ছাত্রদলের সভাপতি’র দৌড়ে গৌরনদীর আরাফাত বিল্লাহ খান

বিএনপির ভ্যানগার্ড হিসেবে খ্যাত জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল বর্তমানে নেতৃত্বহীন। পবিত্র ঈদ উল আযহা’র পরে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের কমিটি হওয়ার সম্ভাবনা আছে বলে জানা গেছে।

ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে সম্ভাব্য প্রার্থীর মধ্যে রয়েছেন- বিলুপ্ত কমিটির স্কুলবিষয়ক সম্পাদক আরাফাত বিল্লাহ খান, সাবেক সহসাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুল আলম টিটু, সহ-তথ্যবিষয়ক সম্পাদক মামুন খান, বৃত্তি ও ছাত্র কল্যাণবিষয়ক সম্পাদক কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ, মুক্তিযোদ্ধা গবেষণাবিষয়ক সম্পাদক আমিরুল ইসলাম সাগর, সহ-অর্থবিষয়ক সম্পাদক আশরাফুল আলম ফকির লিঙ্কন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি আল মেহেদী তালুকদার, সিনিয়র সহসভাপতি তানভীর রেজা রুবেল, সহসভাপতি আমিনুর রহমান আমিন, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, ইকবাল হোসেন শ্যামল, রিজভী আহমেদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহসভাপতি সুরুজ।

জানা গেছে ছাত্রদলের শীর্ষ নেতৃত্ব নির্ধারনে মেধাবী, চৌকশ, অতীতে রাজপথে অবস্থান, কর্মীবান্ধব ছাত্রনেতার খোঁজে দলটির শীর্ষ নেতারা।

সদ্য বিলুপ্ত কমিটির স্কুল বিষয়ক সম্পাদক আরাফাত বিল্লাহ খান

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পারিবারিকভাবেই জাতীয়তাবাদী রাজনীতির রক্তবহন করে আরাফাত। পরিবারের অধিকাংশ সদস্য বিএনপির রাজনীতির সাথে সরাসরি যুক্ত এবং পদায়িত রয়েছে।

তার মেঝ ভাই আশরাফ বিল্লাহ খান, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-সাধারন সম্পাদক। ছোট ভাই আরিফ বিল্লাহ খান তেজগাঁও কলেজের ছাত্রদলের রাজনীতিতে যুক্ত আছে।

চাচা মিজানুর রহমান খান মুকুল বরিশাল উত্তর জেলা বিএনপির সদস্য, সেই সাথে তিনি সাবেক ভিপি সরকারি গৌরনদী কলেজ ছিলেন এবং সভাপতি, গৌরনদী উপজেলা ছাত্রদল। তার আরেক চাচাতো ভাই মনিরুজ্জামান স্বপন বর্তমানে ডেনমার্ক বিএনপির সাধারন সম্পাদক। তিনিও সাবেক ভিপি ও সভাপতি ছিলেন গৌরনদী উপজেলা ছাত্রদলের।

শিক্ষা জীবন

তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ থেকে অনার্স মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন। আরাফাত সদ্য সাবেক কমিটির স্কুল বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন। এর আগে তিনি কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সদস্য, যুগ্ন সম্পাদক জাসাস, শেখ মুজিব হল শাখা ছাত্রদলের সদস্য ছিলেন।

রাজনৈতিক কর্মজীবন

জানা যায়, ২০১৩, ১৪-১৫ সালে দেশব্যাপী হরতাল, অবরোধের বিভিন্ন মিছিলে তিনি সর্বোচ্চ উপস্থিতি ছিলেন। এছাড়াও একাধিকবার বিশ্ববিদ্যালয় চত্তরে হামলার শিকার হন। বিভিন্ন মামলায় একাধিকবার কারাবরণ করেন। সেই সাথে তিনি যুক্তরাষ্ট্র সরকারের আমন্ত্রণে আন্তর্জাতিক ভিজিটিং লিডারশীপ প্রোগ্রামে অংশগ্রহন করেন। সেখানে দেশের ইতিহাসে ছাত্রদলের একমাত্র প্রতিনিধি হিসেবে দলের পক্ষে অংশগ্রহন করেন এবং দলের নেতাকর্মীদের হামলা-মামলা ও নির্যাতন সম্পর্কে দলের পক্ষে বক্তব্য রাখেন।

এ বিষয়ে আরাফাত বিল্লাহ খান বলেন, ছাত্রদলের মত এত বৃহৎ একটি ছাত্রসংগঠন পরিচালনা করতে হলে শুধুমাত্র আন্দোলন সংগ্রামের অভিজ্ঞতাই যথেষ্ট নয়, বরং এগুলোর সাথে সাথে সাংগঠনিক ও সামাজিক কর্মের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। আমি বিগত দিনে সবকটি আন্দোলনে সক্রিয় থেকে নেতৃত্ব দিয়েছি ও তিনবার কারাবরণ করেছি।

তিনি আরও বলেন, বিগত জুয়েল–হাবিব পরিষদে বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সাংগঠনিক টিমের সাথে কাজ করেছি। বর্তমান বিলুপ্ত কমিটির একমাত্র সম্পাদক আমি যার বিভাগ অনুযায়ী সুনির্দিষ্ট কাজ হয়েছে। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমানের ৫০,৫১ ও ৫২ তম জন্মদিনে স্কুল বিষয়ক প্রকাশনা করে সারা বাংলাদেশে বিতরণ করা হয়েছে। এর পাশাপাশি আমি যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল এর রাজনৈতিক ফেলো। আমি ২০১৫ সাল থেকে শুরু করে এ যাবত পর্যন্ত সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহনে ৫০টির অধিক রাজনৈতিক নেতৃত্ব উন্নয়ন বিষয়ক কর্মশালায় প্রশিক্ষণ প্রদান করেছি। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজ উদ্দ্যোগে ২১টি নির্বাচনী আসনে ইলেকশন ক্যাম্পেইন ম্যানেজমেন্ট ও পোলিং এজেন্ট ট্রেনিং করিয়েছি। এছাড়া ঢাকার ভেতরে অনেক সামাজিক সমস্যা প্রতিকারে কাজ করেছি যার ফলে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের আমন্ত্রণে তরুণ নেতা হিসেবে তাদের দেশ ভ্রমণ করে এসেছি।

তিনি বলেন, এর বাইরে দীর্ঘদিন আমি সাংস্কৃতিক অঙ্গনে জড়িত রয়েছি। অতীতে যেহেতু আমার সফলতা রয়েছে সেহেতু আগামীতে আমার নানামুখী দক্ষতা সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলকে আরও ছাত্রবান্ধব, জনপ্রিয় ও অপরাপর ছাত্রসংগঠনের তুলনায় অধিকতর গ্রহনযোগ্য করে তুলবে বলে আমার বিশ্বাস। সংগঠন গোছানোর স্বার্থে ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন বেগবান করে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে সম্মানিত ভোটারবৃন্দ আমাকে নির্বাচিত করবেন বলে আশা করি।

পরাধীন হয়ে আছি, কোনো অধিকার নেই: ফখরুল

কাগজে কলমে পরাধীন নয় কিন্তু পরাধীন হয়ে আছি, কোনো অধিকার নেই বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার সন্ধ্যায় রমনাস্থ ইঞ্জিনিয়ার্স ইনিস্টিটিউশনে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘স্বাধীনতার মাধ্যমে মুক্ত পতাকা পেলেও শাসকরা তাদের চরিত্র বদলায়নি। অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে নজরুলের কবিতা সাহস যোগায়। তার কবিতা আন্দোলিত করে উজ্জীবিত করে।’

তিনি বলেন, ‘ইতালীয় নাগরিক তাভেল্লা সিজার হত্যার পর বিচার বিভাগীয় তদন্ত ও জাতীয় ঐক্যের কথা বলেছিলাম। অথচ সরকার সেসময় কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। কোনো তদন্ত ছাড়া একচেটিয়া ভাবে বিএনপিকে দোষারোপ করা হচ্ছে। তার মানে প্রকৃত দোষীদের আড়াল করছে সরকার।’

তিনি আরও বলেন, ‘কাগজে কলমে পরাধীন নয় কিন্তু পরাধীন হয়ে আছি। আজ কোনো অধিকার নেই। শফিক রেহমান, মাহমুদুর রহমান, মাহমুদুর রহমান মান্নাকে বিনা দোষে আটকে রাখা হয়েছে। ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য এমন করা হচ্ছে। ভিন্নমত নিয়ন্ত্রণে দমননীতি অবলম্বন করছে তারা।’

পরিকল্পিতভাবে বিএনপিকে ধ্বংস করার জন্য সরকার কাজ করছে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘মামলা দিয়ে কিভাবে খালেদা জিয়াকে অন্তরীণ করা যায় সে কাজ করছে সরকার। সব ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। যা কিছু ঘটে বিএনপির ওপর দায় চাপানো হচ্ছে।’

সে সময় ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘সংবাদপত্রে নজরুল নেই। বিশেষ ক্রোড়পত্রে নেই, কোনো প্রবন্ধে নেই। অথচ তিনি আমাদের জাতীয় কবি। টেলিভিশনেও তাকে অবহেলা করা হচ্ছে। এর জবাব সরকারকে অবশ্যই দিতে হবে।’

আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন- বিএনপিপন্থী বুদ্ধিজীবী ও গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, সাংবাদিক নেতা আবদুল হাই শিকদার, বিএনপির অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আবদুস সালাম, যুবদল সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, ছাত্রদল সভাপতি রাজিব আহসান প্রমুখ।

গৌরনদীতে বিএনপির নেতা কর্মিদের একযোগে পদত্যাগ করার হুমকি

বিশেষ প্রতিনিধি : আগামী ৩০ সেপ্টেম্বার উপজেলা বিএনপির নতুন কমিটি গঠন করা হবে। তাই চাঞ্চল্যতা ফিরতে শুরু করেছে তৃনমূল ও ত্যাগী বিএনপি নেতাকর্মিদের মাঝে।বরিশালের গৌরনদী উপজেলা বিএনপির বর্তমান সাধারন সম্পাদক আবুল হোসেন মিয়াকে নিয়ে নানা গুঞ্জন চলছে রাজনৈতিক মাঠে। বিগত দিনের প্রশ্নবিদ্ধ কর্মকান্ডের পরেও সুযোগ সন্ধানী ও সুবিধাবাদি ওই নেতাকে উপজেলা বিএনপির সভাপতির পদ প্রদান করা হলে তৃনমূল ও ত্যাগী নেতা কর্মিরা একজোগে পদত্যাগ করবেন বলে গুঞ্জন ওঠেছে। দলীয় হাই কমান্ড কেন্দ্রে বসে কমিটি না করে তৃনমূলের ত্যাগী ও নির্যাতিত নেতাকর্মিদের সাথে নিয়ে সচ্ছ সুন্দর ও গ্রহনযোগ্য একটি কমিটি উপহার দেয়ার জন্য অনুরোধ জানান বিএনপির তৃনমূল ও ত্যাগী নেতা কর্মিরা।

গৌরনদীতে ছাত্রদলের আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ

গৌরনদীতে ছাত্রদলের আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ

ছাত্রদলের নবগঠিত কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ, দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে গত বৃহস্পতিবার সকালে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের গৌরনদী বাসষ্ট্যান্ডে আনন্দ মিছিল শেষে মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছে।

উপজেলা, পৌর ও কলেজ ছাত্রদলের উদ্যোগে সকাল দশটায় আনন্দ মিছিল শেষে মিষ্টি বিতরণ করা হয়। দলীয় কার্যালয়ের সম্মুখে উপজেলা ছাত্রদল নেতা কাজী সোহাগের সভাপতিত্বে আনন্দ মিছিল শেষে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন ছাত্রদল নেতা মনিরুজ্জামান মনির, সাহিদ হাওলাদার, জাভেদ সেলিম, আসিফ ইকবাল, বাপ্পী, আবু হানিফ, সাদ্দাম হোসেন, ইমরান খান, সোহেল, রাজু, রুবেল খলিফা, সজিব খলিফা, জহিরুল ইসলাম, সোহেল ফকির, মোঃ সাজু, জুয়েল রানা প্রমুখ।

দুবাই বিএনপি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে খালেদা জিয়ার সাক্ষাৎ

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন দুবাই বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল।

শনিবার রাতে রাজধানীর গুলশানে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয়।

দুবাই বিএনপির সভাপতি আবদুল্লাহ আল মামুন এবং সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলামের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের এ প্রতিনিধি দল রাত সাড়ে ৯ টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত খালেদার কাছে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রমসহ বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন।

এসময় খালেদা জিয়া জনগণের ভোটাধিকার রক্ষার আন্দোলনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

লতিফের ফাঁসি চেয়ে একমঞ্চে আওয়ামী লীগ-বিএনপি-জামায়াত

দলীয় নীতি পরস্পর বিরোধী থাকলেও পবিত্র হজ, তাবলিগ জামায়াত ও হযরত মুহাম্মদ (সা.) সম্পর্কে অশালীন মন্তব্যকারী আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেপ্তার ও তার ফাঁসির দাবিতে একমত পোষণ করেছে প্রধান তিনটি রাজনৈতিক দল।

তার ফাঁসির দাবিতে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জামায়াত কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চৌহালীতে বিক্ষোভ সমাবেশ এবং লতিফ সিদ্দিকীর কুশপুত্তলিকা পুড়িয়েছে।

সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার মুসলমানগণ ব্যানারে বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা বেবিস্ট্যান্ড থেকে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীর নেতাকর্মীসহ সাধারণ জনতা মিছিল বের করে।

উপজেলা সদর প্রদক্ষিণ শেষে চৌহালী ডিগ্রি কলেজে সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

মাওলানা আশরাফ আলীর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি হযরত আলী মাস্টার, উপজেলা বিএনপির সভাপতি আনোয়ার হোসেন, উপজেলা জামায়াতের আমির আব্দুর হালিম, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সম্পাদক বাবুল আকতার, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক ইদ্রিস আলী মাস্টার, বিএনপি নেতা অধ্যাপক হুমায়ুন আহমেদ, আব্দুস সাত্তার, জামায়াত নেতা অধ্যাপক রবিউল ইসলাম, আব্দুল কুদ্দুস, ইমাম সমিতির সভাপতি আব্দুল লতিফ প্রমুখ।

বক্তারা সবাই লতিফ সিদ্দিকীর ফাঁসির দাবি করেন। আরটিএনএন

আগৈলঝাড়ায় বিএনপির কর্মী সভা অনুষ্ঠিত

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় বিএনপির কর্মী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা বিএনপির সভাপতি আ.লতিফ মোল্লার কালুপাড়ার বাড়িতে তার সভাপতিত্বে কর্মী সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির নিবার্হী কমিটির সদস্য ইঞ্জিনিয়ার আবদুস সোবহান।

কর্মী সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি কবির তালুকদার, সাধারন সম্পাদক আফজাল শিকদার,সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুল ইসলাম মাহবুব, উপজেলা যুবদল সভাপতি আলী হোসেন স্বপন ভুইয়া, সাধারন সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম টিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক শিপন হাওলাদার, তাতীদল নেতা মো.হাবিব বালী, ইউনিয়ন বিএনপি নেতা আহসান জামিল, নবীন সরকার, আ. হানিফ বখতিয়ার, ফিরুজুর রহমান লালু, ছাত্রদল নেতা আবু সায়েদ, আ.রাজ্জাক প্রমুখ।

নির্বাচন হাওয়া নেই কিন্তু বিএনপি নেতার দিনব্যাপী গণসংযোগ!

আসছে আন্দোলন সংগ্রামে দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষে ও ঈদ-উল আযহা উপলক্ষে নেতাকর্মীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য তৃণমূল পর্যায়ে গণসংযোগ শুরু করেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা।

তারই ধারাবাহিকতায় গত বুধবার দিনভর জেলার গৌরনদী উপজেলার সরিকল ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক গণসংযোগ ও পথসভা করেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, বরিশাল সদর উত্তর জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও গৌরনদী উপজেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সোবহান।

সকাল দশটায় বাটাজোর বন্দরে গণসংযোগের পর সরিকল বন্দর, চন্দ্রহার, শাহজিরাসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ ও শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে বিকেলে ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম সুজনের সভাপতিত্বে তার বাড়িতে অনুষ্ঠিত উঠান বৈঠকে প্রধান অতিথি হিসেবে ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সোবহান বক্তব্য রাখেন।

সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান মঞ্জুর হোসেন মিলন, আকতার হোসেন বাবুল, পৌর বিএনপির সাধারন সম্পাদক শাহ আলম ফকির, আগৈলঝাড়া উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক আফজাল হোসেন সিকদার, উপজেলা যুবদলের সভাপতি শফিকুর রহমান শরীফ স্বপন, পৌর সভাপতি মোঃ নান্না খান।

বক্তব্য রাখেন যুবদল নেতা টিটন মোল্লা, জাকির হোসেন, রুহুল আমীন তালুকদার, মাসুম বিল্লাহ মিলন, ছাত্রদল নেতা মনিরুজ্জামান মনির, কাজী সোহাগ মাহমুদ, মামুন সিকদার, বেল্লাল হোসেন, জাবেদ সেলিম, আসিফ ইকবাল প্রমুখ।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে আগামী আন্দোলন সংগ্রামে দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষে নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহবান করেন।

এছাড়াও মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর বির্তকিত বক্তব্যের পরেও সরকারের পক্ষ থেকে এখনও কোন মামলা দায়ের না করায় তীব্র সমালোচনা করেন।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়ার বাণী

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে বাণী দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। বাণীতে উভয়েই ইসলাম ধর্মের আলোকে ঈদুল আজহার অনুপম দৃষ্টান্ত বর্ণনা করে দেশবাসীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।


প্রধানমন্ত্রীর বাণী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পবিত্র ঈদুল আজহার মর্মবাণী অন্তরে ধারণ করে নিজ নিজ অবস্থান থেকে জনকল্যাণমুখী কর্মকান্ডে অংশ নিয়ে বিভেদ বৈষম্যহীন সুখী, সমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী ত্যাগের মহিমায় ভাস্বর পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেশবাসী ও বিশ্বের সকল মুসলিম জনগোষ্ঠীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও ঈদ মোবারক জানান।

বাণীতে তিনি বলেন, মহান আল্লাহর উদ্দেশ্যে প্রিয়বস্তুকে উৎসর্গের মাধ্যমে তাঁর সন্তুষ্টি লাভের যে অনুপম দৃষ্টান্ত হযরত ইব্রাহীম (আ.) স্থাপন করে গেছেন, তা বিশ্ববাসীর কাছে চিরকাল অনুকরণীয় ও অনুসরণীয় হয়ে থাকবে।

প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন যে, এই উৎসবের মধ্যদিয়ে সামর্থ্যবান মুসলমানগণ কোরবানিকৃত পশুর গোশত আত্মীয় ও প্রতিবেশীদের মধ্যে বিলিয়ে দেন এবং সমাজে সাম্যের বাণী প্রতিষ্ঠিত করেন।

বিএনপি চেয়ারপার্সনের বাণী

বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া পবিত্র ঈদ উল আযহা উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়ে বলেছেন, দেশে ভয়ঙ্কর নৈরাজ্য চলছে। মানুষের জান, সহায়-সম্পদের নিরাপত্তা নেই। দেশের বর্তমান অবস্থায় সবার পক্ষে ঈদের আনন্দ যথাযথভারে উপভোগ করা সম্ভব হবে না। তিনি ঈদের আনন্দের দিনে কেউ যাতে অভুক্ত না থাকে- সেদিকে আমাদের সবাইকে খেয়াল রাখার আহ্বান জানান।

পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে আমি বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের মুসলমানদের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানান।

তিনি বলেন, ত্যাগের মহিমায় মহিমান্বিত প্রতি বছর ঈদুল আযহা আমাদের মাঝে ফিরে আসে। স্বার্থপরতা পরিহার করে মানবতার কল্যানে নিজেকে উৎসর্গ করা কোরবানির প্রধান শিক্ষা। হিংসা-বিদ্বেষ, লোভ-ক্রোধকে পরিহার করে সমাজে শান্তি ও সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠায় আত্মনিবেদিত হওয়া আমাদের কর্তব্য। কোরবানির যে মূল শিা তা ব্যক্তি জীবনে প্রতিফলিত করে মানব কল্যাণে ব্রতী হওয়ার মাধ্যমে মহান আল্লাহ রাব্বুল আল আমিনের সšত্তষ্টি ও নৈকট্য লাভ সম্ভব। বিশ্বাসী হিসেবে সে চেষ্টায় নিমগ্ন থাকা প্রতিটি মুসলমানের কর্তব্য।

তিনি বলেন, দেশে এক ভয়ঙ্কর নৈরাজ্য চলছে। মানুষের জান, সহায়-সম্পদের কোনো নিরাপত্তা নেই। দেশের বর্তমান অবস্থায় সকলের পে ঈদের আনন্দ যথাযথভারে উপভোগ করা সম্ভব হবে না। দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন উর্দ্ধগতি দরিদ্র ও কম আয়ের মানুষকে চরম দূর্ভোগের মুখে ঠেলে দিয়েছে। পানি, জ্বালানি তেল, গ্যাস, বিদ্যুতের তীব্র সঙ্কট জনজীবনে দুর্বিসহ অবস্থার সৃষ্টি করেছে। আবারো গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করা হচ্ছে। গৃহস্থালী কাজে ব্যবহৃত গ্যাসের দাম দ্বিগুণ বৃদ্ধির তোড়জোড় চলছে। যেকোনো মুহূর্তে সাধারণ মানুষের ওপর দাম বৃদ্ধির বোঝা চাপানো হবে। এতে মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্তের মানুষ আরো বিপন্ন হয়ে পড়বে। তাই আমি দেশের সকল বিত্তবান ও সামর্থবান ব্যক্তিদের আহবান জানাই-দরিদ্র ও অসহায় মানুষের দিকে সাহায্য ও সহমর্মিতার হাত প্রসারিত করার জন্য। ঈদের আনন্দের দিনে কেউ যাতে অভুক্ত না থাকে-সেদিকে আমাদের সবাইকে খেয়াল রাখতে হবে। সবাইকে ঈদের আনন্দকে একসাথে ভাগ করে নিতে হবে এক কাতারে মিলে।

তিনি বলেন, ঈদুল আযহা সবার জীবনে বয়ে আনুক সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি, সমাজে সৃষ্টি হোক সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যরে মেলবন্ধন, মহান আল্লাহ তায়ালার দরবারে এই প্রার্থনা জানাই।

গৌরনদীতে লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ), হজ্ব ও তাবলীগ জামাত নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতারের দাবিতে জেলার গৌরনদী উপজেলার পিঙ্গলাকাঠীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সভা করেছেন বিএনপি ও জামায়াতের নেতাকর্মীরা।

বৃহস্পতিবার সকালে নলচিড়া ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ জামাল উদ্দিন ফকিরের নেতৃত্বে গরঙ্গল ষ্ট্যান্ড থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে পিঙ্গলাকালী বন্দরে এসে শেষ হয়।

অনুষ্ঠিত সভায় আলহাজ্ব মোঃ জামাল উদ্দিন ফকিরের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জামায়াত নেতা সাইফুল ইসলাম, ইমাম মোঃ আবুল কালাম আজাদ, বিএনপি নেতা শাহজালাল সরদার প্রমুখ।

বক্তারা অনতিবিলম্বে আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন।

আওয়ামী লীগের সবাইকে ক্ষমা চাইতে হবে: মির্জা আব্বাস

বিএনপির ঢাকা মহানগর আহবায়ক মির্জা আব্বাস বলেছেন, নবী করিম (স.) এবং তাবলিগ জামাতকে নিয়ে লতিফ সিদ্দিকীর কটূক্তির জন্য শুধু তাকেই নয় আওয়ামী লীগের সবাইকে একযোগে করজোড়ে ক্ষমা চাইতে হবে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রশীদ হাবিবকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে অনুষ্ঠিত সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, আব্দুল লতিফ আওয়ামী লীগের মুখপাত্র হিসেবে দলের মনের কথাই বলেছেন।

মির্জা আব্বাস বলেন, ক্ষমতাসীনদের গুলি শেষ না হওয়া পর্যন্ত বিএনপি রাজপথ ছাড়বে না। ইস্যুভিত্তিক আন্দোলনের মধ্য দিয়ে বিএনপি সরকার বিরোধী আন্দোলন শুরু করেছে।

সরকারের উদ্দেশে মির্জা আব্বাস বলেন, অযথা উস্কানিমূলক বক্তব্য দিবেন না। এতে জনগণ রাজপথে নামতে বাধ্য হবে।

সমাবেশে বিএনপির কেন্দ্রীয় ও মহানগর পর্যায়ের নেতারাও উপস্থিত ছিলেন এবং তারাও বক্তব্য রাখেন।

আন্তর্জাতিক গুম দিবস উপলক্ষ্যে ২০ দলীয় জোটের মানববন্ধন

নয়াপল্টনে শুরু হয়েছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের মানববন্ধন কর্মসূচি। আন্তর্জাতিক গুম দিবস উপলক্ষে এ মানববন্ধন কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল ১১টায় নয়াপল্টনের নাইটিঙ্গেল মোড় থেকে আরামবাগের নটরডেম কলেজ পর্যন্ত দীর্ঘ মানববন্ধন কর্মসূচি শুরু হয়। কর্মসূচিতে যোগ দিতে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা ছাড়াও রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে নেতাকর্মীরা জড়ো হচ্ছেন নয়াপল্টনের দলীয় কার্যালয়ের সামনে।

‍এদিকে কর্মসূচিতে যে কোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে অতিরিক্ত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

সকালেই বিএনপি কার্যালয়ে দেখা গেছে বিএনপির শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবির খোকনকে। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক গুম দিবস উপলক্ষে ২০দলীয় জোটের উদ্যোগে এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে। শান্তিপূর্ণভাবেই মানববন্ধন পালিত হবে।

জোটের নেতাদের অভিযোগ, আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের আমলে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এম ইলিয়াস আলী, ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর চৌধুরী আলমসহ সারাদেশে তাদের ৬৫ জনেরও বেশি নেতা-কর্মী গুম হয়েছেন।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মাহবুবুর রহমান, এম কে আনোয়ার, আবদুল মঈন খান, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, সেলিমা রহমান, জ্যেষ্ঠ নেতা আবদুল মান্নান, রুহুল কবির রিজভী, জয়নুল আবদিন ফারুক, রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, খায়রুল কবির খোকন, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, আবদুল লতিফ জনি, শামীমুর রহমান শামীম, আসাদুল করীম শাহিনসহ দলের জ্যেষ্ঠ নেতারা বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধনে অংশ নেন।

২০ দলীয় জোট নেতাদের মধ্যে ছিলেন, ইসলামী ঐক্যজোটের মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী, খেলাফত মজলিশের সৈয়দ মজিবুর রহমান, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, এম এম আমিনুর রহমান,এনডিপির আলমগীর মজুমদার, এলডিপির রেদোয়ান আহমেদ, জাগপার শফিউল আলম প্রধান, খোন্দকার লুৎফর রহমান, লেবার পার্টির মুস্তাফিজুর রহমান ইরান, হামদুল্লাহ আল মেহেদি, ইসলামিক পার্টির আবদুল মোবিন, আবদুর রশীদ প্রধান, ডিএলর সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, ন্যাপের গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, পিপলস লীগের সৈয়দ মাহবুব হোসেন, এনপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, মুস্তাফিজুর রহমান মোস্তফা, জমিয়তের উলামে ইসলামের মাওলানা মহিউদ্দিন ইকরাম, মাওলানা রেজাউল করীম।

কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির দলীয় কার্যালয়, ফকিরাপুল, আরামবাগ, বিজয়নগর এলাকায় বিপুল পরিমাণ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পোশাকাধারী ছাড়াও বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার লোকজনও রয়েছেন।

বিশ্বব্যাপী গুম-অপহরণের প্রতিবাদে ও সচেতনতা তৈরিতে জাতিসংঘ ২০১১ সাল থেকে প্রতি বছর ৩০ অগাস্ট ‘ইন্টারন্যাশনাল ডে ফর ভিকটিমস অব এনফোর্সড ডিসঅ্যাপিয়ারেন্স’ পালন করে আসছে।

উল্লেখ্য, ‘আন্তর্জাতিক গুম দিবস’ উপলক্ষ্যে গত ৩০ আগস্ট ২০ দলের পূর্বঘোষিত মানববন্ধন কর্মসূচি প্রশাসনের অনুমতি না পেয়ে স্থগিত করা হয়। এদিন সকালে বিএনপির নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শনিবারের কর্মসূচি স্থগিত করে ২ সেপ্টেম্বর নতুন তারিখের ঘোষণা দেন।