আর্কাইভ

বাকেরগঞ্জে বিধবার ক্ষেতের ধান লুটের পায়তারা

বরিশাল প্রতিনিধি ॥ নানা অপকর্মের হোতা বাকেরগঞ্জর বোয়ালিয়ার মৃত চান খান পুত্র শিপন খান (৩০) ও মাসুদ খান (৩২) ফের এলাকায় ত্রাসের রাম রাজত্ব কায়েম করে চলেছেন। দু’সহোদর মিলে এলাকায় যে বাহিনী গড়ে তুলেছে সেটি স্থানীয়দের কাছে শিপন বাহিনী নামে পরিচিত। বাহিনীটি মৌসুম বুঝে তাদের অপরাধ কর্মকান্ড করে থাকে। ধান কাটা মৌসুম এলেই তারা বিভিন্ন কৌশলে লুটতরাজে মেতে ওঠে। ধারাল অস্ত্র প্রদর্শন, নানা ভয়ভীতি এমনকী দাঙ্গা হাঙ্গামা চালিয়ে এলাকায় একচ্ছত্র আধিপত্র বিস্তার করে ভাড়ায় লাঠিয়াল হিসাবে কৃষকদের ধান লুটপাটের মিশন বাস্তবায়ন করা হয়। এ বাহিনীটি নিজেদের এলাকায়ও মধ্যযুগীয় কায়দায় লুটপাট চালাচ্ছে। ভুক্তভোগীরা স্থানীয় ক্ষমতাবানদের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কোনো প্রতিকার পাচ্ছে না। এতে ক্রমেই বেপরোয়া অপকর্মে লিপ্ত হচ্ছে এ বাহিনী। এবার এ শিপন বাহিনীর লোভাতুর হিংস্র দৃষ্টি পড়েছে একই এলাকার মৃত আদম আলী হাওলাদারের সহায়হীন ফরিদা বেগমের ওপর। হিংস্রতা থেকে বাঁচতে ফরিদা গত ২০ নভেম্বর বিজ্ঞ আদালতের শরনাপন্ন হয়েছেন। আদালত সুত্রে জানা গেছে, বোয়ালিয়া মৌজায় জে.এল নং-১৫০, খতিয়ান নং-৩১৯ এর ১৬০২ নং দাগের ১৬ শতাংশ জমিতে বিধবা ফরিদা বেগম ধান চাষ করে। ভুমিদস্যু শিপন খানের লোপ পড়ে পাকা ধানের উপর। ঐ জমির ধান গত ১৯ নভেম্বর কেটে নেয়ার চেষ্টা করে শিপন বাহিনী। এ ঘটনার সময় ফরিদা বেগম বাধা দেন। এতে শিপন বাহিনী তার ওপর চড়াও হয় এবং প্রা নাশের হুমকি দেয়। প্রান বাঁচাতে ফরিদা বেগম বর্তমানে পলাতক জীবনযাপন করছেন। এ ব্যাপারে তিনি জেলা পুলিশ সুপার, বাকেরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সহযোগীতা কামনা করছেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »