তালুকদার মোহাম্মাদ ইউনুস, শেবাচিম হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ মুঃ কামরুল হাসান সেলিম, মেডিকেল কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ডাঃ শাব্বির আহম্মেদ, উপাধ্যক্ষ ডা. সৈয়দ মাকসুমুল হক, বিএমএ’র সভাপতি ডাঃ ইসতিয়াক আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক ডাঃ মনিরুজ্জামান শাহিন, শিক্ষক সমিতির সম্পাদক ডাঃ এসএম সারওয়ার, অধ্যাপক ডা. এএসএএস শরফুজ্জামান, অধ্যাপক ডাঃ সাইদুর রহমান, অধ্যাপক ডাঃ সেলিনা পারভিন, ডাঃ ভাস্কর সাহা, ডাঃ পিজুষ কান্তি দাস, ডাঃ তৈয়বুর রহমান, বিভাগীয় পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের পরিচালক হরি প্রশাদ পাল, রফিকুল ইসলাম, ডিপ্লোমা নার্সেস এসোসিয়েশনের বিভাগীয় সভাপতি মলিনা রানী মন্ডল, বিভাগীয় ও জেলা সম্পাদক ফরিদুন্নেছা, জেলা সভাপতি আসমা রেজওয়ানা কলি প্রমুখ।

সভায় বরিশালের অসহায় ও সাধারণ রোগীদের স্বাস্থ্য সেবার মান বৃদ্ধিতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়। এসময় চিকিৎসকরা সভার সভাপতি সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ’র কাছে বিভিন্ন দাবী তুলে ধরেন।

দাবী গুলোর মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য ছিলো, শেবাচিমকে বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নতি করণ, আইসিইউ ইউনিট নির্মাণ, হাসপাতাল ও কলেজের সাথে লিংক রোড র্নিমাণ, বিভিন্ন বিভাগের চিকিৎসক ও জনবল বৃদ্ধি, গ্রারজিউশেন ডিগ্রি চালু ও হাসপাতালে অধুনিক লিপট প্রদান।

এছাড়া নার্সদের পক্ষ থেকে ডিপ্লোমা নার্সেস এসোসিয়েশনের বিভাগীয় সভাপতি মলিনা রানী মন্ডল বিভিন্ন দাবী তুলে ধরেন। দাবী গুলোর মধ্যে উল্লেখ্য যোগ্য হলো, নার্সদের জন্য নার্সেস কোয়াটার, শেবাচিম সংলগ্নে নার্সদের জন্য হোস্টেল নির্মাণ, পরিবহন ব্যবস্থা, পোষ্ট গ্রাজুয়েশন ডিগ্রি চালু করা।

হাসানাত আবদুল্লাহকে আর অভিভাবক মানছেন না বরিশালের নেতারা

দুই ধারায় চলছে বরিশাল আওয়ামী লীগ। নেতৃত্বের দ্বন্দ্বে ক্ষমতাসীন এই দলটি পুরোপুরি বিভক্ত বরিশালে। ’৭৫ পরবর্তী সময় থেকে বরিশালে নৌকার মাঝি সাবেক চিফ হুইপ আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর হাত থেকে আওয়ামী লীগে পৃথক বলয় সৃষ্টি হয় ২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর। সেবার জাতীয় নির্বাচনের রাতেই গোপনে এলাকা ত্যাগ করার পর বরিশাল মহানগরে আলাদা বলয় সৃষ্টি করেন হাসানাতের হাত ধরেই আওয়ামী লীগে আসা সদ্য প্রয়াত এমপি সাবেক মেয়র শওকত হোসেন হিরণ। গুরু হাসানাতের দীর্ঘ অনুপস্থিতিতে ৩০টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগ নিজের মতো করে গুছিয়ে নেন হিরণ। দীর্ঘ প্রায় সাড়ে ৮ বছর পর সদর্পে বরিশাল ফিরলেও মহানগর আওয়ামী লীগকে আর বাগে নিতে পারেননি সাবেক কৃষিমন্ত্রী আবদুর রব সেরনিয়াবাতের পুত্র বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে হাসানাত।

জেলা সভাপতি হাসানাত আর সদ্য প্রয়াত মহানগর সভাপতি হিরণের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্য হয়ে ওঠে গত বছরের ১৫ জুন অনুষ্ঠিত সিটি নির্বাচনের পর। ওই নির্বাচনে পরাজয়ের জন্য হাসানাতকে দায়ী করে দেওয়া হিরণের বক্তব্যে স্পষ্ট হয়ে ওঠে বিভক্তি। মহানগর হাতছাড়া হলেও ১০ উপজেলা নিয়ে গঠিত জেলা আওয়ামী লীগের একক অধিপতি তিনিই। তবে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন সেরনিয়াবাতের দাবি, আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ শুধু বরিশাল নয়, পুরো দক্ষিণাঞ্চল আওয়ামী লীগের অভিভাবক। তার নেতৃত্বেই এগিয়ে যাচ্ছে এখানকার আওয়ামী লীগ।

মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক নিজামুল ইসলাম নিজামের মতে, হিরণের নেতৃত্বে অনেক দূর এগিয়েছে মহানগর আওয়ামী লীগ। তার হাতে গোছানো এই সংগঠনের নেতৃত্ব পর্যায়ে এখন দরকার তারই সহধর্মিণী সদর আসনের সদ্য নির্বাচিত এমপি জেবুন্নেছা আফরোজকে।

হাসানাতকে পাশ কাটিয়েই বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের রাজনীতি করার পক্ষে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজালুল করিম। তার দাবি একমাত্র দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়া আওয়ামী লীগের আর কোনো অভিভাবক নেই। সভানেত্রীর নির্দেশনায় আগামীতে বরিশাল আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী এবং একই সঙ্গে সরকারবিরোধী আন্দোলন মোকাবিলায় প্রস্তুতি নিতে চান তিনি।

আগে জেলা ও মহানগর একত্রে এক ব্যানারে দলীয় কর্মসূচি পালন করলেও শক্তি বাড়াতে এখন আলাদা কর্মসূচি পালন করছে বলে বিভেদ আড়াল করার চেষ্টা করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুস এমপি। তার দাবি মহানগর পৃথক একটি সাংগঠনিক ইউনিট হলেও এখন পর্যন্ত অভিভাবকত্ব হারাননি সাবেক চিফ হুইপ আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ।

বরিশাল এখন আর বিএনপির ঘাঁটি নেই দাবি করে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইউনুস এমপি বলেন, আগামীতে সরকারবিরোধী যে কোনো আন্দোলন মোকাবিলা করার জন্য প্রস্তুত এখনকার আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগ এক প্ল্যাটফর্মে ছিল এবং আগামীতেও যে কোনো পরিস্থিতিতে ঐক্যবদ্ধ থাকবে বলে প্রত্যাশা তার।

বরিশালে আগামীতে এই দলটি কোন ধারায় এবং কীভাবে পরিচালিত হবে, সেটাই এখন দেখার বিষয়।

সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন

বিসিসি’র ১৬ হাজার বৈদ্যুতিক বাতির সুবিধা পাচ্ছেনা নগরবাসী

বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ১৬ হাজার বৈদ্যুতিক বাতির সুবিধা পাচ্ছেনা নগরবাসী। নগরবাসীর অভিযোগ, নগরীর রাস্তাগুলোতে দেয়া বিসিসি’র বৈদ্যুতিক বাতির অধিকাংশই অচল। যার ফলে চরম ভোগান্তি পোহাচ্ছে নগরবাসী। পর্যাপ্ত আলোর অভাবে রাতে পথচারীদের চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। চুরি, ডাকাতি, ছিনতাইসহ নগরবাসীর প্রাণনাশের ভয় তো রয়েছেই।

অপরদিকে সৌন্দর্য হারাচ্ছে রাতের বরিশাল নগরী। বিসিসি মেয়র আহসান হাবিব কামাল নগরীর সৌন্দর্য বর্ধনে নানা পদক্ষেপ নিয়েছেন। কিন্তু তার পরিকল্পনা ভেস্তে যাচ্ছে কর্তব্য পালনে উদাসীন ও অসাধু বিসিসি’র কিছু কর্মকর্তা ও কর্মচারীর জন্য, এমনটাই ধারনা নগরবাসীর। এলাকার বৈদ্যুতিক বাতি অচল এ মর্মে বিসিসি’র বিদ্যুৎ শাখায় বার বার অভিযোগ করেও কোন সুরাহা পাচ্ছেনা নগরবাসী। কিন্তু বিসিসি’র বিদ্যুৎ শাখার নির্বাহী প্রোকৌশলী হুমায়ুন কবিরের এ ব্যাপারে রয়েছে ভিন্ন মত।

তিনি নগরবাসীর অভিযোগের কথা স্বীকার করে বলেন, জনবলের চরম সংকট এবং ৩০টি ওায়ার্ডের বৈদ্যুতিক লাইট পোস্টগুলো পর্যবেক্ষণের যথেষ্ট সরঞ্জাম নেই তাদের। যার কারণে সঠিকভাবে কাজ করা সম্ভব হচ্ছে না। এখন বর্ষা মৌসুম তাই এ সময়টায় সব থেকে বেশি বৈদ্যুতিক বাতির প্রয়োজন। বর্ষার সামান্য পানি পড়লেই বাতিগুলো বিকল হয়ে পড়ে। কিন্তু বাতিগুলো সংরক্ষণেও নেই বিসিসি’র কোন পদক্ষেপ।

নগরীর ২৪ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা গোলাম রব্বানী আছিফ বলেন, প্রায় ৫ মাস যাবত ১২ ও ২৪ নং ওয়ার্ডের মাঝখানের খ্রিস্টান পাড়ার সামনের সড়কের লাইট পোস্টের বাতিগুলো অচল। বিসিসিতে বারবার অভিযোগ করেও কোন লাভ হয়নি।
তিনি আরও বলেন, এখন বর্ষা মৌসুম, এই ওয়ার্ডের অনেক ভাঙ্গা রাস্তা রয়েছে যেখানে বৃষ্টির পানি জমে মরণ ফাঁদের সৃষ্টি হচ্ছে। নিচে হাঁটু সমান পানি উপরে অন্ধকার এমন অবস্থায় অনেক সময় এলাকাবাসীকে মারাত্মক দুর্ঘটনার স্বীকার হতে হয়।

নগরীর কাউনিয়া ২ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোঃ সবুজ বলেন, বাসার সামনের বাতিটি প্রায় ৩ মাস যাবৎ বিকল কাউন্সিলের কার্যালয় ও বিসিসিতে বার বার যাতায়াত করেও কোন ফল হয়নি।

বিসিসি’র বিদ্যুৎ শাখার তথ্য মতে, বরিশাল নগরীতে প্রায় ৩ হাজার লাইট পোষ্ট রয়েছে। যা সাবেক মেয়র শওকত হোসেন হিরনের সময় ২শ’ ৮ কোটি টাকা বরাদ্দের একটা অংশ দিয়ে করা হয়েছে। যেখানে প্রায় ১৬ হাজার বৈদ্যুতিক বাতি রয়েছে। আর এ সকল বাতির মধ্যে এনার্জি সেভিং বাল্ব, টিউব লাইটসহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের বাতি রয়েছে। বর্তমান মেয়র আহসান হাবিব কামালের সময় ২শ’ ২০টি লাইট পোস্ট স্থাপন করা হয়েছে। চলমান রয়েছে ২শ’ ১০টি, যার ১টি পোস্ট নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা। বিসিসি’র বিদ্যুৎ শাখা আরও জানান, এতগুলো বাতির পর্যবেক্ষণে রয়েছে মাত্র ৯ জন লাইন ম্যান ও ২ জন বৈদ্যুতিক মিস্ত্রি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিসিসি’র এক কর্মকর্তা জানান, সাবেক মেয়র শওকত হোসেন হিরনের সময় নগরবাসীর এমন অভিযোগ ছিলনা বললেই চলে। তিনি আরও বলেন, বিদ্যুৎ শাখার প্রায় ৬৫ জন কর্মচারী ও কর্মকর্তা রয়েছেন। এরা সকলে যদি কাজ করে তবে ৩০টি ওয়ার্ডে সঠিকভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ দেয়া কঠিন কিছু হবেনা।

নগরীর ১২ নং ওয়ার্ডের এক ব্যবসায়ী কামাল বলেন, চলাচলের রাস্তা অন্ধকারে রেখে খ্রিস্টান পাড়া থেকে নদীর পাড় পর্যন্ত সড়কটিতে স্থাপিত লাইট সচল রয়েছে। সেখানে সাবেক মেয়র শওকত হোসেন হিরনের এক আত্মীয়ের সমিল ও বাগান রয়েছে তাই।

বিসিসি’র বিদ্যুৎ শাখার প্রকৌশলী উমর ফারুক বলেন, কারও অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট এলাকার কাউন্সিলরের সাথে যোগাযোগ করলে ভাল হবে। কারণ কাউন্সিলরগণই এ বিষয় সাহায্য করবেন।

তিনি আরও বলেন, ২০১৫ এর মার্চ মাসে পিডিবি এবং বিসিসি’র যৌথ উদ্যোগে ২ কিলোমিটার রাস্তায় সোলার এবং ৩০ কিলোমিটার নন সোলার বৈদ্যুতিক বাতি স্থাপিত হবে। যার সুবিধা বর্ধিত এলাকাবাসীও পাবে।

এ বিষয়ে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিখিল চন্দ্র দাস বলেন, বিষয়টি জানা ছিলনা, এখন খোঁজ-খবর নিয়ে দ্রুত সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবো।

মুলাদীতে টাকা নিয়ে এক গৃহবধু উধাও

মুলাদী উপজেলার সফিপুর ইউনিয়নের পশ্চিম বোয়ালিয়া গ্রামের মৃত্যু তফেল হাওলাদারের পুত্র আব্দুল মন্নান হাওলাদারের (৪৫) ১ম স্ত্রী তাছলিমা বেগম (৪০) গত শনিবার রাতে বাড়ি থেকে চলে গেছেন। তিনি নগদ টাকাসহ তিন লাখ টাকার মালামাল নিয়ে পালিয়েছেন বলে তার স্বামী আব্দুল মন্নান সিকদার বোয়ালিয়া পুলিশ ফাড়িতে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
জানা গেছে, একই গ্রামের দলিল বেপারীর মেয়ে তাছলিমাকে অনুমান ২৫ বছর পূর্বে বিবাহ করে, বিবাহের পরে তাদের কোন সন্তানাদী না হওয়ায় অনুমান ২/৩ মাস পূর্বে মন্নান তাছলিমার অনুমতি নিয়ে ২য় বিবাহ করে। ২য় স্ত্রী মোসাঃ রাজিয়া বেগম গর্ভবতী হয়েছে শুনিয়া তাছলিমা তার ভাই দেলোয়ার বেপারী (৫০), চাচাতো ভাই শাহ আলম বেপারী (৫৫) দেলোয়ারের স্ত্রী শাহনাজ সহ কয়েক জনের কু-পরামর্শে উপরোক্ত টাকা পয়সা, স্বর্নালংকার ও কাপড় চোপড় নিয়ে মন্নানের বাড়ী থেকে পালিয়েছে তাছলিমা।
তাছলিমাকে বিভিন্ন জায়গায় খোজ করে না পেয়ে মন্নান হাং বোয়ালিয়া পুলিশ ফাঁড়িতে গিয়ে রাত্র অনুমান ১২ টায় অভিযোগ করে।

ফাঁড়ির ইনচার্জ মোঃ নুরুল হক অভিযোগ গ্রহনের কথা স্বীকার করে বলেন অভিযোগের বিষয় সরোজমিনে গিয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান।

কবি বিজয় গুপ্তের প্রতিষ্ঠিত মনসা মন্দির এখন ভ্রমন পিপাসুদের দর্শনীয় স্থান

মধ্যযুগের কবি বিজয় গুপ্তের প্রতিষ্ঠিত মনসা মন্দির ভ্রমন পিপাসুদের দর্শনীয় স্থানে পরিণত হয়েছে। ইতিমধ্যেই দর্শনাথীদের ভিড়ে মুখরিত হয়ে উঠেছে মন্দির আঙ্গিনা। ১টন ওজনের স্বর্ণাভ পিতলের মনসা মূর্তি ও মন্দিরের শৈল্পীক কারুকাজ দর্শনার্থীদের মুগ্ধ করছে। মন্দির আঙ্গিনায় বিশাল দীঘিতে ভ্রমন পিপাসুদের অতিরিক্ত আনন্দ দিতে আধুনিক নৌকার ব্যবস্থাও রয়েছে।

ঋতু শূন্য বেদশশী অর্থাৎ ১৪০৬ বঙ্গাব্দ সুলতান হোসেন শাহ্’র শাসনামলে সাড়ে পাঁচশ বছর পূর্বে কবি বিজয় গুপ্ত মন্দিরটি প্রতিষ্ঠা করেন। ২০০৪ সালের ২৫ ডিসেম্বর ১টন ওজনের স্বর্ণাভ পিতলের মনসা মূর্তি স্থাপন করা হয়। ২০১৩ সালের ১৬ই আগষ্ট নবরুপে মনসা মন্দিরটি পূর্ন প্রতিষ্ঠার পর উদ্ধোধন করা হয়। মন্দিরের সামনে নাট মন্দিরের পূর্ন নির্মান কাজ জেলা পরিষদের অর্থায়নে শিঘ্রই শুরু করা হবে। মন্দিরের সম্মুখ ভাগে এলজিইডির অর্থায়নে নতুন রাস্তা নির্মান করা হয়েছে। মধ্যযুগের কবি বিজয় গুপ্তের প্রতিষ্ঠিত মনসা মন্দির দেখতে দেশের যে কোন স্থান থেকে আসতে হলে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের গৌরনদীতে নেমে ৭ কিঃ মিঃ পশ্চিমে বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার গৈলায় আসতে হবে।

ইতিমধ্যেই ভ্রমন পিপাসু পর্যটকদের জন্য মন্দির আঙ্গিনায় বিশাল দীঘিতে নাঠৈ গ্রামের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোস্তাফিজুর রহমান দিনু ফাইবার নৌকা প্রদান করেছেন। মাত্র ১০ টাকার বিনিময়ে নৌকাটিতে ভ্রমন পিপাসুরা ভ্রমন করতে পারবেন। দীঘির চারপাশে ভ্রমন পিপাসু ও দর্শনার্থীদের জন্য বিশ্রামাগার ও পাকা সড়ক নির্মানের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও ২৬ থেকে ২৮ শ্রাবন (১২-১৪ই আগষ্ট) তিনদিন ব্যাপী বাৎসরিক রয়ানী গান শেষে ৩১ শ্রাবন( ১৭ই আগষ্ট) বাৎসরিক মনসা পূজা অনুষ্টিত হবে। পূজায় অর্ধশতাধিক বলিদান শেষে সারাদিন ভক্তদের জন্য প্রসাদের ব্যবস্থা থাকবে।

এবছর মনসা পূজায় কবি আসাদ চৌধুরিসহ বিশিষ্ট জনদের উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। ভারতসহ বিভিন্ন দেশের হাজার হাজার ভক্তবৃন্দের সমাগম ঘটে এ মন্দির আঙ্গিনায়। মন্দিরের উন্নয়ন ও পূজা পরিচালনার জন্য কবি বিজয় গুপ্ত স্মৃতি রক্ষা মনসা মন্দির সংরক্ষন ও উন্নয়ন কমিটির ৩৫ জন সদস্য রয়েছে।

এ ব্যাপারে মন্দির কমিটির সভাপতি সাবেক অধ্যক্ষ শংকর লাল বাড়ৈ বলেন, ইতিমধ্যে মনসা মঙ্গল কাব্যের রচয়িতা ও মধ্যযুগের কবি বিজয় গুপ্তের প্রতিষ্ঠিত মনসা মন্দিরটি দক্ষিণ বঙ্গের দর্শনীয় স্থান হয়ে উঠেছে। এখানে ১টন ওজনের স্বর্ণাভ পিতলের মনসা মূর্তি ও মন্দিরের শৈল্পীক কারুকাজ দর্শনার্থীদের মুগ্ধ করছে।

// এস এম শামীম, আগৈলঝাড়া //

বাকেরগঞ্জে ১৭ লিটার মদসহ ২ নারী আটক

বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার পাদ্রিশিবপুর এলাকা থেকে ১৭ লিটার চোলাই মদসহ দুই নারীকে আটক করা হয়েছে। রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে তাদের আটক করে বাকেরগঞ্জ থানা পুলিশ।

আটকরা হলেন, বাকেরগঞ্জ উপজেলার পাদ্রিশিবপুর এলাকার টুল টুল দি রোজারিওর স্ত্রী ময়না দি রোজারিও (২৫) ও রেমন গোমেজের স্ত্রী আশ্ গোমেজ (৩৫)।

বাকেরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল ইসলাম পিপিএম জানান, আটক দুই নারী বাড়িতে বসে মাদক ব্যবসা করে আসছিলেন। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ১৭ লিটার চোলাই মদসহ তাদের আটক কর‍া হয়।

আটক দুই নারীর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হবে বলে জানান ওসি।

সোমবার বাউফলে জামায়াতের আধাবেলা হরতাল

নেতাকর্মীদের আটক ও রিমান্ডে নেওয়ার প্রতিবাদে পটুয়াখালীর বাউফলে আধাবেলা হরতালের ঘোষনা দিয়েছে জামায়াতে ইসলামী।

রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে বাউফল উপজেলা জামায়াতের এক জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বাউফল উপজেলা জামায়াতের আমির মাওলানা মো. ইছাহাক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এখন থেকে সেবাতন্ত্র বলুন : শিল্পমন্ত্রী

সরকারি কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্য শিল্পমন্ত্রী আলহাজ্ব আমির হোসেন আমু বলেছেন, দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সেবার মনভাব নিয়ে আপনাদের কাজ করতে হবে। ব্রিটিশ আমল থেকে আমরা শুনে এসেছি আমলাতন্ত্র। এখন থেকে দেশের উন্নয়নের লক্ষে এই আমলাতন্ত্রের নাম পরিবর্তন করে সেবাতন্ত্র রাখতে হবে। মনে রাখতে হবে একটি প্রকল্প প্রনয় থেকে শুরু করে বাস্তবায়ন সকল কাজই আপনাদের হাত ধরে হয়। সুতরং আপনাদের এ ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে।

রবিবার দুপুরে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে জেলা উন্নয় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

জেলা প্রশাসক মো. শাখাওয়াত হোসেনের সভাপতিত্বে পুলিশ সুপার মো. মজিদ আলী, জেলা পরিষদ প্রশাসক সরদার মো. শাহ আলম, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সুলতান হোসেন খান অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন।

বরিশাল নগরীতে ২ শিবির কর্মী আটক

বরিশাল নগরীতে ইসলামী ছাত্রশিবির বিক্ষোভ মিছিল শেষে দুইজনকে আটক করছে থানা পুলিশ। আটককৃতদের নাম শাহজালাল ও ফরিদউদ্দিন। রোববার দুপুরে বরিশাল নগরীর বটতলা এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

শিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি শফিকুল ইসলাম মাসুদসহ ১৯জনকে আটকের প্রতিবাদে এর আগে ওই এলাকায় ইসলামী ছাত্রশিবির বরিশাল মহানগরী একটি মিছিল করে।

কোতোয়ালী থানার সেকেন্ড অফিসার এস.আই গোলাম কবির জানান, রবিবার দুপুরে শিবির সমর্থিতরা বটতলা এলকায় অঘোষিত একটি ঝটিকা মিছিল করার চেষ্টা চালাচ্ছে এমন খবর পুলিশ জানতে পেরে ঘটনাস্থলে যায়। এসময় পুলিশ দেখে কতিপয় যুবক দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ায় চেষ্টা করলে শাহজালাল ও ফরিদউদ্দিনকে আটক করা হয়।

প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদে তাদের ছাত্রশিবিবের সাথে জড়িত থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে বলে জানান এস.আই গোলাম কবির।

মাওয়া ট্রাজেডি : বরিশালে পিনাকের ১১ লাশ উদ্ধার

মাওয়ার পদ্মা নদীতে নিমজ্জিত পিনাক-৬ লঞ্চের হতভাগ্য আরো ৫ যাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ, বাকেরগঞ্জ ও হিজলা থানা পুলিশ। এ নিয়ে বরিশালে সর্বমোট ১১ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

জেলা পুলিশ সুপার একেএম এহসান উল্লাহ্ জানান, শুক্রবার সকালে মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার উলানিয়া ইউনিয়নের মেঘনা নদী থেকে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার হওয়া মরদেহটি লঞ্চ ডুবির কন্ট্রোল রুমের উদ্দেশ্যে পাঠানো হয়েছে। সকাল নয়টার দিকে স্থানীয়রা যুবকের মরদেহ দেখে থানায় খবর দিলে পুলিশ তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরহেদটি উদ্ধার করে। এসময় সাথে থাকা মোবাইল সিমের মাধ্যমে জানতে পারেন হতভাগ্য যুবকের বাড়ি মাদারীপুরের শিবচর উপজেলায়। তবে তার নাম জানতে পারেননি।

এর আগে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দশটার দিকে হিজলা উপজেলার মেঘনা নদীর বালুচর থেকে এক শিশু, এক নারী ও এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এর আগে ওইদিন বিকেলে বাকেরগঞ্জ উপজেলার কাটাদিয়া নদী থেকে এক কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার হওয়া মরদেহগুলো শুক্রবার সকালে মাদারীপুরের পাঁচ্চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কন্ট্রোল রুমে পাঠানো হয়েছে।

এর পূর্বে বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনজন ও বুধবার তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এরমধ্যে জাকির হোসেন (২৭) নামের একজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। জাকির জেলার বাকেরগঞ্জ উপজলার কৃষ্ণকাঠী গ্রামের আব্দুল হামিদ মিয়ার পুত্র।

পুলিশ সুপার আরো জানান, লাশের সন্ধানের জন্য বরিশালের প্রতিটি নদীতে সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশের পক্ষ থেকে বিশেষ টহল অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

আগামী ২৪ আগস্ট বরিশালের দুটি ইউনিয়নের উপ-নির্বাচন

বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার দেহেরগতি ও উজিরপুর উপজেলার ওটরা ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচন আগামী ২৪ আগস্ট অনুষ্ঠিত হবে। দেহেরগতি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে ৪ জন ও ওটরা ইউনিয়নে ৫জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধীতা করছেন।

উপজেলা রিটানিং অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, দেহেরগতি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন-ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী জসিম উদ্দিন শুভ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার রত্তন আলী শরীফ (বীর প্রতীক), উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক প্রয়াত ইউপি চেয়ারম্যান আতাউর রহমান খান বাদলের স্ত্রী নায়লা খানম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মশিউর রহমান। এ ইউনিয়নে ৯টি কেন্দ্রে ১৪ হাজার ৩১২ জন ভোটার রয়েছেন। ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান খান বাদল গত ২০ এপ্রিল আকস্মিক ভাবে মৃত্যুবরন করায় শূণ্য হওয়া চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

ওটরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্ধীতা করছেন, ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আব্দুল খালেক রাঢ়ী, বিএনপি নেতা মোঃ কামরুজ্জামান টুলু, আব্দুল মান্নান, গোলাম মাহমুদ ও ওয়ার্কাস পার্টির নেতা ফিরোজ খান। ওই ইউনিয়নের ১০টি কেন্দ্রে মোট ভোটার রয়েছেন ১৮ হাজার ৩৪জন। গত ২৩ মার্চ অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান ইকবাল উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় শূন্য হওয়া চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন হচ্ছে।

বরিশাল পলিটেকনিক ইনষ্টিটিউটে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

বরিশাল পলিটেকনিক ইনষ্টিটিউটে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্ছিনিয়ারিং প্রথম বর্ষেও দ্ধিতীয় শিফটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকালে বরিশাল পলিটেকনিক ইনষ্টিটিউট ও সরকারী টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ভর্তি পরীক্ষায় ষ্টিটিউটের সাতটি বিষয়ে ১ হাজার ৬ শত শিক্ষার্থী অংশ গ্রহন করেন। সিভিল ইলেকট্রিক্যাল মেকানিক্যাল ইলেকট্রনিক্স পাওয়ার কম্পিউটার ও ইলেকট্রমেডিক্যাল প্রতিটি বিভাগে ৪৮ জন করে মোট তিন শত ৩৬ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হতে পারবে। প্রতিটি আসনের জন্য ৫ জন শিক্ষার্থীকে লড়াই করতে হবে।