আর্কাইভ

আপডেট সংবাদ-ঢাকাগামী লঞ্চে সংঘর্ষে একজন নিহত : লাশ নদীতে নিক্ষেপ

দু’দল যাত্রীদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষে ১ জন নিহত ও লঞ্চের ষ্টাফসহ কমপক্ষে ১৫ জন যাত্রী আহত হয়েছে। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে প্রতিপক্ষের লোকজনে নিহতের লাশ নদীতে ফেলে দিয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ৩ জনকে আটক করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বরিশালের মীরগঞ্জ থেকে ঢাকাগামী নিউসান-৪ লঞ্চটি গৌরনদীর মিয়ারচর লঞ্চ ঘাট থেকে যাত্রী উঠিয়ে রাত সাড়ে দশটার দিকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। মিয়ারচর লঞ্চ ঘাট থেকে যাত্রী উঠানোর পর পরই লঞ্চের সিট দখলকে কেন্দ্র করে যাত্রী আনোয়ার ফকির ও মামুন-অর রশিদের মধ্যে বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে উভয়ের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। সংঘর্ষে বাবুগঞ্জের অর্জুনমলি গ্রামের গনি ফকিরের পুত্র আনোয়ার হোসেন ফকির নিহত হয়। এসময় সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে নিহতের ভাগ্নে ইমরান, লঞ্চের ষ্টাফসহ কমপক্ষে ১৫ জন যাত্রী আহত হয়েছে।

বিষয়টি ধামাচাপা দিতে মামুন ও তার সমর্থকরা নিহত আনোয়ার ফকিরের লাশ আড়িয়াল খাঁ নদীতে ফেলে দেয়। লঞ্চটি মুলাদীর নন্দিরবাজার লঞ্চ ঘাটে যাত্রী তোলার জন্য নোঙ্গর করলে নিহতর ভাগ্নে ইমরান হোসেন কৌশলে লঞ্চ থেকে নেমে মুলাদী থানায় গিয়ে পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করেন। রাত সোয়া এগারোটার দিকে লঞ্চটি মীর্জা বাজারে পৌঁছলে পুলিশ লঞ্চে অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে (১) খোকন, মামুন-অর রশিদ ও (২) খোকনকে আটক করে।

এ ব্যাপারে মুলাদী থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আমিরুজ্জামান আমিরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, নিহতের লাশ উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »