আর্কাইভ

গৌরনদীতে ইন্টারনেট উৎসব – জগত টাকে জয় আর হাতের মুঠোয় পৃথিবী আনার অঙ্গিকার

গৌরনদী ডটকম ॥ “ইন্টারনেট তথা তথ্যপ্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে জগত টাকে জয় আর হাতের মুঠোয় পৃথিবী আনার অঙ্গিকার করলো বরিশালের গৌরনদী পৌর শহর ও উপজেলার চারটি কলেজ ও আটটি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রায় পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থীরা। আজ বৃহস্পতিবার সকালে গৌরনদী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে ইন্টারনেট উৎসবে শিক্ষার্থীরা এ শপথ করেন।

গ্রামীণফোন ও প্রথম আলোর আয়োজনে সকাল সাড়ে নয়টায় গৌরনদী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রীদের জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক মানিক লাল আচার্য্য। শিক্ষার্থীদের তথ্যপ্রযুক্তির ক্ষেত্রে এগিয়ে চলার দৃপ্ত শপথ বাক্য পাঠ করান ঢাকা বন্ধুসভার মোস্তাফিজুর রহমান। উদ্বোধনী বক্তব্যে মানিক লাল আচার্য্য বলেন, গ্রামীণফোনের সহযোগীতায় সহযোগিতায় আমাদের সবার প্রিয় প্রথম আলো ব্যতিক্রমধর্মী এই উৎসবের আয়োজন করে সবার মন জয় করেছে। পৃথিবীকে হাতের মুঠায় নিয়ে আসতে হবে। এ উৎসব অব্যাহত রাখার দাবি জানাই। এ সময় সামনে বসা কয়েক হাজার শিক্ষার্থী হাত তুলে তার বক্তব্য সমর্থন করে। মোঃ ফারুক ওয়াসিফ প্রথম আলোর সম্পদকীয় সহকারী বলেন, সব ভাল কাজের সঙ্গে প্রথম আলো ছিল এবং থাকবে। এসএসসিতে জিপিএ-৫ পাওয়া কৃতি শিক্ষার্থীদের দেয়া সংবর্ধনার মত এবার গ্রামীণ ফোনের সহায়তায় প্রথম আলো জেলায় জেলায় ইন্টারনেট শুরু করেছেন। প্রচন্ড গরমের মধ্যেও বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীর উপস্থিতি দেখে মনে হয়েছিল উৎসব করে আমরা সফল হবো। তথ্য প্রযুক্তিতে নিজেদের দক্ষতা বৃদ্ধির পাশাপাশি আমরা এই সোনার বাংলাকে উন্নয়ন রাষ্ট্রে রুপান্তর করতে পারবো। গ্রামীণফোন বরিশাল অঞ্চলের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক শেখ বরকাতুল্লাহ বলেন, শিক্ষার্থীদের আনন্দ আর উৎসব দেখে মনটা ভরে গেলে। প্রথম আলোকে সঙ্গে নিয়ে আগামী বছরের এ উৎসবের ধারাবাহিতা রক্ষা করার চেষ্টা করবো। তিনি শিক্ষার্থীদেরকে ইন্টারনেট জ্ঞান অর্জন করে বিশ্ব জয়ের আহবান জানান। অনুষ্ঠানে, গৌরনদী পৌরসভার মেয়র মোঃ হারিছুর রহমান শুভেচ্ছা বক্তব্যে বলেন, এ ধরনের উৎসব শিক্ষার্থীদের সামনে চলতে অগ্রনী ভুমিকা রাখবে। সমাপনী বক্তব্য রাখেন প্রথম আলোর গৌরনদী প্রতিনিধি জহুরুল ইসলাম জহির।

উৎসবে সরকারি গৌরনদী কলেজ, গৌরনদী গার্লস হাইস্কুল এন্ড  কলেজ, মাহিলাড়া ডিগ্রী কলেজ, বার্থী ডিগ্রী কলেজ, গৌরনদী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পালরদী মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ধানডোবা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, টরকী বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, চাঁদশী ঈশ্বর চন্দ্র মাধ্যমিক বিদ্যালয়, গেরাকুল আকতারুন্নেচ্ছা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, নাঠৈ রিজিয়া বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও বার্থী তাঁরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ছাড়াও শিক্ষক-শিক্ষিকা ও অভিভাবকেরা উপস্থিত ছিলেন। দেশজুড়ে ইন্টারনেট উৎসব যৌথ ভাবে আয়োজন করেছে গ্রামীণ ফোন ও প্রথম আলো। সহযোগিতা অংশীদার হিসেবে রয়েছেন বিজ্ঞান ও তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এবং ওয়েব দেখার জনপ্রিয় সফটওয়ার অপেরা মিনি। উৎসবে সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন প্রথম আলোর বন্ধু সভার সদস্যরা। দেখব এবার জগৎটাকে ও পৃথিবী হবে হাতের মুঠায় শ্লোগানে অনুষ্ঠিত উৎসবে আকর্ষন ছিল আই জিনিয়াস কুইজ প্রতিযোগীতা।

চারটি কলেজ ও আটটি প্রতিষ্ঠান থেকে অংশ নেওয়া ৯৬ জন প্রতিযোগীকে পিছনে ফেলে আই জিনিয়াস নির্বাচিত হয়েছে মাহিলাড়া এ.এন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর ছাত্র শাহ নিয়াজ আহম্মেদ। তার বাবা মাহিলাড়া ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ ফিরোজ ফোরকান ও মা কামরুন নাহার একজন স্কুল শিক্ষিকা। খুশিতে আত্মহারা নিয়াজ আহম্মেদ বলেন, আজ আমি খুবই আনন্দিত। বাবা আমাকে ইংরেজী জানার জন্য কম্পিউটর কিনে দিয়েছে। ইংরেজী শেখার পাশাপাশি আমি আমার প্রিয় বাংলাদেশ ও বিশ্বকে জানতে তথ্য প্রযুক্তির জ্ঞান অন্বেশনে আমি ইন্টারনেট চর্চা করে থাকি। সবাইকে পিছনে ফেলে আই জিনিয়াস নির্বাচিত হলাম। পরবর্তী সময়ে ঢাকায় অনুষ্ঠিতও ফাইনাল রাউন্ডেও ভাল রেজাল্ট করে গৌরনদী তথা বরিশালবাসির মুখ উজ্জ্বল করার আশা শাহ নিয়াজ আহম্মেদের। আই জিনিয়াস নিয়াজের হাতে প্রথম আলোর শুভেচ্ছা উপহার তুলে দেন মানিক লাল আচার্য্য। স্বাগতিক স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককের হাতে প্রথম আলোর শুভেচ্ছা উপহার তুলে দেন প্রথম আলোর গৌরনদী প্রতিনিধি জহুরুল ইসলাম জহির।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »