গৌরনদী সংবাদ

অসহায় মতির পাশে দাড়াতে বিত্তবানদের প্রতি আমার আকুল আবেদন

প্রিয় গৌরনদীবাসী,
আমাদের অনেকের জীবনের হাসি আনন্দ ও কান্না বেদনার নীরব স্বাক্ষী বরিশাল জেলার গৌরনদী উপজেলার গৌরনদী বাসষ্টান্ড। এই বাসষ্টান্ডেরই এক সফল ও উজ্জল ব্যবসায়ী আমাদের অনেকের প্রিয় মুখ ‘হাওলাদার মতিউর রহমান’। অনেকেই তাকে ‘মতি ভাই’ নামে চেনে। কারো কারো কাছে অবশ্য সে শুধুই ‘মতি’। সদা হাস্যজ্জোল মতির দোকানের সামনে আড্ডা মারেনি সরকারি গৌরনদী কলেজে লেখাপড়া করেছে এমন ছাত্র বিরল।

ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে সেই মতি আজ কাঙাল। মরণব্যাধি বাসা বেধেছে তার শরীরে। তার কাছে জীবন এখন দুর্বিসহ। অসহ্য যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে মাঝে মধ্যেই আত্মহত্যার ব্যর্থ চেষ্টা চালায় সে। না পেরে অবশেষে হাউ মাউ করে কেদে ফেলে। আজ তার পাশে দাড়ানোর মত কেউ নেই। স্ত্রী থেকে ও নেই, আর্থিক দৈন্যতায় তাকে ছেড়ে চলে গেছে। অসুস্থার এ সময়ে সামান্য নার্সিং তার ভাগ্যে জুটছে না। বৃদ্ধা মা নিজেই কর্মঅক্ষম। সন্তানের সেবা করার শারিরিক শক্তি তার নাই। রোগতো অবশ্যই সেবার অভাবেও দিন দিন মৃত্যুর দিকে ধাবিত হচ্ছে মতি। অথচ প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও সেবা পেলে সে পরিপূর্ণ সুস্থ্য হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

মতির দুই পায়ে গ্যংগ্রিন হয়েছে, পচন ধরেছে, হার্টে প্রবলেম হয়েছে, আবার ডায়বেটিকস ধরা পরেছে। এতসব রোগের কষ্ট নিয়ে সে বেচে থাকতে চায় না। গত প্রায় ৬ মাসের উপরে সে অসুস্থ অবস্থায় শয্যাসায়ী। তার ভাইবোনও ততটা আর্থিক স্বচ্ছল নয়। তারপরও সব ভাইবোন মিলে যতটা পেরেছে চিকিৎসা ভার গ্রহন করেছে। কিন্ত তা মতির চিকিৎসার জন্য যথেষ্ট নয়। মতির পূর্ণ চিকিৎসা করানো হয়নি। খাওয়ানো হয়নি প্রয়োজনীয় ওষুধ। দেয়া হয়নি প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা। এরজন্য তার আর্থিক অস্বচ্ছলতাই দায়ি।

প্রিয় গৌরনদীর স্বচ্ছল ভাইবোনদের কাছে আমার প্রশ্ন টাকার অভাবে মতি কী মারা যাবে? তাকে বাঁচিয়ে রাখতে আমরা কী কোন ভূমিকা রাখবো না? আমাদের সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা কী মতিকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা করানোর জন্য যথেষ্ট নয়?। আমাদের পূর্ব পূরুষরা চলে গেছেন এই পৃথিবীর মায়া ছেড়ে। রেখে গেছেন তাদের সমস্ত সম্পদ। ভোগ করছি আমরা। আমরাও চলে যাব পৃথিবীর সব মায়া ত্যাগ করে ভোগ করবে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম। কিন্ত বেঁচে থেকে যদি আমার বা আপনার কোন সম্পদ বা অর্থ কোন দুস্থঃ বা রুগ্ন মানুষের উপকারে না আসে, তবে সেই সম্পদ দিয়ে কী হবে।

তাই আসুন, মতিকে বাঁচাতে নিজের সাধ্যে যতটুকু সম্ভব ততটুকু নিয়েই ঝাপিয়ে পড়ি। আল্লাহ নিশ্চয়ই আমাদের সামথ্য সম্পর্কে জানেন। তিনি আমাদের বিমুখ করবেন না। এ প্রসঙ্গে আমি একজন মানুষকে স্মরণ করতে চাই। তার সহযোগীতা ইতোমধ্যে অনেকই পেয়েছে। সে আমাদের ছোট ভাই ইটালী প্রবাসী কামরুল ইসলাম দিলিপ। গৌরনদী উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি। আমার ডাকে সাড়া দিয়ে সে ‘মেহেদী’ নামের একটি শিশুকে চিকিৎসা করাতে পর্যাপ্ত সহযোগীতা করেছিল। আল্লাহ রহমত ও দিলিপের আন্তরিক সহযোগীতায় মেহেদীকে ভারতে নিয়ে চিকিৎসা করানো হয়। এখন পুরোপুরি সুস্থ্য মেহেদী।

আজকে মতির এই সংকট কালীন সময়ে দিলিপের সুনজর কামনা করছি। দিলিপ তুমি যদি আমার এ লেখাটা পাও তবে তোমার প্রতি অনুরোধ মতির দিকে একটু সহযোগীতার হাত বাড়াও। তোমার এ হাতই মতির সুস্থ্য হয়ে ওঠার কারণ হতে পারে। দিলিপ তোমাকে বিশেষভাবে অনুরোধ করছি।

দিলিপের সঙ্গে সঙ্গে আমি সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে থাকা আমার প্রিয় গৌরনদীর ভাই বন্ধুদেরও দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। আমার অনেক বন্ধু আছেন যাদের লোকে দানশীল বলে জানেন। তাদেরও সুদৃষ্টি কামনা করছি। বিশেষ করে অগ্রণী ব্যাংকের পরিচালক বলরাম পোদ্দার, কুয়েত আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, দিদার সরদার অন্যতম।

দৃষ্টি আকর্ষন করতে চাই আমি সহ আমাদের অনেকের বড়ভাই নোভো কার্গোর মালিক সৈয়দ মোস্তাফিজুর রহমান দিনু ভাইয়ের। সহযোগীর হাত বাড়ানো জন্য অনুরোধ করছি স্কুল জীবনে আমার ক্লাশের সেরা ছাত্রটি যিনি আজ বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হিসেবে গর্বিত দায়িত্ব পালন করছেন আমার ভাল বন্ধু মিজানুর রহমান শামীম, ছোট ভাই লেফটেন্যান্ট কর্ণেল রফিকুল ইসলাম নয়ন ও নরসিংদীতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দায়িত্ব পালন করা মাহমুদ হাসানেরও।

এ ছাড়া অসংখ্য রাজনৈতিক নেতা, জনপ্রতিনিধি, সরকারের প্রভাবশালী কর্মকর্তা ও প্রবাসী রয়েছেন, রয়েছেন নামকরা ব্যবসায়ী ও তাদের অনেক নেতা। সকলের সহযোগীতা চাই। পাঠকের ধৈয্যচ্যুতি ঘটতে পারে বলে যাদের নাম লিখতে পারলেও লিখলাম না।

সকলের অবগতির জন্য মতির ব্যাংক হিসাব নম্বরটি দিলাম।

মতিউর রহমান, সঞ্চয়ী হিসাব নং- ০০৩৬০৩১০০৩৪২০৭,
মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, গৌরনদী শাখা, গৌরনদী, বরিশাল।



খোন্দকার কাওছার হোসেন,
সিনিয়র রিপোর্টার, দৈনিক ভোরের কাগজ
সাবেক সভাপতি, গৌরনদী প্রেস ক্লাব,
প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, পলিটিক্যাল রিপোর্টার্স ফোরাম বাংলাদেশ।


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো পোষ্ট...

Leave a Reply