আর্কাইভ

আগৈলঝাড়ার শিক্ষিকা ঝুমু হত্যা – হত্যাকারী পুত্রের বিচার চাইলেন বৃদ্ধা মা – হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে ৯৫ টি স্কুলে কর্মবিরতী – খুনীর স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি ॥ মামলা দায়ের

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার স্কুল শিক্ষিকা শারমিন আক্তার ঝুমু’র হত্যাকারী সিরাজুল ইসলাম আবুল গোমস্তার ফাঁসির দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার উপজেলার ৯৫ টি স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষিকারা কর্মবিরতী পালন করেছেন। অপরদিকে ৫ মাসের অন্তঃস্বত্তা শিক্ষিকা ঝুমু’র হত্যার খবরে সর্বমহলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। হত্যার ঘটনায় আজ বৃহস্পতিবার সকালে নিহতের পিতা সরদার মোঃ শাহজাহান বাদি হয়ে আগৈলঝাড়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন (যার নং-৮/১৩-১০-১১)। থানা কম্পাউন্ডে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও সংবাদকর্মীদের কাছে খুনের কথা অকপটে স্বীকার করেছে বখাটে সিরাজুল ইসলাম আবুল গোমস্তা। এদিকে হত্যাকারী পুত্রের ফাঁসির দাবি করেছেন তার বৃদ্ধা মা রোকেয়া বেগম।

আগৈলঝাড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি সোহরাব হোসেন বাবুল জানান, শিক্ষিকা শারমিন আক্তার ঝুমুর হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার উপজেলার ৯৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মবিরতী পালন করা হয়েছে। একইদিন হত্যকারীর ফাঁসির দাবিতে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির আয়োজনে উপজেলার শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষার্থী, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতিসহ সর্বস্তুরের হাজার-হাজার জনগন থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। একই দাবিতে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির আগামি সাত দিনের কর্মসূচী ঘোষনা করেছেন। কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে বিক্ষোভ মিছিল, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রির বরাবরে স্মারকলিপি পেশ, মানববন্ধন, কালোব্যাজ ধারন, প্রতিটি স্কুলে কালো পতাকা উত্তোলন, স্মরন সভা ও দোয়া-মিলাদ।

আগৈলঝাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি অশোক কুমার নন্দি জানান, হত্যার ঘটনায় আজ বৃহস্পতিবার সকালে নিহতের পিতা সরদার মোঃ শাহজাহান বাদি হয়ে গ্রেফতারকৃত খুনী সিরাজুল ইসলাম আবুল গোমস্তাকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। তিনি আরো জানান, গ্রেফতারকৃতর স্বীকারোক্তি মতে বুধবার রাতে ঘটনাস্থলের পাশ্ববর্তী জঙ্গল থেকে রক্তমাখা ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়াও গ্রেফতারের পর খুনী আবুল হত্যার কথা অকপটে স্বীকার করেছেন বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে খুনী আবুলদের উত্তর শিহিপাশা গ্রামের বাড়িতে সংবাদ কর্মীরা গেলে আবুলের ৭০ বছরের বৃদ্ধা মা রোকেয়া বেগম ক্ষোভের সাথে কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, “আবুল মোর পোলা না-ও খুনী। মুই অর ফাঁসি চাই”।

এদিকে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার দেবদাস ভট্টাচার্য্য।

উল্লেখ্য, গৈলা এতিমখানা সংলগ্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা ও গৈলা কালুপাড়া গ্রামের শাহজাহান সরদারের কন্যা শারমিন আক্তার ঝুমুকে (২২) দীর্ঘদিন থেকে নানা ধরনের উত্যক্ত করে আসছিলো পাশ্ববর্তী উত্তর শিহিপাশা গ্রামের গ্রামপুলিশ আবু গোমস্তার বখাটে পুত্র সিরাজুল ইসলাম আবুল গোমস্তা।

গত এক বছর পূর্বে একই উপজেলার মাগুড়া গ্রামের সেনা সদস্য সোহেল তালুকদারের সাথে সামাজিক ভাবে ঝুমুর বিয়ে হয়। এতে বখাটে আবুল ক্ষিপ্ত হয়ে প্রায়ই শিক্ষিকা শারমিন আক্তারকে নানাধরনের ভয়ভীতি প্রদর্শণ করতো। এ ঘটনায় শারমিন আগৈলঝাড়া থানায় গত ১১ জুলাই একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গত বুধবার (১২ অক্টোবর) বিকেল সাড়ে চারটার দিকে স্কুল ছুটির পর শিক্ষিকা ঝুমু তার বাড়িতে রওয়ানা হন। পথিমধ্যে গৈলা বাদ্যকার বাড়ির সন্নিকটের ব্রিজের কাছে পৌঁছলে বখাটে আবুল শিক্ষিকা ঝুমর পথরোধ করে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে। এসময় ঝুমুর আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে তাকে আগৈলঝাড়া হাসপাতালে নিয়ে আসে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিক্ষিকা শারমিন আক্তার ঝুমু মারা যায়। খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক থানা পুলিশ গ্রামবাসীর সহায়তা হত্যকারী ঘাতক সিরাজুল ইসলাম আবুল গোমস্তাকে গ্রেফতার করে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »