বরিশাল

উজিরপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ছাত্র দলকর্মী খুন, গ্রেফতার ২

উজিরপুরে শুক্রবার নিহত সোহাগ সন্যামতের হত্যাকারীদের গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবীতে এলাকাবাসী বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিল শেষে নিহতকে উপজেলা কেন্দ্রীয় ঈদগা মাঠে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, উজিরপুর মডেল থানায় নিহতের মামা মশিউর রহমান নান্টু বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে নৃশংস ভাবে উজিরপুর উপজেলার কালীবাড়ি রোডের ফারুক সন্যামতের বড় ছেলে ছাত্রদল সদস্য সোহাগ সন্যামত(২৬) এর সাথে একই এলাকার ভিআইপি রোডের আবুল কাসেম মহুরির ছেলে গুঠিয়া ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের সম্পাদক লালন মহুরি(৩৫) এর সাথে দীর্ঘদিন পর্যন্ত আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের সাথে দ্বন্ধ সংঘাত চলে আসছিল। তার ধারাবাহিকতায় গত বৃহস্পতিবার রাত ৮ টা ৩০ মিনিটের সময় উজিরপুরে ভিআইপি রোডের কালিখোলার দঃ পাশে ওত পেতে থাকা লালন মহুরি(৩৫) ভাই ইমরান(২১), মামুন ও বরিশালের ফিসারি রোডের সজিব, গুঠিয়ার নারায়নপুরের আলতাফ সহ অজ্ঞাতনামা লালন বাহিনীর আরও ১০/১২ জন সন্ত্রাসী উপর্যুপরি কুপিয়ে ফেলে রাখে এবং তার মোটরসাইকেলে থাকা সাইফুলকে ও গুরুতর আহত করে। ঘটনাস্থলে সোহাগ মারা যায়। মুহূর্তের মধ্যে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে আহত ও নিহতকে উজিরপুর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে নিহতকে সুরতহাল করার জন্য বরিশাল শেবাচিমে প্রেরণ করা হয়। সুরতহাল শেষে আসর নামাজ শেষে এলাকাবাসী লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে। মিছিল শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এদিকে জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক সামসুজ্জোহা আজাদ ও উপজেলা ছাত্রদল সভাপতি সাহাবুদ্দিন আকন সাবু জানিয়েছেন আগামী দিন শনিবার সকালে নিহত সোহাগ সন্যামতের হত্যাকারীদের গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিলের কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

এব্যপারে উজিরপুর মডেল থানার অফিস ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন জানান থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। লালনের পিতা আবুল কাসেম মহুরী ও লালনের সহযোগী সুমনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এনিয়ে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

আরও সংবাদ...

Back to top button