আর্কাইভ

নানা অভিযোগে দ্বিতীয় বারেরমত সাংবাদিক সম্মেলন করল এলাকাবাসী

ঝালকাঠি অফিস: ঝালকাঠি সদর উপজেলার শেখেরহাট ইউনিয়নের শিরযুগ গ্রামে দারুল কোরআন দাখিল মাদ্রাসার মসজিদকে কেন্দ্র করে ইউপি চেয়ারম্যান ও এলাকাবাসির মধ্যে বিরোধ সৃষ্টির ঘটনায় এলাকাবাসি দ্বিতীয় দফায় জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা ঝালকাঠি জেলা কার্যালয়ে শনিবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলন করেছে। সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে অভিযোগ করা হয়, শেখেরহাট ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা কৃষকলীগ সাধারন সম্পাদক নূরুল আমিন খান সুরুজ এ মসজিদ ভেঙ্গে বন্ধের পাঁয়তারা চালাচ্ছে। দুই যুগ ধরে এ মসজিদে এলাকাবাসি জুম্মা, ঈদসহ ওয়াক্তের নামাজ আদায় করছে। তিনি এ মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি হওয়ায় প্রভাব বিস্তার করে ইতিমধ্যেই জুম্মা ও ঈদের নামাজ বন্ধে সক্রিয় ভূমিকা রেখেছে। এর প্রতিবাদে এলাকাবাসি ও মাদ্রাসা কমিটির মধ্যে গত পহেলা সেপ্টেম্বর মাদ্রায় একটি বৈঠক করে। বৈঠকের এক পর্যায়ে এলাকাবাসির পক্ষে এব্যাপারে নেতৃত্বদানকারি মিজানুর রহমান খান কমলকে বৈঠক থেকে ডেকে নিয়ে মারধর করা হয়। অভিযোগ করা হয় চেয়ারম্যানের ভাই রুহুল আমিন খানের নেতৃত্বে ও নির্দেশে ৯/১০ জন কমলের উপর হামলা চালায়। এ নিয়ে কমল গত ৩ সেপ্টেম্বর ঝালকাঠি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করলেও এখন পর্যন্ত তা রেকর্ড করা হয়নি বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

এছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয় চেয়ারম্যান নূরুল আমিন খান সুরুজ এলাকায় সরকারি সম্পত্তি আত্মসাৎ, অনৈতিক কর্মকান্ড, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রভাব খাটিয়ে শিক্ষার পরিবেশ নষ্ট করে আসছে। এসব কর্মকান্ডে প্রতিবাদ করায় কমল সহ এলাকাবাসিকে তার নিজস্ব লোকজনের মাধ্যমে মিথ্যা মামলায় হয়রানী করা হচ্ছে। চেয়ারম্যানের এসব কর্মকান্ডের প্রতিবাদে গত ১৫ সেপ্টেম্বর ঝালকাঠি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এলাকাবাসি মানববন্ধনের প্রস্তুতি নেয়ায় গত ১৪ সেপ্টেম্বর রাতে কমলকে গ্রেফতার করিয়ে ব্যানার ও স্মারকলিপি ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়। সপ্তাহকাল হাজতবাসের পর কমল আদালত থেকে খালাস পেয়েছেন বলে জানান।

চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মসজিদ নিয়ে এ অভিযোগের ব্যাপারে তার বক্তব্যে তিনি বলেন, মসজিদের ভিতরে বর্তমানে মাদ্রাসার হেফজখানার কার্যক্রম চলছে। ইতিমধ্যেই এ মসজিদের জুম্মা ও ঈদের নামাজ এলাকাবাসির সিদ্ধান্তে নতুন একটি মসজিদে পরিচালিত  হচ্ছে। তিনি আরো জানান, পুরাতন মসজিদ ও মাদ্রাসর জায়গায় ৬৫ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প বাস্তবায়নাধীন আছে। সম্মেলনে এলাকাবাসির পক্ষে উপস্থিত ছিলেন, হোসনে জামাল খোন্দকার, মোঃ খালেদ হোসেন খান, আলী আক্কাস, শেখ আহসান হাবিব পলাশ প্রমূখ।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »