আর্কাইভ

ভূরঘাটায় চাঁদার দাবিতে তিনজন কোরান শিক্ষকের ওপর হামলা

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ চাঁদার দাবিতে তিনজন কোরান শিক্ষকের ওপর হামলা চালিয়ে তাদের ব্যবহৃত মটরসাইকেল, সাথে থাকা নগদ অর্থ ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। পুলিশ ঘন্টাকালব্যাপী অভিযান চালিয়ে ওইদিন রাতেই ছিনিয়ে নেয়া মটরসাইকেলটি উদ্ধার করছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার রাতে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার সীমান্তবর্তী ভূরঘাটা গ্রামে। এ ঘটনায় রবিবার বিকেলে থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, ক্বরীয়ানা পদ্ধতিতে কোরান শিক্ষা সোসাইটি বাংলাদেশের উদ্যোগে গত দু’মাস ধরে ভূরঘাটা গ্রামে একটি প্রকল্প চালু করা হয়। সোসাইটির বরিশাল ও মাদারীপুর জেলা প্রতিনিধি হাফেজ ক্বরী মোঃ আল-আমিন অভিযোগ করেন, বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অনুমোদিত এ প্রকল্পের কার্যক্রমের  শুরু থেকে ভূরঘাটা গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য কামাল ফকির ও তার সহযোগীরা তাদের কাছে মোটা অংকের টাকা চাঁদা দাবি করে আসে। তাদের দাবিকৃত টাকা দিকে অস্বীকার করায় গত শনিবার (১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় জেএমবির সদস্য আখ্যা দিয়ে ওই এলাকার কোরান শিক্ষক হাফেজ ক্বরী মোঃ নুরে মিল্লাতকে মারধর করে আটক করে রাখা হয়। খবর পেয়ে জেলা প্রতিনিধি হাফেজ ক্বরী মোঃ আল-আমিন ও গৌরনদী পৌর এলাকার কোরান শিক্ষক হাফেজ ক্বরী মোঃ নুরে আলম ওইদিন রাতে ঘটনাস্থলে গেলে তাদের ওপরও হামলা চালানো হয়। একপর্যায়ে তাদেরকে আটক করে হামলাকারীরা তাদের ব্যবহৃত মটরসাইকেল, মোবাইল ফোন ও নগদ অর্থ ছিনিয়ে নেয়। খবর পেয়ে গৌরনদী থানার এস.আই অসীম কুমার সিকদার একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আটককৃতদের উদ্ধার করে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে হামলাকারীরা আত্মগোপন করে। পরবর্তীকে পুলিশ প্রায় ঘন্টাকালব্যাপী অভিযান চালিয়ে ওইদিন রাতেই কোরান শিক্ষকদের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেয়া মটরসাইকেলটি পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে। এ ঘটনায় রবিবার বিকেলে সোসাইটির জেলা প্রতিনিধি হাফেজ ক্বরী মোঃ আল-আমিন বাদি হয়ে গৌরনদী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »