গৌরনদী সংবাদ

গৌরনদীতে মটর সাইকেল আটক করে পুলিশের চাঁদাবাজি ও মারধর

গৌরনদীর মাহিলাড়ায় গতকাল রাতে শিকারপুরের এক মোটরসাইকেল ড্রাইভারকে আটক করে মারধর করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে গৌরনদী থানার এস আই হারুন ও তার কথিত সোর্স মাহিলাড়ার বিলাশ কবিরাজের বিরুদ্ধে।

ভুক্তভোগী শিকারপুর গ্রামের রতন মিয়ার পুত্র মোটর সাইকেল চালক রিপন মিয়া অভিযোগ করে বলেন, গতকাল রাতে শিকারপুর থেকে মোটর সাইকেলে যাত্রী নিয়ে মাহিলাড়া বাজারে আসে। মাহিলাড়া বাসস্ট্যান্ডে যাত্রী নামিয়ে বাজারের দক্ষিণ মাথায় বসে তার পূর্ব পরিচিত মাহিলাড়ার স্থানীয় মিলন সিকদারের সাথে গল্প করছিল। রাত ৮ টার সময় গৌরনদী থানার এস আই হারুন তাদেরকে সন্দেহ ভাজন হিসেবে আটক করে তাদের শরীর তল্লাশি করে জানতে চায় তারা এখানে কি করে। এরই মধ্যে হারুনের সোর্স বিলাশ কবিরাজ ঘটনাস্থলে আসে। কিছুক্ষণ পরে এস আই হারুন তাদের দু’জনকে জানায় তাদেরকে থানায় যেতে হবে। কাড়ন জানতে চাইলে এস আই হারুন রিপনকে মারধর করে করে বলে জানান। একপর্যায়ে সোর্স বিলাশ কবিরাজের সহযোগিতায় স্থানীয় মিলন সিকদার ২ হাজার টাকা এস আই হারুনকে দিয়ে মুক্তি পায়।

অপরদিকে রিপনের কাছে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে নতুবা তাকে মাদক মামলার আসামী হিসেবে গ্রেফতার করে চালান দেওয়ার হুমকি দেয় হারুন তার সোর্স। রিপনের কাছে কোন টাকা পয়সা না থাকায় এস আই হারুন তার কথিত সোর্স বিলাশ কবিরাজের কাছে মোটর সাইকেল রেখে ৪ হাজার টাকা নিয়ে যায় এবং মোটর সাইকেল চালক রিপনকে ২০ হাজার টাকা দিয়ে বিলাশের কাছ থেকে গাড়ি ছাড়িয়ে নিতে বলে হারুন চলে যায়।

ঘটনাটি বুধবার বিকালে মাহিলাড়া ইউপি চেয়ারম্যান সৈকত গুহ পিকলু’র কার্যালয়ে এসে ভুক্তভোগী রিপন নালিশ করলে স্থানীয় বিলাশ কবিরাজের জিম্মায় থাকা মোটর সাইকেলটি উদ্ধার করা হয়।

অপরদিকে এস আই হারুন অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, রিপন ও মিলন দু’জনকেই সন্দেহ ভাজন ব্যক্তি হিসেবে দেহ তল্লাশি করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। কোন টাকা পয়সার লেনদেন হয়নি।

খবর: হাসান মাহমুদ, মাহিলাড়া


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো পোষ্ট...

Leave a Reply