আর্কাইভ

শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরনে স্মৃতিস্তম্ভ নির্মানের দাবিতে গৌরনদীতে মানববন্ধন

গিয়াস উদ্দিন মিয়া, গৌরনদীঃ ’৭১ সনের ২৫ এপ্রিল পাক সেনারা ঢাকা-বরিশাল মহাসড়ক দিয়ে দক্ষিনাঞ্চলের জনপদে প্রবেশের মাধ্যমে হত্যাযজ্ঞ শুরু করে। তাদের প্রবেশের খবর শুনে গৌরনদীর স্বেচ্ছাসেবক দলের কর্মীরা গৌরনদীর সাউদেরখালপাড় নামকস্থানে পাক সেনাদের প্রতিহত করার জন্য অবস্থান নেয়। হানাদাররা সেখানে পৌঁছলে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতিরোধের মুখে পরে। সেইদিন (২৫ এপ্রিল) পাক সেনাদের সাথে সম্মুখ যুদ্ধে প্রথম শহীদ হন গৌরনদীর নাঠৈ গ্রামের সৈয়দ আবুল হাসেম, চাঁদশীর পরিমল মন্ডল, গৈলার আলাউদ্দিন ওরফে আলা বক্স ও বাটাজোরের মোক্তার হোসেনসহ অর্ধশত এলাকাবাসী। মুক্তিযোদ্ধাদের গুলিতে ওইদিন ৮ জন পাক সেনা নিহত হয়। এটাই ছিলো বরিশালসহ গোটা দক্ষিণাঞ্চলে স্থলপথে প্রথম যুদ্ধ এবং এরাই হচ্ছেন প্রথম শহীদ। দীর্ঘ ৪০ বছরেও সেই স্থানে কোন স্মৃতিস্তম্ভ নির্মান হয়নি। সেই শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরনে স্মৃতিস্তম্ভ নির্মানের দাবিতে কটকস্থল মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে গত শুক্রবার ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের গৌরনদীর সাউদেরখালপাড় মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করা হয়।

ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের গৌরনদীর সাউদেরখালপাড়ে দীর্ঘ লম্ভা ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধন কর্মসুচি চলাকালে বক্তব্য রাখেন কটকস্থল মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি সংসদের সভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধ মো. খলিলুর রহমান মাঝি, সাধারন সম্পাদক আবুল কালাম তালুকদার, বার্থী ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মামুন অর রশীদ মনু মোল্লা, মজিবর রহমান, কালের কন্ঠের গৌরনদী প্রতিনিধি ও গ্রামীন সাংবাদিক সংগঠনের কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক মো. গিয়াস উদ্দিন মিয়া, শুভসংঘ গৌরনদী উপজেলা শাখার সভাপতি সুমন পাল, সাধারন সম্পাদক শ্যামল বনিক বাবু, উষার সাধারন সম্পাদক নারায়ন পোদ্দার, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন কচি, দপ্তর সম্পাদক শেখর দত্ত বনিক, অবসরপ্রাপ্ত সার্জন মো. হাবিবুর রহমান মিয়া, ইউপি সদস্য মোস্তফা সরদার, রাশিদা বেগম, কামাল মোল্লা, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক এসএম শামীম, আমিনুল ইসলাম হালান প্রমুখ। পরে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে একটি বর্নাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি মহা সড়কসহ বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »