আর্কাইভ

নলছিটি থানায় তেলেসমাতি কান্ড….

উম্মে রুম্মান, বরিশাল ॥ পরকীয়া ডাকে সারা দিতে গিয়ে হাতে নাতে ধরা খেয়ে গনধোলই এর শিকার গিয়াস উদ্দিনকে নলছিটি থানা পুলিশ সংঘর্ষের মামলায় আদালতে সোপর্দ করেছে। থানা পুলিশের রহস্য জনক এই আচরনে জনমনে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। বুধবার গভির রাতে প্রেমিকার ডাকে তার পিতার বাসায় গিয়ে জনতার হাতে ধরা খাওয়া যুবককে সংঘর্ষের মামলার আসামী বানিয়ে আদালতে প্রেরনের ঘটনায় পুলিশের কাজের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে ।

স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, গত বুধবার রাত ১২ টায় নলছিটি উপজেলার দপদপিয়া ইউনিয়নের ঝুরকাঠী গ্রামের গিয়াস উদ্দিন একই গ্রামের হানিফ হাওলাদারের মেয়ে সাথীর ডাকে সাড়াদিলে জনতা তাদের আটক করে । পরে জনতা গিয়াসকে গনধোলাই দিয়ে পুলিশের হাতে সোপর্দকরে । পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে গতকাল দিন ভর নানান নাটক রটিয়ে শেষ পর্যন্ত দুপুরে ৮ দিন পূবে দপদপিয়া গ্রামের নূর আলমের দায়ের করা মারামারির মামলায় আসামী দেখিয়ে আদালতে প্রেরন করে ।

এবিষয়ে মামলার বাদী নূর আলম বলেন আমি আমার মামলায় গিয়াস নামের কাউকে আসামী করিনাই ওই মামলায় মাত্র একজন আসামী তার নাম হানিফ। থানা পুলিশ যদি কাউকে ঐ মামলায় আসামী দেখিয়ে গ্রেপ্তার দেখায় তাতে আমার করার কিছূ থাকেনা । ঐ দিনের ঘটনায় গিয়াস জড়িত ছিলনা বলে গিয়াস দাবী করে । এবিষয়ে আলাপকালে নলছিটি থানার ওসি মাসুদুজ্জামান জানান, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তদন্তে গিয়াসের জড়িত থাকার প্রমান পেয়েই গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে প্রেরন করেছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »